BREAKING NEWS

১১ কার্তিক  ১৪২৭  বুধবার ২৮ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

কৃষি বিল নিয়ে প্রতিবাদের জের, রাজ্যসভা থেকে সাসপেন্ড ডেরেক, রিপুন-সহ ৮ সাংসদ

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: September 21, 2020 10:02 am|    Updated: September 21, 2020 10:08 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতীয় গণতন্ত্রের পীঠস্থান সংসদ। আর সেই স্থানেরই ‘মর্যাদা লঙ্ঘনের দোষে’ তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন-সহ আট জন সাংসদকে রাজ্যসভা থেকে এক সপ্তাহের জন্য সাসপেন্ড করলেন চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নায়ডু। এদিন অধিবেশনের শুরুতেই ডেপুটি চেয়ারম্যানের সঙ্গে অভব্যতা বিষয়টি উঠলে নায়ডু সাফ জানান, সাংসদের এমন ব্যবহার মেনে নেওয়া যায় না। তাঁদের আত্মসমীক্ষা করা উচিত।

[আরও পড়ুন: করোনা কালে নির্বাচনী প্রচারে শিকেয় দূরত্ববিধি, বিপাকে অসমের মন্ত্রী]

এদিন চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নায়ডু বলেন, “আইন মতেই ডেপুটি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব পেশ করা যাবে না। গতকাল ওয়েলে নেমে ডেপুটি চেয়ারম্যানকে রীতিমতো হুমকি দেওয়া হয়েছে। তাঁকে নিজের কাজ করতে বাধা দেওয়া হয়েছে। এটা রাজ্যসভার জন্য খুবই খারাপ দিন। আমি সাংসদের বলছি, আপনারা আত্মসমীক্ষা করুন।” এদিকে, কৃষি বিল নিয়ে প্রতিবাদের জেরে ডেরেক ছাড়াও সঞ্জয় সিং, রাজু সাতাব, কে কে রাগেশ, রিপুন বোরা, দোলা সেন, সৈয়দ নাজির হুসেন ও এলামারান করিমকে এক সপ্তাহের জন্য রাজ্যসভ থেকে সাসপেন্ড করেন চেয়ারম্যান ভেঙ্কইয়া নাইডু।

সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, গতকাল কৃষি বিল নিয়ে বিতর্কের জেরে কংগ্রেস সাংসদ রিপুন বোরা, তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন, আপ সাংসদ সঞ্জয় সিং ও ডিএমকে সাংসদ ত্রিরুচি শিবা হরিবংশের পোডিয়ামের মাইক কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। তাঁর বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকেন। এমনকী, তাঁরা রুলবুক, কাগজপত্রও ছিঁড়ে দেন বলে অভিযোগ। যদিও বিরোধীদের দাবি, রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যানকে রুল বুক দেখানোর চেষ্টা করেন ডেরেক। তাঁকে সরিয়ে দেন রাজ্যসভার মার্শাল। সেসময় ১০ মিনিটের জন্য অধিবেশন মুলতুবি করে দেওয়া হয়। পরে অধিবেশন শুরু হলে ধ্বনি ভোটে বিল পাশ হয়ে যায়। এরপর কংগ্রেস, তৃণমূল, বাম ও ডিএমকে সাংসদরা রাজ্যসভার কক্ষে ধরনায় বসেন। তবে লোকসভা অধিবেশন শুরুর নির্ধারিত সময়ের আগেই তাঁরা চলে যান। এরপরই ডেপুটি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব (No Confidence Motion) আনেন সাংসদরা। যদিও ডেরেক সাফ জানিয়েছেন, তিনি রুল বুক ছেঁড়ার মতো কাজ করেননি। তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: করোনা LIVE UPDATE: প্রায় ৬ মাস পর খুলছে স্কুল, দূরত্ববিধি বজায় রেখে চলবে ক্লাস]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement