BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা পরিস্থিতি: লকডাউনের মেয়াদ ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়াল তেলেঙ্গানা

Published by: Sulaya Singha |    Posted: April 11, 2020 8:52 am|    Updated: April 11, 2020 10:04 pm

An Images

করোনার গ্রাসে গোটা বিশ্ব। ক্রমশ আয়ত্তের বাইরে চলে যাচ্ছে পরিস্থিতি। ইটালি ছাড়িয়ে মারণ জীবাণুর ভরকেন্দ্র এখন আমেরিকা। মার্কিন মুলুকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২০০০ জনের। গোটা দুনিয়ায় মৃতের সংখ্যা এক লক্ষ ছাপিয়ে গিয়েছে। মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে একাধিক দেশ। বিশ্বে আক্রান্ত প্রায় ১৬ লক্ষ মানুষ। ভারতেও দাপট দেখাচ্ছে মারণ ভাইরাস। দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৪২। মোট আক্রান্ত ৭,৫২৯। সেরে উঠেছেন ৬৫২ জন। এদিকে পশ্চিমবঙ্গে আক্রান্ত  ৯৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ জনের (রাজ্য সরকারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী)। করোনা সংক্রান্ত আপডেট:

রাত ৯.৩০: রাজ্যে লকডাউনের সময়সীমা ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়াল তেলেঙ্গানা, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের।

সন্ধে ৭.৪৫: পুণেতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৯। শনিবার আরও একজনের আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে।

সন্ধে ৭.৩০: মুম্বইয়ে একদিনে ১১ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ১৮৯। শহরে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৫। মোট আক্রান্ত ১,১৮২ জন, পরিসংখ্যান দিয়েছে বৃহন্মুম্বই পুরসভা।

সন্ধে ৭টা: লখনউয়ের হাসপাতাল থেকে করোনামুক্ত হয়ে ছাড়া পেল আড়াই বছরের শিশু। পরের দুটি টেস্টের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে তার।

বিকেল ৫.৩৫: দেশে ক্রমেই বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। অ্যাকটিভ কেস ৬,৬৩৪। মৃত বেড়ে ২৪২ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬৫২ জন।
বিকেল ৫.২২:
৩০ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর কথা ঘোষণা করল মহারাষ্ট্র। ওড়িশা, পাঞ্জাব বাংলার পর একই পথে হাঁটল মহারাষ্ট্র সরকার। গোটা দেশে সে রাজ্যের অবস্থাই সবচেয়ে শোচনীয়। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬৬৬। 


বিকেল ৫.০২:
১০ জুন পর্যন্ত রাজ্যের সমস্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকবে বলে জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
বিকেল ৪.৪৮:
রাজ্যে লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানোর কথা ঘোষণা করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগামী ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যে লকডাউন থাকবে। এদিন নবান্নে জানিয়ে দিলেন মমতা। সকালে প্রধানমন্ত্রীর কাছে লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর আরজি জানিয়েছিলেন দশটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। তারপরই এই ঘোষণা মমতার। তিনি আরও জানান, ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত দেশজুড়ে লকডাউনের কথা সরকারিভাবে জানিয়েছেন মোদি।
বিকেল ৪.৪৫: বাংলায় আরও ছ’টি পজিটিভ কেস। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯৫। যার মধ্যে ৭০টি কেস ১৬টি পরিবারের। জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 
বিকেল ৪.১৭:
আজ জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন না প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কেন্দ্রীয় সূত্রে এমনটাই খবর বলে জানাচ্ছে সংবাদ সংস্থা এএনআই। 


বিকেল ৪.০৪:
গোটা দেশে শুধু করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য ৫৮৬ টি হাসপাতালের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেই সঙ্গে দেশে বর্তমানে এক লক্ষেরও বেশি আইসোলেশন বেড রয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে জানালেন লব আগরওয়াল।
বেলা ৩.২৫:
লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। টুইট করে জানালেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। মোদির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন তিনি।


বেলা ৩.০০: রাজস্থানে পজিটিভ আরও ১১৭জন। সে রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ৬৭৮।
বেলা ২.৩৫:
মুম্বইয়ের ধারাভিতে আজ শুরু স্ক্রিনিং টেস্ট। ১৫০ চিকিৎসকের একটি দল বৃহন্মুম্বই পুরনিগমের কর্মীদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে এই কাজ করছে।
বেলা ২.২০: ধারাভিতে মৃত্যু ৮০ বছরের এক করোনা পজিটিভ বৃদ্ধের। সেখানে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪।
বেলা ১.৪০:
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানোর আরজি জানালেন দশটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী।
বেলা ১.১২:
আজ বেলা ১২টা পর্যন্ত কর্ণাটকে আরও সাতজন করোনা আক্রান্ত হওয়ায় মোট সংখ্যা দাঁড়াল ২১৪। যার মধ্যে ছ’জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩৭ জন।


বেলা ১.০৫:
উদ্বেগ বাড়াচ্ছে মহারাষ্ট্র। শনিবার সামনে এল ৯২টি নতুন কেস। স্বাস্থ্যদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ১,৬৬৬। 
বেলা ১২.৫৫:
তামিলনাড়ুতে প্রতিদিন ১১ লক্ষ মানুষের খাবারের দায়িত্ব নিল আম্মা ক্যান্টিন।
বেলা ১২.৩৬:
মোহালির ডেপুটি কমিশনার জানালেন, পাঞ্জাবের ওই শহরে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৪০-এ দাঁড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে দু’জনের। সুস্থ হয়ে উঠেছেন পাঁচজন। এদিকে, হরিয়ানায় মোট আক্রান্ত ১৬৩ জন।
বেলা ১২.২০: ৩০
এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হোক লকডাউন। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আরজি দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের।
বেলা ১২.০০:
“আমাকে ২৪X৭ পাওয়া যাবে। আমাদের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একসঙ্গে চলতে হবে।” মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বললেন মোদি।
বেলা ১১.৫৮: করোনা মোকাবিলায় এগিয়ে এলেন সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের মা। পিএম-কেরার্সে এক লক্ষ টাকা অনুদান দিলেন তিনি।
বেলা ১১.৪৪:
সামাজিক দূরত্বকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে পাটনায় সবজি বাজারে উপচে পড়া ভিড়। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত বিহারে আক্রান্ত ৬০। মৃত্যু হয়েছে একজনের।
বেলা ১১.৩৪:
মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মুখে মাস্ক পরে বৈঠকে উপস্থিত মোদি।


বেলা ১১.১৭:
গুজরাটে ফের ৫৪ জনের শরীরে হদিশ করোনা ভাইরাসের। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪৩২-এ। জানাল গুজরাটের স্বাস্থ্যদপ্তর।
বেলা ১১.০০:
শনিবার রাজস্থানে নতুন করে ১৮ জনের শরীরে মিলল করোনার জীবাণু। খবর পিটিআই সূত্রে।
সকাল ১০.৪৯:
করোনা মোকাবিলায় মহারাষ্ট্রের থানের চারটি সীমান্ত সিল করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল। শুক্রবার জানানো হয়, অম্বরনাথ, কুলগাঁও-বদলাপুর, মুরবাদ ও শাহপুর সীমান্ত সিল করা হচ্ছে।
সকাল ১০.২৮:
ইন্দোরের মেডিক্যাল প্রধান তথা স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রবীণ জাদিয়া জানান, গতকাল সে রাজ্যে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ জন। মোটা আক্রান্তের সংখ্যা ২৪৯। এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪০ জনের।


সকাল ১০.০১:
কেরলে তৃতীয় করোনা পজিটিভের মৃত্যু। কান্নুরের এক হাসপাতালে প্রাণ হারালেন ৭১ বছরের বৃদ্ধ। অবস্থার অবনতি ঘটেছিল তাঁর। অকেজ হয়ে পড়ে কিডনি। জানাল সে রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর।
সকাল ৯.৪০:
দিল্লির চাঁদনি মহলে গত তিনদিনে মৃত্যু হয়েছে তিনজনের। দিল্লির যে ৩০টি এলাকা সিল করে দেওয়া হয়েছে তার জন্য রয়েছে চাঁদনি মহলও।
সকাল ৯.০০:
ঝাড়খণ্ডে নতুন করে আক্রান্ত তিনজন। যাঁদের মধ্যে একজন রাঁচির বাসিন্দা। সে রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ১৭। জানাল ঝাড়খণ্ড স্বাস্থ্যদপ্তর।
সকাল ৮.৩৫:
ভারতে আরও বাড়ল মৃতের সংখ্যা। এ দেশে প্রাণ হারিয়েছেন ২৩৯জন। আক্রান্ত ৭,৪৪৭। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা ১,০৩৫। সুস্থ হয়ে উঠেছে ৬৪৩ জন। জানিয়ে দিল স্বাস্থ্যমন্ত্রক।


সকাল৮.১৫:
আগ্রায় আরও তিনজনের শরীরে মিলল করোনার জীবাণু। সে শহরে আক্রান্তের সংখ্যা ৯২। যার মধ্যে অ্যাকটিভ কেস ৮১। জানালেন জেলাশাসক।

[আরও পড়ুন: ‘লকডাউন না মানলে করোনা মোকাবিলা অসম্ভব’, রাজ্যগুলিকে বার্তা কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর]

সকাল ৭.৫০: দেশের সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আজ সকাল ১১টায় বৈঠকে বসবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ১৪ এপ্রিলের পর কি লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানো হবে। মুখ্যমন্ত্রীদের আলোচনা করেই সে সিদ্ধান্তে পৌঁছনো হবে বলে মনে করা হচ্ছে।


সকাল ৭.০০: বাড়তে পারে লকডাউনের সময়সীমা। এই আশঙ্কায় সুরাটে পথে প্রতিবাদে নামে পরিযায়ী শ্রমিকরা। ইটবৃষ্টি চালায় তারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। ৬০ থেকে ৭০  জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান ডিসিপি সুরাট রাকেশ বারোট। 

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement