BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মহারাষ্ট্রের সরকার গঠনে মহানাটকীয় মোড়, ফের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ দেবেন্দ্র ফড়ণবিসের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: November 23, 2019 8:56 am|    Updated: November 23, 2019 9:33 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শনিবার সাতসকালে চমকে উঠল গোটা দেশ। আচমকা মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী পদে ফের শপথ নিতে দেখা গেল দেবেন্দ্র ফড়ণবিসকে। আর সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়ে উপমুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পওয়ারের ভাইপো অজিত পওয়ার। শনিবার সকালে রাজভবনে তাঁদের শপথ বাক্য পাঠ করান রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারি। কিছুক্ষণ পরে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী পদে ফের শপথ নেওয়ার জন্য টুইট করে দেবেন্দ্র ফড়ণবিসকে শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আজ সকালে প্রথমে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয় রাষ্ট্রপতি শাসনও। রাইসিনা হিলসের বাড়ি থেকে এই সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। তারপরই সাজো সাজো রব পড়ে যায় মহারাষ্ট্রের রাজভবনে। শুরু হয় নতুন মুখ্যমন্ত্রীর শপথগ্রহণের প্রস্তুতি।

[আরও পড়ুন: ‘পাকিস্তানকে ধ্বংস করতেই প্রতিরক্ষা কমিটিতে জায়গা পেয়েছেন প্রজ্ঞা’, মন্তব্য কংগ্রেস নেতার]

শপথ গ্রহণের পর নরেন্দ্র মোদি টুইট করেন, ‘মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী ও উপমুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়ার জন্য দেবেন্দ্র ফড়ণবিসজি ও অজিত পওয়ারজিকে অভিনন্দন জানাই। মহারাষ্ট্রের উজ্বল ভবিষ্যতের জন্য ওনারা অক্লান্ত পরিশ্রম করবেন বলেই আমি বিশ্বাস করি।’কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ টুইট করেন, ‘শ্রী দেবেন্দ্র ফড়ণবিসজি ও অজিত পওয়ারজিকে মুখ্যমন্ত্রী ও উপমুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়ার জন্য আন্তরিক অভিনন্দন জানাই। আমার বিশ্বাস ওনারা মহারাষ্ট্রের বিকাশ ও কল্যাণের প্রতি নজর রেখে রাজ্যকে আরও সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবেন।’

দেশের শুক্রবার রাত পর্যন্ত এটা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল যে কংগ্রেস, এনসিপি ও শিব সেনার মহারাষ্ট্র ডেভেলপমেন্ট ফ্রন্টই সরকার গড়ছে। আর মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন সেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে। শুক্রবার সারাদিন মহারাষ্ট্রের সরকার গঠন নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক করে তিন দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। সন্ধেয় রীতিমতো সাংবাদিক বৈঠক করে এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পওয়ার ঘোষণা করেন, ‘সরকার গঠনের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়েছে। সর্বসম্মতিক্রমে উদ্ধব ঠাকরে-কে পাঁচ বছরের জন্য মুখ্যমন্ত্রী করার বিষয়ে একমত হয়েছে সবাই। শনিবার দুপুরে এই বিষয়ে তিনটি দলের তরফেই সাংবাদিক বৈঠক করে জোট বাঁধার কথা ঘোষণা করা হবে।’ শরদ পওয়ারের মতোই শিব সেনার রাজ্যসভা সাংসদ সঞ্জয় রাউতও উদ্ধব ঠাকরে মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছে বলে জানিয়ে দেন। এরপরই মহারাষ্ট্র জুড়ে উল্লাসে মেতে ওঠেন শিব সৈনিকরা। প্রয়োজনীয় জনমত না থাকা সত্ত্বেও সরকারে থাকতে পেরে স্বস্তি পায় কংগ্রেস এবং এনসিপি।

তবে তখনও পর্যন্ত কেউ ঘুণাক্ষরেও টের পাননি যে সকাল হতেই বদলে যাবে সম্পূর্ণ ছবি। তিন দলের মহারাষ্ট্র ডেভেলপমেন্ট ফ্রন্ট আত্মপ্রকাশ করার আগেই ভেঙে যাবে উদ্ধব ঠাকরের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন। আর তাঁর জায়গায় ফের মুখ্যমন্ত্রীর মসনদে বসবেন বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফড়ণবিস। প্রথমবার সরকার গঠনের ডাক পাওয়ার পর যে বিজেপি দায়িত্ব নিতে চায়নি। তারাই হঠাৎ শিব সেনার সঙ্গে কংগ্রেস ও এনসিপির জোট চূড়ান্ত হওয়ার দিনে ফের নাটকীয়ভাবে সরকার গঠন করল।

[আরও পড়ুন: ইতিহাস গড়ে দেশের সর্বকনিষ্ঠ বিচারপতি রাজস্থানের মায়াঙ্ক]

যদিও এটা মহারাষ্ট্রের মানুষের প্রয়োজনেই করতে হয়েছে বলে জানালেন এনসিপি নেতা অজিত পাওয়ার। উপমুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়ার পর তিনি বলেন, ‘ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই কোনও দল সরকার গঠন করতে পারেনি। এর ফলে কৃষকদের সমস্যা-সহ একাধিক সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছিলেন মহারাষ্ট্রের মানুষ। বাধ্য হয়েই স্থায়ী সরকার গঠন করার সিদ্ধান্ত নিলাম আমরা।’

ফের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়া দেবেন্দ্র ফড়ণবিস বলেন, ‘এনসিপির অজিত পওয়ারজির প্রতি আমি আমার আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে চাই। মহারাষ্ট্রকে একটি মজবুত সরকার দেওয়ার লক্ষ্যেই বিজেপির সঙ্গে হাত মেলানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। আরও অনেক নেতা আমাদের সঙ্গে আসবেন। ফলে আমরাই সরকার গঠন করব।’

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement