BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

এবার খাস রাজধানী দিল্লিতে গণপিটুনি, চোর সন্দেহে পিটিয়ে মারা হল ২৩ বছরের যুবককে

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 30, 2020 12:35 pm|    Updated: August 30, 2020 12:35 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ ফের সন্দেহের বশে রাজধানী দিল্লিতে (Delhi) গণপিটুনির (Mob Lynching) ঘটনা ঘটল। মোবাইল চোর সন্দেহে রাহুল নামে বছর তেইশের এক যুবককে গাছের সঙ্গে বেঁধে পিটিয়ে মেরে ফেলা হল। শনিবার অমানবিক এই ঘটনায় অভিযুক্ত চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে দিল্লি পুলিশ। তাদের নাম মুস্তাক আহমেদ, সিরাজ আহমেদ, আনিশ ও ইশতিহার।

[আরও পড়ুন: মোদির বায়োপিকের প্রযোজকের সঙ্গে ড্রাগস চক্রের যোগ! CBI তদন্ত চাইল মহারাষ্ট্র সরকার]

জানা গিয়েছে, ঘটনাটি ঘটেছিল গত শুক্রবার। এক প্রত্যক্ষদর্শীর কাছ থেকে ফোন পেয়ে দিল্লির লোহা মান্ডির নরৈনার ১০ ব্লকের এমসিডি পার্কে যায় পুলিশ। সেখান থেকেই ওই যুবকের নিষ্প্রাণ দেহ উদ্ধার করেন আধিকারিকরা। সেসময় যুবকের হাত-পা শক্ত দড়িতে বাঁধা ছিল। সারা শরীরে আঘাতের কালশিটে। অজ্ঞান অবস্থায় পড়েছিল ওই যুবক। ওই অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে গেলে, চিকিৎসকরা ওই যুবককে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ঘটনার প্রাথমিক তদন্তের পর দিল্লি পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, রাহুলের বিরুদ্ধে আগে থেকেই একটি চুরির অভিযোগ ছিল। ১৫–২০ দিন আগেই জেল থেকে ছাড়া পেয়েছিল সে। ঘটনার দিন, রাহুলের সাঙ্গপাঙ্গরা সিরাজের একটি নতুন মোবাইল ফোন চুরি করে বলে অভিযোগ। ওই পার্কের সামনে সিরাজের ট্রাক রাখা ছিল। সেই ট্রাকেই ফোনটি রেখেছিল সিরাজ। রাহুলের দলবল ফোনটি হাতিয়ে পালায়। কিন্তু, রাহুল ওই চার জনের হাতে ধরা পড়ে যায়। লোকচক্ষুর আড়ালে একটি পার্কে নিয়ে গিয়ে বড় গাছের সঙ্গে মোটা দড়ি দিয়ে আষ্টেপৃষ্টে বাঁধা হয় যুবককে। এরপর লোহার রড দিয়েই চলতে থাকে বেধড়ক মার।

[আরও পড়ুন: রাহুলের জন্য অপেক্ষা কংগ্রেসকে আরও অপ্রাসঙ্গিক করবে, কটাক্ষ শিব সেনার]

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাস্থল থেকে দড়ি ছাড়াও একটি সাদা মাফলার উদ্ধার করা হয়েছে। ওই দড়ি দিয়েই যুবককে বাঁধা হয়েছিল। এরপর ময়নাতদন্তের জন্য যুবকের মৃতদেহ হরি নগরের ডিডিইউ মর্গে পাঠায় পুলিশ। এদিকে, আধিকারিকদের দাবি, ধৃতরা জেরায় নিজেদের দোষ স্বীকার করেছে। যে লোহার রড, লাঠি, পাইপ দিয়ে রাহুলকে পিটিয়ে মারা হয়েছে, সেগুলিও পুলিশ বাজেয়াপ্তো করেছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement