BREAKING NEWS

০৫ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  রবিবার ২২ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

দল বিরোধী মন্তব্য এবং সমর্থকদের উদ্ধত আচরণ! কানহাইয়া কুমারকে সতর্ক করল তাঁরই দল

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: February 4, 2021 3:20 pm|    Updated: February 4, 2021 3:44 pm

CPI meet censures youth leader Kanhaiya Kumar | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার দলের অন্দরেই প্রশ্নের মুখে তরুণ সিপিআই নেতা কানহাইয়া কুমার। দল বিরোধী মন্তব্য এবং তাঁর সমর্থকদের উদ্ধত আচরণের অভিযোগে কানহাইয়াকে সতর্ক করল সিপিআইয়ের (CPI) কেন্দ্রীয় কমিটি। জেএনইউয়ের ছাত্র সংসদের প্রাক্তন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে রীতিমতো প্রস্তাবও পেশ করেছে তাঁর দল।

গত ২৮ থেকে ৩১ তারিখ পর্যন্ত হায়দরাবাদে সিপিআইয়ের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক ছিল। সূত্রের খবর, সেই বৈঠক কানহাইয়াকে নিয়ে রীতিমতো সরগরম হয়ে ওঠে। ডি রাজা-সহ (D Raja) সিপিআইয়ের কেন্দ্রীয় নেতাদের অনেকেই নাকি কানহাইয়ার আচরণে অসন্তুষ্ট। আসলে সম্প্রতি একাধিক বিতর্কিত কারণে শিরোনামে এসেছেন জেএনইউয়ের প্রাক্তন ছাত্রনেতা। একে তো সরাসরি দলের বিরুদ্ধে তিনি তোপ দেগেছেন। তার উপর তাঁর সমর্থকরা সম্প্রতি দলেরই এক নেতার বিরুদ্ধেও চড়াও হয়েছেন। বিহারের নেতাদের অভিযোগ, গত ১ ডিসেম্বর কানহাইয়া তাঁর দলবল নিয়ে দলীয় কার্যালয়ে ঢুকে নিজেরই দলের নেতা ইন্দু ভূষণকে মারধর করেছেন। স্রেফ দলের একটি বৈঠক পিছিয়ে যাওয়ার খবর জানানো হয়নি বলে, কানহাইয়ার সমর্থকরা দলের ওই পদাধিকারীকে মারধরের পাশাপাশি দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুরও করেছেন। যা নিয়ে প্রবল ক্ষুব্ধ সিপিআই নেতারা। যদিও, কানহাইয়া পরে দাবি করেছেন, সেদিনের ঘটনা তাঁর উপস্থিতিতে ঘটেনি। নিজের অনুগামীদের আচরণের জন্য ক্ষমাও চেয়ে নেন তিনি। এর আগেও জেএনইউয়ের প্রাক্তন ছাত্রনেতা বিতর্কে জড়িয়েছিলেন নিজের দল সিপিআইকে ‘কনফিউশন পার্টি অফ ইন্ডিয়া’ নামে কটাক্ষ করে। সেই বক্তব্যের জন্যও পরে তাঁকে ব্যাখ্যা দিতে হয়েছে।

[আরও পড়ুন: ‘ইতিহাসে গুরুত্ব পায়নি চৌরী-চৌরার ঘটনা’, শতবর্ষের অনুষ্ঠানে আক্ষেপ মোদির]

সূত্রের খবর, সদ্য শেষ হওয়া সিপিআই কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে কানহাইয়াকে (Kanhaiya Kumar) সতর্ক করে একটি প্রস্তাব পেশ করা হয়। কেন্দ্রীয় কমিটির মাত্র ৩ জন সদস্য ছাড়া বাকি সকলেই কানহাইয়ার বিরুদ্ধে আসা সেই প্রস্তাবকে সমর্থন করেন। ওই বৈঠকে দলের কেন্দ্রীয় কমিটির ১১০ জন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। তবে, কানহাইয়া নিজে উপস্থিত ছিলেন না অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে। যেভাবে কানহাইয়ার অনুপস্থিতিতে তাঁর বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাশ করানো হল, তা বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ, তরুণ বামপন্থী মুখ হিসেবে বেশ নজর কেড়েছেন কানহাইয়া। সদ্য শেষ হওয়া বিহার ভোটে বামেদের ভাল ফলের নেপথ্যেও তাঁর ভূমিকা রয়েছে বলে অনেকে মনে করছেন। মূলত তাঁর ভাবমূর্তির উপর ভর করেই যুবসমাজকে ফের আকৃষ্ট করতে চাইছে বামেরা। এ হেন নেতা কেরিয়ারের শুরুতেই রীতিমতো হোঁচট খেলেন।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে