১১ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বিতর্কের জন্য কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও রাহুল গান্ধীকে আহ্বান জানিয়েছেন। এবার অমিত শাহকে পালটা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বিতর্কে বসার জন্য আহ্বান দিলেন আসাদউদ্দিন ওয়েইসি। অল ইন্ডিয়া মজলিস-এ-ইত্তেহাদুল মুসলিমিনের (এআইএমআইএম) প্রধান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীকে বিতর্কের জন্য আহ্বান জানালেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি। তিনি বলেছেন, ‘ওঁদের সঙ্গে বিতর্কে কেন, আমার সঙ্গে বিতর্কে বসুন। দাড়িওয়ালা লোকের সঙ্গে বিতর্কে বসলে চ্যানেলের টিআরপিও বাড়বে।’

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার তেলেঙ্গানার করিমনগরের একটি জনসভা থেকে অমিত শাহকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন ওয়েইসি। হয়দরাবাদের সাংসদের প্রশ্ন, ‘অন্যদের সঙ্গে কেন, আমার সঙ্গে বিতর্কে বসুন। আমি সিএএ, এনআরসি এবং এনআরসি নিয়ে বিতর্কে বসতে পারি।’ এরপরই তাঁর মন্তব্য, ‘দাড়িওয়ালা মানুষের সঙ্গে বিতর্কে বসলে চ্যানেলের টিআরপিও বাড়বে। এখন তো এটাই ভাল খাচ্ছে।’ প্রসঙ্গত, গতকাল লখনউয়ের সভা থেকে একাধারে রাহুল-মমতা-অখিলেশ-মায়াবতীকে কটাক্ষ করে অমিত শাহ বলেন, “প্রতিদিন তৃণমূল, কংগ্রেস, সমাজবাদী পার্টি, বহুজন সমাজ পার্টি মিথ্যে কথা বলছে। মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। যেদিন এই আইন পাশ হয়েছে, সেদিন থেকে খালি ‘কা কা কা কা’ করছে। আমি সবাইকে আশ্বস্ত করছি, নতুন আইনে কারও নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়া হবে না। এটা শুধু নিপীড়িত শরণার্থীদের সম্মান জানানোর আইন।”

[আরও পড়ুন: ‘CAA-NRC করে দেখান’, অমিত শাহকে চ্যালেঞ্জ প্রশান্ত কিশোরের]

এদিন, বিরোধীদের কটাক্ষ করতে গিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, “ওঁরা দেশের কোনও কাজ হলেই বিরোধিতা করে। এমনকী, সেনা যখন সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করে, এয়ারস্ট্রাইক করে তখনও মমতা-মায়াবতী-রাহুল-অখিলেশরা বিরোধিতা করেছে।” উল্লেখ্য, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাশ হওয়ার পর থেকেই দেশজুড়ে বিক্ষোভ চলছে। অনেক জায়গায় পথে নেমেছেন সাধারণ নাগরিকদের একাংশ। সংখ্যালঘু মুসলিমরা তো বটেই, অন্যান্য ধর্মের মানুষও তাঁদের সাথে পা মিলিয়েছেন। যদিও গেরুয়া শিবিরের দাবি, এই বিক্ষোভ স্বতঃস্ফূর্ত নয়, এর পিছনে বিরোধীদের উসকানি এবং ইন্ধন রয়েছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং