BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পাঁচ ঘণ্টার অপেক্ষা, রাহুলের দেখা পেল না সাত বছরের শিশু

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: April 20, 2019 10:13 am|    Updated: April 20, 2019 10:13 am

An Images

সংবাদ প্রতিদি ডিজিটাল ডেস্ক: বুধবার কেরলের কান্নুর জেলায় একটি অডিটোরিয়ামে দলীয় কর্মীদের এক সভায় ভাষণ দেন রাহুল গান্ধী। রাহুলের সঙ্গে এক ঝলক দেখা করার জন্য ওই অডিটোরিয়ামের সামনে দীর্ঘ পাঁচ ঘণ্টা ধরে দাঁড়িয়েছিল সাত বছরের এক বালক। কিন্তু প্রতীক্ষাই সার। শেষ পর্যন্ত হতাশ হয়েই বাড়ি ফিরতে হয় রাহুলের ওই খুদে ভক্তকে। নিরাপত্তার কারণেই ওই শিশুকে রাহুলের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ দেওয়া হয়নি বলে জানা গিয়েছে। ঘটনাটি জানার পর ওয়ানাড়ে রাহুলের নতুন টুইটার অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ওই খুদে ভক্তের অপেক্ষার কথা স্বীকার করা হয়েছে। জানানো হয়েছে, রাহুলের সঙ্গে দেখা করার ও কথা বলার যে ইচ্ছা ওই শিশু প্রকাশ করেছে তা অবশ্যই পূরণ হবে।

[ আরও পড়ুন: লাইনচ্যুত হাওড়া-নিউ দিল্লি পূর্বা এক্সপ্রেসের ১২টি কামরা, আহত অনেকে]

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে এদিন জানানো হয়েছে, খুদে ভক্তের মাকে ফোন করেছেন রাহুল। টেলিফোনে রাহুল ওই শিশুর মাকে বলেন, “হাই আমি রাহুল গান্ধী। আমি কি আপনার ছেলের সঙ্গে কথা বলতে পারি?” উত্তরে ওই মহিলা তাঁর ছেলেকে বলেন, “বেটা তোমার প্রিয় নেতা রাহুলজি ফোন করেছেন। তাঁর সঙ্গে কথা বলো।” বুধবার নন্দন নামে ওই শিশু রাহুলকে এক ঝলক দেখার জন্য তার মা–বাবার সঙ্গে কান্নুরে এসেছিল। তার পরনে ছিল রাহুলের ছবি দেওয়া একটি জামা। তার প্রিয় নেতা রাহুলকে দেওয়ার জন্য একটি চিঠিও লিখে এনেছিল সে। যদিও শেষ পর্যন্ত ওই দিন রাহুলের দেখা পায়নি নন্দন। ঘটনাটি ফেসবুকে পোস্ট করেন নন্দনের বাবা। সঙ্গে সঙ্গেই ওই পোস্টটি ভাইরাল হয়। স্থানীয় এক কংগ্রেস নেতা সঙ্গে সঙ্গেই বিষয়টি রাহুলকে জানান। তার পরই রাহুল নন্দনের বাড়িতে ফোন করেন। কংগ্রেসের সোশ্যাল মিডিয়া বিভাগের প্রধান দিব্যা স্পন্দনা বৃহস্পতিবার পুরো বিষয়টি জানিয়ে টুইট করেন। কংগ্রেস সভাপতির ফোনের বিষয়টিকে দিব্যা ‘রাহুলের মিষ্টি ব্যবহার’ বলে উল্লেখ করেন।

আমেঠির সঙ্গেই রাহুল এবার কেরলের ওয়ানাড় কেন্দ্র থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। দলের প্রচারে বুধবার তিনদিনের সফরে কেরলে আসেন রাহুল। ওয়ানাড় থেকে লড়াই করার বিষয়ে রাহুল বলেছেন, বিজেপি ও রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ দেশের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি ধ্বংস করছে। সে কারণেই তিনি উত্তরের একটি কেন্দ্রের পাশাপাশি দক্ষিণের একটি কেন্দ্র থেকে লড়াই করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। যদিও বিজেপির দাবি, আমেঠিতে পরাজয় সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে গিয়েছেন রাহুল। সে কারণেই তিনি ওয়ানাড়ের মতো একটি নিরাপদ কেন্দ্রে সরে এসেছেন। উল্লেখ্য, তৃতীয় দফায় ২৩ এপ্রিল কেরলের ২০টি লোকসভা কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হবে।

[ আরও পড়ুন: নির্বাচনে শামিল মানসিক রোগীরাও, দেশে প্রথম হাসপাতালেই ভোটকেন্দ্র]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement