BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দেশ জুড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় নজরদারি চালানোর ইঙ্গিত সেনাপ্রধান রাওয়াতের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 17, 2018 8:16 am|    Updated: January 17, 2018 8:16 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ইন্টারনেট তথা সোশ্যাল মিডিয়ায় নজরদারি চালানোর ইঙ্গিত দিলেন দেশের সেনাপ্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াত। তাঁর কথায়, বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনগুলি সোশ্যাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করে দেশের যুবাদের মগজধোলাই করছে, সন্ত্রাসে ইন্ধন দিচ্ছে। জঙ্গিদের এই বিপজ্জনক প্রবণতা রুখতে ইন্টারনেটে নজরদারি চালানো প্রয়োজনীয় হয়ে উঠেছে। তিনি এও জানান, এর ফলে অনেকেই হয়তো ব্যক্তিগত স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের অভিযোগ তুলবেন। জেনারেল রাওয়াত তাই এই সিদ্ধান্ত দেশবাসীর উপরেই ছেড়েছেন। বলছেন, ‘গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে এই নিয়মের বিরুদ্ধে হয়তো অনেকেই প্রতিবাদ করবেন। তাই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আপনারাই নিন। আপনারা সুরক্ষিত ও নিরাপদ পরিবেশ চান নাকি অবাধ স্বাধীনতা চান?’

[অনুপ্রবেশ বন্ধ না করলে পাকিস্তানকে চূড়ান্ত শিক্ষা দেব, হুঁশিয়ারি রাওয়াতের]

নয়াদিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ভবনে রাইসিনা ২০১৮ শীর্ষক এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বুধবার এ কথা বলেন চিফ অফ আর্মি স্টাফ জেনারেল রাওয়াত। শুধুমাত্র সম্মুখ সময়ই নয়, জঙ্গিদের মোকাবিলা করতে যে সোশ্যাল মিডিয়াতেও পর্যাপ্ত নজরদারি চালাতে হবে, সে কথা আগেও একাধিকবার বলেছেন রাওয়াত। কিন্তু এদিনের মতো চড়া সুর তাঁর গলায় আগে শোনা যায়নি বলেই মত প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞদের। বস্তুত, জম্মু ও কাশ্মীরে সোশ্যাল মিডিয়া ও হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে জঙ্গি নেতাদের একাংশ স্থানীয় যুব সম্প্রদায়কে ভারতের বিরুদ্ধে উসকাচ্ছে বলে আগেই রিপোর্ট দিয়েছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। নিজেদের আসল পরিচয় লুকিয়ে জঙ্গিরা নকল আইপি অ্যাড্রেস ব্যবহার করে স্থানীয় যুবাদের মগজধোলাই করছে বলে জানিয়েছেন গোয়েন্দারা। নিয়মিত কাশ্মীরি যুবক ও যুবতীদের মোবাইলে পাঠানো হচ্ছে বিকৃত ভিডিও, জেহাদি কর্মকাণ্ডের দলিল। সেনার বিরুদ্ধে তাঁদের লেলিয়ে দেওয়া হচ্ছে। জঙ্গিদের এই প্রবণতা রুখতেই আজ সোশ্যাল মিডিয়ায় অবাধ বিচরণের উপর রাশ টানার ইঙ্গিত দিলেন সেনাপ্রধান।

সন্ত্রাস প্রসঙ্গে আজ ভারতের কড়া অবস্থান আরও একবার স্পষ্ট করেছেন জেনারেল রাওয়াত। বলেন, ‘জঙ্গিরা এখন অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে সীমান্তের এপারে সন্ত্রাস ছড়াচ্ছে। জঙ্গি ও জঙ্গিদের মদতদাতাদের শিকড় উপরে ফেলতে সেনা সদা সচেষ্ট।’ পরোক্ষে নাম না করে পাকিস্তানকেও হুঁশিয়ারি দিয়ে রাখলেন রাওয়াত। বললেন, ‘জঙ্গিদের আর্থিক মদত দিচ্ছে যে রাষ্ট্র, তাদের বিরুদ্ধেও পদক্ষেপ করতে হবে।’ তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলছেন, ‘জঙ্গিদের হাতে পারমাণবিক বা রাসায়নিক অস্ত্র পৌঁছে গেলে গোটা বিশ্বে মানবতাবাদ বড়সড় চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি দাঁড়াবে। জঙ্গি নিধনের পাশাপাশি জঙ্গিবাদমূলক কাজকর্মের উপর নজরদারি চালাতে সেনার হাতে আরও আধুনিক অস্ত্রশস্ত্রের প্রয়োজন বলে জোরাল সওয়াল করেছেন তিনি। সেনার জন্য নতুন ও উন্নতমানের অ্যাসল্ট রাইফেল, ব্যালিস্টিক হেলমেট ও বুলতপ্রুফ জ্যাকেট আসায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন জেনারেল রাওয়াত।

[জওয়ানের হত্যার বদলা, সাত পাক সেনাকে নিকেশ করল ভারত]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement