BREAKING NEWS

২৮ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

ফের বাজিমাত দোভালের, ২২ কুখ্যাত জঙ্গিকে ভারতের হতে তুলে দিল মায়ানমার

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: May 16, 2020 9:09 am|    Updated: May 16, 2020 9:09 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলিতে সন্ত্রাস দমনে বড়সড় কূটনৈতিক সাফল্য পেল ভারত। জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালের বিচক্ষণতায় ২২ জঙ্গির একটি দলকে ভারতের হাতে তুলে দিল মায়ানমার। এই জঙ্গিরা উত্তর-পূর্ব ভারতের বিভিন্ন সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের সদস্য। অসম, মণিপুর ও নাগাল্যান্ডে দীর্ঘদিন ধরে এদের খোঁজ চলছে। বিশেষ বিমানে শুক্রবার তাদের দেশে নিয়ে আসা হয়।

[আরও পড়ুন: বিপদের দিনে ‘বন্ধু’ মোদির পাশে ট্রাম্প, ভারতকে বহু ভেন্টিলেটর দিচ্ছে আমেরিকা]

এই প্রথম অনুরোধ মেনে উত্তর-পূর্ব ভারতের জঙ্গি গোষ্ঠীগুলির নেতা, কর্মীদের নয়াদিল্লির হাতে তুলে দিল মায়ানমার। এই সাফল্যের নেপথ্যে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল রয়েছেন বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহলে। এটা ভারত,মায়ানমারের মধ্যে ক্রমবর্ধমান গোয়েন্দা তথ্য আদানপ্রদান ও প্রতিরক্ষা সহযোগিতার ফল হিসাবেও দেখা হচ্ছে। শুক্রবার মায়ানমার থেকে ওই সন্ত্রাসবাদীদের নিয়ে আসা বিমানটি প্রথমে নামে ইম্ফল, পরে গুয়াহাটিতে নামে। দুটি রাজ্যে স্থানীয় পুলিশের কাছে হস্তান্তরিত করা হয় ওই সন্ত্রাসবাদীদের। মায়ানমার যাদের প্রত্যর্পণ করল, তাদের মধ্যে আছে এমন ১২ জন যারা ইউএনএলএফ, প্রিপাক (প্রো), পিএলএ-র সদস্য, বাকি ১০ জন অসমের জঙ্গি গোষ্ঠী এনডিএফবি (সংবিজিত) ও কেএলও-র। দেশের নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিশেষজ্ঞ মহলে এমন আলোচনাও হচ্ছে যে, সাম্প্রতিক কয়েকটি বছরে দোভালের নেতৃত্বে ভারত, মায়ানমারের মধ্যে সামরিক বোঝাপড়া উন্নত হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০০৩ থেকে ২০০৪ পর্যন্ত ভারত বিরোধী জঙ্গিগোষ্ঠীগুলির বিরুদ্ধে ‘অপারেশন অল ক্লিয়ার’ চালায় ভুটানের রাজকীয় সেনাবাহিনী। খতম করা হয় উলফ ,এনডিএফবি, কেএলও’র বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতাকে। অনেককেই পক্রয় করে ভারতের হাতে তুলে দেওয়া হয়। তারপর থেকেই মায়ানমারের গভীর জঙ্গলে ঘাঁটি গেড়েছে জঙ্গি সংগঠনগুলি। কিন্তু এবার নাইপিদাওয়ের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক মজবুত করে জঙ্গিদের সে দেশ থেকেও উৎখাত করতে প্রস্তুত নয়াদিল্লি।

[আরও পড়ুন: অবৈধভাবে নাম ও ছবি ব্যবহার! শচীনের কাছে ক্ষমা চাইল অস্ট্রেলিয়ার সংস্থা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement