২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

উত্তরপ্রদেশের পর এবার দিল্লি, শর্তসাপেক্ষে দুর্গাপুজোর অনুমতি দিল কেজরিওয়ালের সরকার

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: October 11, 2020 9:21 pm|    Updated: October 11, 2020 10:14 pm

An Images

ফাইল ছবি

নন্দিতা রায়, নয়াদিল্লি: উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথের প্রশাসনের মতো দুর্গাপুজো নিয়ে এবার সিদ্ধান্ত বদল করল অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সরকারও। শর্তসাপেক্ষে দেশের রাজধানীতে দুর্গাপুজো (Durga puja) করার অনুমতি দিল প্রশাসন। রবিবার সন্ধ্যায় এই বিষয়ে একটি নোটিস প্রকাশ করা হয় দিল্লি সরকারের তরফে। এজিকে পুজোর ১১ দিন আগে এই অনুমতি মেলায় খুশি হয়েছেন উদ্যোক্তারা।

Kejriwal govt permits Durga puja

রবিবার সন্ধ্যায় দিল্লি (Delhi) সরকারের তরফে প্রকাশিত ওই নোটিসে উল্লেখ করা হয়েছে, উৎসবের মরশুমে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে যে সরকারি স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পুজো কমিটিগুলিকে তা পুরোপুরি মেনে চলতে হবে। আগামী ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত পুজো মণ্ডপের ভিতরে বা বাইরে কোনও মেলা, খাবারের দোকান কিংবা প্রদর্শনীর আয়োজন করা যাবে না। বের করা যাবে না কোনও শোভাযাত্রাও। পুজোর জন্য প্রতিটি কমিটিকে জেলাশাসকের কাছে আগাম অনুমতি নেওয়ার জন্য আবেদন জানাতে হবে। তার ভিত্তিতে জেলাশাসকরা সংশ্লিষ্ট এলাকার প্রশাসনিক আধিকারিকদের দিয়ে এলাকা পরিদর্শনের পর প্রয়োজনীয় অনুমতি দেবেন।

[আরও পড়ুন: দিল্লি যাত্রা বিফলে সুদীপ রায়বর্মনদের, বিপ্লব দেবের বিরুদ্ধে অভিযোগ শুনলেনই না নাড্ডা ]

প্রতিটি পুজো মণ্ডপ কতটা এলাকাজুড়ে করা হচ্ছে তা খতিয়ে দেখে সেখানে কতজন মানুষের জমায়েত করা সম্ভব তা নির্দিষ্ট করে দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে গত ৩০ সেপ্টেম্বর যে নোটিস ইস্যু করা হয়েছিল তা মেনে চলা হবে। কোনও হলের মধ্যে অনুষ্ঠান হলে আসন সংখ্যার ৫০ শতাংশ ও খোলা জায়গায় হলে সর্বোচ্চ ২০০ জনকে একসঙ্গে জমায়েত করতে দেওয়া হবে।

ওই নোটিসে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, প্রতিটি পুজো কমিটিগুলিকে মণ্ডপে প্রবেশ ও প্রস্থানের জন্য আলাদা গেট করতে হবে। আর সেই গেট দিয়ে যাতে শুধুমাত্র মাস্ক ও ফেস কভার পরা দর্শনার্থীদেরই ভিতরে ঢুকতে দেওয়া তার দিকে কড়া নজর রাখতে হবে। এমনকী প্রতিটি গেটে ক্যামেরা লাগিয়ে ভিডিও তুলতে বলা হয়েছে। আর প্রতিদিন সেই ভিডিও ফুটেজ দেখিয়ে সংশ্লিষ্ট নোডাল অফিসারের সই নিয়ে জেলাশাসকের কাছে জমা করতে বলা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: বাঁচল অ্যারে বনভূমি, বিতর্কিত মেট্রো কারশেড সরানোর নির্দেশ মহারাষ্ট্র সরকারের]

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement