BREAKING NEWS

১১ কার্তিক  ১৪২৭  বুধবার ২৮ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

কৃষি আইনের প্রতিবাদে উত্তাল গোটা দেশ, বিক্ষোভের আঁচ দিল্লির ইন্ডিয়া গেটেও

Published by: Paramita Paul |    Posted: September 28, 2020 12:54 pm|    Updated: September 28, 2020 1:42 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কৃষক বিক্ষোভের (Farmers Protest) আঁচে পুড়ছে দিল্লি-সহ গোটা দেশ। সংশোধিত কৃষি আইনের বিরুদ্ধে পথে নেমেছেন চাষিরা। সোমবার সকালেই সেই বিক্ষোভের আঁচ এসে পৌঁছয় দিল্লিতে (Delhi)। ইন্ডিয়া গেটের সামনে ট্রাক্টর (Tractor) জ্বালিয়ে দেন বিক্ষোভকারীরা। যদিও পুলিশি হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি দ্রুত নিয়ন্ত্রণ আসে। শুধু দিল্লি নয়, উত্তর ভারতের পাঞ্জাব, হরিয়াণাতে চলছে আন্দোলনে। উত্তাল দক্ষিণ ভারতের কর্ণাটকও।

২০ তারিখ বিল পাশের পর গত রবিবার রাতেই তিনটি কৃষি বিলে সম্মতি দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। ফলে আইনে পরিণত হয়েছে বিল তিনটি। এরপরই বিক্ষোভে উত্তাল হল দিল্লি। জানা গিয়েছে, এ দিন সকাল সাড়ে ৭টা নাদাগ ইন্ডিয়া গেটের সামনে ১৫-২০ জন কৃষকের একটি দল জড়ো হয়। সেখানে একটি ট্রাক্টরে আগুন লাগিয়ে দেন তাঁরা। সঙ্গে কংগ্রেসের সমর্থনে বেশ কিছুক্ষণ প্রতিবাদ চলে। এই ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

[আরও পড়ুন ; কৃষি বিল নিয়ে ভোটাভুটি হল না কেন? বিরোধীদের দুষে ব্যাখা দিলেন রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান]

সূত্রের খবর, কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী পাঞ্জাবে কৃষক আন্দোলনে যোগ দেবেন। কারণ, এই বিক্ষোভকে হাতিয়ার করে জাতীয় রাজনীতিতে নিজেদের  ধার আরও বাড়িয়ে তুলতে মরিয়া কংগ্রেস। এর পাশাপাশি হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশেও চলছে আন্দোলন। সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, অমৃতসর-দিল্লি রেললাইনের উপর অবস্থান বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন চাষিরা। পাঞ্জাবে আন্দোলনে নেমেছে এনডিএ-র প্রাক্তন জোট শরিক অকালি দলও। তাঁরা বিরোধীদের একজোট হয়ে প্রতিবাদ দেখানোর ডাক দিয়েছেন।

তবে শুধুমাত্র উত্তর ভারত নয়, বিক্ষোভে উত্তাল দক্ষিণ ভারতের কর্ণাটকও। তবে সেই আন্দোলনে ইন্ধন জুগিয়েছে রাজ্যের বিধানসভায় পাশ হওয়া দু’টো বিল। ‘কৃষি পণ্য বিপণন (নিয়ন্ত্রণ ও উন্নয়ন) সংশোধনী বিল’ ও ‘কর্ণাটক ভূমি সংস্কার সংশোধনী বিল’ প্রত্যাহারে দাবিতে সোমবার বনধ ডাকা হয়েছে। চলছে বিক্ষোভ। রাস্তায় যানবাহন অমিল। খোলেনি দোকানপাট। সবমিলিয়ে, কৃষি আন্দোলন যে মোদি সরকারের গলার কাঁটা হতে চলছে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।  

[আরও পড়ুন ; চাষের জন্য নেওয়া ঋণ শোধ করার পরেও এজেন্টদের হেনস্তা, অপমানে আত্মঘাতী চাষি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement