BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ১১৭, ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৯

Published by: Sayani Sen |    Posted: May 13, 2020 8:40 am|    Updated: May 13, 2020 11:05 pm

An Images

করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির হার বেড়েই চলেছে। দেশে আক্রান্তের সংখ্যা  ৭৪ হাজার ২৮১। মৃত ২৪১৫ জন। এই পরিস্থিতিতে চতুর্থ দফার লকডাউনের কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ঘোষণা করা হয়েছে ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজও। এদিকে, বাংলাতে বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। এখনও পর্যন্ত মৃত ১৩৫। আক্রান্তের সংখ্যা  ২,২৯০। বিশ্বে আক্রান্ত ৪৩ লক্ষেরও বেশি। মৃত ২ লক্ষ  ৯১ হাজারের বেশি। করোনা সংক্রান্ত সমস্ত আপডেট: 

রাত ১০.৫০: গোয়ায় নতুন করে ৭ জনের শরীরে মিলল করোনার নমুনা। সম্প্রতি এই ৭ জন মুম্বই থেকে ফিরেছেন।

রাত ১০.৪০: দিল্লির উত্তমনগর থানার ৬ জন কর্মীর শরীরে মিলল করোনার নমুনা। তাঁদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হল।

রাত ১০.৩৫: পাঞ্জাবে ফিরলেন দুবাইতে আটকে থাকা ১৭৮ জন ভারতীয়। এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানে ফিরলেন তাঁরা।

রাত ১০.২৫: রাজ্যে আটকে থাকা মানুষদের বাড়ি ফিরিয়ে দিতে ১৫ মে থেকে নয়া রুটে বাস চালু করার সিদ্ধান্ত হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রীর।

রাত ১০.০৫: ভারতীয় রেলের তরফ থেকে পরবর্তী বিশেষ ট্রেনের তালিকা প্রকাশ করা হল। এই তালিকা ২২ মে-র।

রাত ৯.৪৫: রাজ্যে নতুন করে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১১৭, মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ২,২৯০। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ৯।  হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন ৭০২ জন। রাজ্যে সুস্থতার হার বেড়ে হল ৩০.৬৬ শতাংশ। এই মুহূর্তে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ১,৩৮১ জন। তার মধ্যে কলকাতারই ৬৪৫ জন।

রাত ৯.৩৭: ভারতে আটকে থাকা জেড্ডার বাসিন্দাদের নিয়ে বিকেল পাঁচটায় রওনা দিল এয়ার ইন্ডিয়ার উড়ান। ১৫১ জন ব্যক্তি রয়েছেন এই বিমানে।

রাত ৯.২৫: সুপ্রিম কোর্টের বাকি বিচারপতি, আইনজীবী ও ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দেওয়া সকল কর্মীদের জন্য আলাদা পোশাক নির্ধারণ করবেন বলে জানান সুপ্রম কোর্টের প্রধান বিচারপতি  এস এ বোবদে।

রাত ৯.১০: সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে দিল্লি মেট্রোয় নয়া নজির।  পোস্টার  দিয়ে চিহ্নিত করা হল বসার স্থান।

রাত ৯.০০: করোনা মোকাবিলায় গুজরাটে একটি কমিটি তৈরির সিদ্ধান্ত মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানির। করোনা আবহে অর্থনৈতিক পরিস্থিতির হাল ধরবে এই কমিটি।

রাত ৮.৩৯: করোনা মোকাবিলার জন্য ৩হাজার একশো কোটি টাকা বরাদ্দ করল পি এম কেয়ার তহবিল। এর মধ্যে ২ হাজার কোটি টাকা ব্যবহার হবে ভেন্টিলেটর কেনার জন্য ১ হাজার কোটি টাকা ব্যবহার হবে পরিয়ায়ী শ্রমিকদের জন্য। একশো কোটি দেওয়া হবে ভ্য়াকসিন প্রস্তুতির কাজে।

রাত ৮.২৫: পরিযায়ী শ্রমিকদের সুবিদার্থে রাস্তা মরামতির কাজ শুরু করতে চান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতীন গড়কড়ি। এরফলে শ্রমিকদের কিছুটা বেকারত্ব দূর হতে পারে বলে আশা তাঁর। 

রাত ৮.১৫: মহারাষ্ট্রে নতুুন করে ১৪৯৫ জনের শরীরে মিলল করোনার নমুনা। আক্রান্ত হয়ে মৃত ৫৪। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ হাজার ৯২২।

রাত ৮.০০: বিদেশ থেকে ফেরত অন্তসত্ত্বা, ১০ বছরের কম বয়সী শিশু, ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধদের করোনা পরীক্ষার সময় আরটি-পিসিআর টেস্ট করা হবে। রিপোর্ট নেগেটিভ থাকলে তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হবে বলে জানায় কর্নাটক সরকার।

সন্ধে ৭.৪০: বাড়ি ফেরার দাবিতে গুজরাটের কচ্ছে জাতীয় সড়ক বন্ধ করে প্রতিবাদে নামলেন পরিযায়ী শ্রমিকরা। বাধা দিতে গেলে পুলিশের দিকে পাথর ছোঁড়ার অভিযোগ ওঠে।

সন্ধে ৭.৩০: জম্মুতে নতুন করে ৩৭ জনের শরীরে মিলল করোনার নমুনা। জম্মুতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা হল ৯৭১।

সন্ধে ৭.১০: দ্বিতীয় আর্থিক প্যাকেজের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ মোদি ও অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণকে ধন্যবাদ জানালেন সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা।

সন্ধে ৭.০০: অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণের আজকের ঘোষণা শিল্পপতিদের ক্ষমতায় ও তাদের মনোবল বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে। ব্যবসায়ীদের প্রতিযোগী মনোভাবকে বৃদ্ধি করবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

সন্ধে ৬.৫৫: করোনা আবহে সকলে একত্রিত হয়ে লড়াই করায় সকলকে ধন্যবাদ জানান লোকসবা স্পিকার ওম বিড়লা। এভাবেই সকলে জয়ের পথে এগিয়ে যাব বলেই আশা প্রকাশ করেন তিনি।

সন্ধে ৬.৪৫: হরিয়ানায় কংগ্রেসের প্রধান পরিযায়ী শ্রমিকদের রেলের টিকিটের জন্য মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টরের হাতে তুলে দিলেন ৪০ লক্ষ টাকার চেক।

সন্ধে ৬.৩০: বাড়ি ফিরতে চেয়ে পাঞ্জাবের উপ কমিশনারের বাড়ির সামনে ধর্না পরিযায়ী শ্রমিকদের। করোনা আবহে মালিকের থেকে টাকা না পাওয়ার ও অভিযোগ জানান তাঁরা।

সন্ধে ৬.২৩: রেল মন্ত্রকের তরফ থেকে ঘোষণা করা হল জীবানুনাশের জন্য ১৪ ও ১৫ মে বন্ধ রাখা হবে রেল ভবন।  

সন্ধে ৬.১১: করোনা কর হিসেবে ছত্তিশগড়ে বিদেশি মদের উপরে ১০ শতাংশ দাম বৃদ্ধি করল রাজ্য সরকার। দেশী মদের উপরেও ১০ টাকা বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নিল।

সন্ধে ৬.০৮: রাজ্যের প্রত্যেক জেলায় সেন্টিনেল সার্ভে হবে বলে সাংবাদিক বৈঠকে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

বিকেল ৫.৫৫: ‘মাটির সৃষ্টি’ নামে নতুন প্রকল্প আনল রাজ্য সরকার। ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর এবং পশ্চিম বর্ধমানের অনুর্বর জমিতে বিভিন্ন কাজ করা হবে ওই পরিকল্পনার আওতায়। জানালেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। 

বিকেল ৫.৫১: কেন্দ্রের প্যাকেজে রাজ্যগুলির জন্য অশ্বডিম্ব, নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে কেন্দ্রের আর্থিক প্যাকেজকে কটাক্ষ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

বিকেল ৫.০৬: ৩১ মার্চ পর্যন্ত টিডিএসে ২৫ শতাংশ কমানো হল, জানালেন নির্মলা সীতারমণ।

বিকেল ৫.০৬: কাজ শেষ করার জন্য সরকারি ঠিকাদারদের আরও ৬ মাস সময় দেওয়া হবে। 

বিকেল ৪.৫১: আগামী ৩ মাস ইপিএফের ২ শতাংশ দেবে কেন্দ্র, ঘোষণা কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণের। বেসরকারি কর্মীদের থেকে ১২ শতাংশের বদলে ১০ শতাংশ ইপিএফ কাটা হবে। কর্মজীবীদের হাতে টাকা রাখতে এই সিদ্ধান্ত। তবে সরকারি কর্মীদের থেকে ১২ শতাংশই কাটা হবে।

বিকেল ৪: আত্মনির্ভর ভারত গড়তেই কেন্দ্রের প্যাকেজ। দেশের বিকাশের লক্ষ্যে এই প্যাকেজ।২০ লক্ষ কোটি টাকা আর্থিক প্যাকেজের বিস্তারিত বর্ণনায় বললেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। তিনি আরও বলেন, “আত্মনির্ভর হওয়া মানে সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন নয়”, বললেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। ৩ দিন ধরে ১৫ দফায় আর্থিক প্যাকেজের ব্যাখ্যা করা হবে বলেও জানান তিনি। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে তিন লক্ষ কোটি টাকার ঋণ দেওয়া হবে। এক বছর স্থগিত সুদ। লাগবে না কোনও গ্যারান্টি ফি। তবে ১০০ কোটি টাকার লেনদেন হলে তবেই মিলবে ঋণ।

দুপুর ৩.২৮: দিল্লিতে তিনজন সিআরপিএফ জওয়ান করোনা আক্রান্ত। গোটা দেশে আক্রান্ত মোট ২৪৭ জন জওয়ান। 

দুপুর ৩.০৯: কলকাতার ফের এক বিএসএফ জওয়ানের শরীরে করোনা সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় মোট ১৩ জন বিএসএফ জওয়ানের শরীরে ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছেন দিল্লির মোট ১১ জন। কলকাতা এবং ত্রিপুরার ২ জন। 

দুপুর ২.৩৮: আগ্রা সেন্ট্রাল জেলে করোনা সংক্রমণ। মোট ১০ জনের শরীরে ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে। তাঁদের সংস্পর্শে আসা সকলকে পাঠানো হয়েছে কোয়ারেন্টাইনে।

দুপুর ২.১৪: চাল-গম লুকিয়ে রাখবেন না, রেশন ডিলারদের বার্তা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে নবান্নে জেলার পঞ্চায়েত দপ্তরগুলির সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে একথা বললেন তিনি।

দুপুর ১.৩৭: করোনা আক্রান্ত এসএসকেএম হাসপাতালের ইএনটি বিভাগের প্রধান চিকিৎসক। গত পরশু থেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। এসএসকেএমে ভরতি ছিলেন। মঙ্গলবার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে তাঁর। ওই চিকিৎসককে সল্টলেকের বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। এসএসকেএমের আরও দু’জন জুনিয়র চিকিৎসকও করোনা আক্রান্ত বলে খবর। বেশ কয়েকজনকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

দুপুর ১.২৬: কীভাবে অসহায়দের হাতে পৌঁছে দেওয়া যায় অত্যাবশ্যকীয় সামগ্রী, যোগী আদিত্যনাথকে লিখে পাঠালেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী।

দুপুর ১.২৪: দেশীয় সামগ্রীতে জোর। এবার থেকে আধাসেনা বাহিনীর ক্যান্টিনে বিক্রি হবে দেশীয় সামগ্রী, জানালেন অমিত শাহ। 

দুপুর ১:  লকডাউনে আটকে পড়া বাংলার একুশ জেলার প্রায় দেড় হাজার শ্রমিককে ঘরে ফেরাল রাজ্য সরকার। মঙ্গলবার রাত আড়াইটে নাগাদ বেঙ্গালুরু থেকে ওই বিপুল সংখ্যক পরিযায়ী শ্রমিককে নিয়ে পুরুলিয়া স্টেশনে পৌঁছয় শ্রমিক স্পেশ্যাল। এই ট্রেনটি নিউ জলপাইগুড়িতে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পরবর্তীকালে রেল রুট বদলে পুরুলিয়ায় নিয়ে আসে।

বেলা ১১.৫২: বেতন কমানোর অভিযোগে কারখানায় ব্যাপক বিক্ষোভ শ্রমিকদের। পাঞ্জাবের মালেরকোটলার ঘটনা। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বললেন জেলা পুলিশ সুপার।

বেলা ১১.১৮: মোদির ঘোষিত আর্থিক প্যাকেজ ঐতিহাসিক। অর্থনীতিকে আরও শক্তিশালী হতে সাহায্য করবে এই প্যাকেজ, মন্তব্য জেপি নাড্ডার।

সকাল ১০.২৪: বিকেল ৪টেয় সাংবাদিক বৈঠক করবেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। আর্থিক প্যাকেজ সম্পর্কে বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেওয়ার সম্ভাবনা।

সকাল ১০: মঙ্গলবারের হতাশা কাটিয়ে উঠল দালাল স্ট্রিট। বুধবার বাজার খুলতেই তড়তড়িয়ে উঠতে শুরু করে সূচক। সবুজের কোঠায় বাজার খুলে সেনসেক্স এক লাফে ৬৮০ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়ায় ৩২ হাজার ১৩০-এ। পাল্লা দিয়ে ৯ হাজার ৪৫০ পয়েন্ট ছাড়িয়ে যায় নিফটিও। 

সকাল ৯.০৯: দেশে ফের বাড়ল করোনা আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৩৫২৫ জন। দেশে মোট আক্রান্ত ৭৪ হাজার ২৮১ জন। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২৪১৫ জন। এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ২৪ হাজার ৩৮৬ জন।

সকাল ৮.৩০: বুধবার থেকে কলকাতা এবং বেশ কয়েকটি পার্শ্ববর্তী এলাকায় চলবে সরকারি বাস। কোনও ভাবেই কুড়ি জনের বেশি যাত্রী তোলা যাবে না তাতে। সকাল সাতটা থেকে রাত সাতটা পর্যন্ত বাস চলবে। যাত্রীদের মাস্ক থাকা বাধ্যতামূলক।

ভোর ৫.১২: বাড়ি ফেরার বন্দোবস্তের দাবিতে উত্তরপ্রদেশের মোরাদাবাদে বিক্ষোভ পরিযায়ী শ্রমিকদের। বিক্ষোভকারীরা প্রত্যেকেই বিহারের বাসিন্দা। সংশ্লিষ্ট সরকারের সঙ্গে কথা বলে ফেরানোর ব্যবস্থা করা হবে বলে আশ্বাস পুলিশের।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement