৮ ফাল্গুন  ১৪২৬  শুক্রবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৮ ফাল্গুন  ১৪২৬  শুক্রবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বুলন্দশহরে জনরোষে পড়ে পুলিশ আধিকারিক সুবোধ কুমার সিংয়ের মৃত্যুর দু’সপ্তাহ পর মোট পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। কিন্তু এখনও গ্রেপ্তার হল না সুবোধ খুনে মূল অভিযুক্ত যোগেশ রাজ। যে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের মধ্যে ৩ জনের সঙ্গে সুবোধ হত্যার কোনও যোগ নেই। এই তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে গোহত্যার অভিযোগে। এই গোহত্যাকে কেন্দ্র করেই গত ৩ ডিসেম্বর হিংসা ছড়ায় উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরে। আর সেই হিংসা দমন করতে গিয়েই প্রাণ হারাতে হয় পুলিশ আধিকারিক সুবোধ কুমার সিংকে।

[‘সাংবাদিকদের সামনে অন্তত কথা বলতাম’, মোদিকে তোপ মনমোহনের]

পুলিশ আধিকারিকের খুন, নাকি গোহত্যা। কোন অভিযোগের তদন্তে বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত, এই প্রশ্নের উত্তরে উত্তরপ্রদেশের ইন্সপেক্টর জেনারেল রাম কুমার আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন, তাদের কাছে গরু মারল কে সেটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, গোহত্যাকারীদের সন্ধান না পাওয়া গেলে পুলিশ খুনের তদন্তেও সমস্যা হবে। ইন্সপেক্টর জেনারেলের সেই নির্দেশমতোই কাজে নেমেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। মঙ্গলবার গোহত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হল ৩ জনকে। নাদিম, রইস এবং কালা নামের যে তিন যুবককে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে তাদের কারও নামই অবশ্য মূল এফআইআরে ছিল না। পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, এই তিনজনই সেই গোষ্ঠীর অংশ ছিল যারা গরুগুলিকে গুলি করেছে। এরপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে গরুগুলি কেটে মাংস বিলিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা ছিল তিন যুবকের। এদের কাছ থেকে একটি বন্দুক এবং ধারালো অস্ত্রও উদ্ধার হয়েছে। এর আগেও গোহত্যার অভিযোগে চারজনকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিল সুবোধ কুমার সিং হত্যার মূল অভিযুক্ত যোগেশ রাজ। কিন্তু এই চারজনের বিরুদ্ধে উপযুক্ত প্রমাণ জোগাড় করা সম্ভব হয়নি।

[বিতর্কিত মন্তব্যের জের, জোটসঙ্গীদের তোপের মুখে কমল নাথ]

অন্যদিকে, সোমবার আরও দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে গোষ্ঠী সংঘর্ষে উৎসাহ দেওয়ার অভিযোগে। এদের নাম শচীন সিং ওরফে কোবরা (২১) এবং জনি চৌধুরি (১৯)। এই নিয়ে গোষ্ঠী সংঘর্ষে উৎসাহ দেওয়ার অভিযোগে মোট ১৯ জন গ্রেপ্তার হলেন। যদিও, মৃত পুলিশ আধিকারিক সুবোধ কুমার সিংয়ের পরিবারের দাবি, এখনও মূল অভিযুক্ত যোগেশ রাজ এবং তাঁর সাঙ্গপাঙ্গদের কাউকেই গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং