BREAKING NEWS

৮ মাঘ  ১৪২৮  শনিবার ২২ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

OMG! বয়ফ্রেন্ড ছাড়া ভ্যালেন্টাইনস ডে-তে কলেজে প্রবেশ নিষেধ! নোটিস ঘিরে চাঞ্চল্য

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: January 29, 2021 7:31 pm|    Updated: January 29, 2021 7:59 pm

Fake college notice in agra college asks girls to get a boyfriend before Valelentine’s Day | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি ভ্যালেন্টাইনস ডে (Valentines Day)। তার আগেই জোগাড় করতে হবে বয়ফ্রেন্ড। নাহলে কলেজে ঢোকা যাবে না। সম্প্রতি আগ্রার (Agra) সেন্ট জনস কলেজে (St. John’s College) ছাত্রীদের উদ্দেশে এমনই নোটিস দেওয়া হয়েছে! আর সেকথা প্রকাশ্যে আসতেই রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়ায় পড়ুয়াদের মনে। যদিও বিতর্কে জল ঢেলে কলেজ কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দিয়েছে, ওই নোটিসটি ভুয়ো।

জানা গিয়েছে, সম্প্রতি গোটা কলেজে আলোচনায় উঠে আসে একটি নোটিস। যেখানে আশিস শর্মা নামে কলেজের অ্যাকাডেমিক অ্যাফেয়ার্সের অ্যাসোসিয়েট ডিনের স্বাক্ষরও ছিল। তাতে বলা হয়েছিল, প্রত্যেক ছাত্রীকেই ১৪ ফেব্রুয়ারি ভ্যালেন্টাইনস ডে-র আগে একজন বয়ফ্রেন্ড জোগাড় করতে হবে। তাঁদের নিরাপত্তার জন্যই এই বন্দোবস্ত। যাঁরা বয়ফ্রেন্ড জোগাড় করতে পারবেন না, তাঁদের ওই কলেজে ঢুকতে দেওয়া হবে না। প্রত্যেক ছাত্রীকেই সপ্তাহখানেক আগে বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে তোলা ছবি প্রমাণ হিসেবেও দেখাতে হবে।

[আরও পড়ুন: OMG! স্ত্রীর ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে প্রেমিকার ট্রাফিক ফাইন মেটালেন যুবক, তারপর… ?]

সোশ্যাল মিডিয়াতেও রীতিমতো ভাইরাল হয়ে যায় নোটিসটি। যোগী আদিত্যনাথের (Yogi Adityanath) রাজ্যেরই একটি কলেজে কীভাবে এই ধরনের নোটিস জারি হয়, সেই প্রশ্নই তোলেন অনেকে। এই বিতর্কের মাঝেই অবশ্য কলেজের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এই নোটিসটি ভুয়ো। এ ধরনের কোনও নিয়ম জারি করা হয়নি। এমনকী স্বাক্ষরের জায়গায় যে ব্যক্তির নাম রয়েছে, সেই নামে কলেজে কোনও অধ্যাপক নেই। এই প্রসঙ্গে সেন্ট জনস কলেজের প্রিন্সিপাল জানান, এই ধরনের কোনও নোটিস কলেজ কর্তৃপক্ষ জারি করেনি। এটি ভুয়ো। ঘটনার তদন্তেরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তাঁর কথায়, “কলেজ কর্তৃপক্ষের নাম করে কয়েকজন কলেজে ভুয়ো বার্তা ছড়াচ্ছে। এই বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে এসেছে। এই ধরনের ঘটনার সঙ্গে যারা যুক্ত তাদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে। এটা কলেজের সংস্কৃতির বিরুদ্ধ। কলেজের ভাবমূর্তি নষ্ট করতেই এই কাজ করা হয়েছে। পড়ুয়াদের এই ধরনের বার্তায় পাত্তা দিতে বারণও করা হয়েছে। “

[আরও পড়ুন: অভাবের সংসার, পড়াশোনার খরচ জোগাতে ১০০ দিনের কাজ করছেন এই ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে