BREAKING NEWS

১৩ কার্তিক  ১৪২৭  শুক্রবার ৩০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

দলিত যুবকের সঙ্গে প্রেম, ‘শাস্তি’ দিতে মেয়ের মাথা থেঁতলে দিল বাবা

Published by: Paramita Paul |    Posted: October 17, 2020 2:49 pm|    Updated: October 17, 2020 2:49 pm

An Images

প্রতীকী ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১৮ বছরের মেয়েটির ‘অপরাধ’ ছিল দলিত ছেলের সঙ্গে প্রণয়ের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়া। আর তাঁকে ‘এত বড় অপরাধের’ কঠিন শাস্তি দিল পরিবার। বাবা ও খুড়তুতো দাদারা মিলে পিষে মারল মেয়েটিকে। কর্ণাটকের রামনগর জেলার বেটাথিল্লি গ্রামের ঘটনা। তরুণীকে খুনের অভিযোগে বাবা ও খুড়তুতো দুই ভাইকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অভিযুক্তদের মধ্যে একজন আবার নাবালক।

১৮ বছরের মেয়েটি বিকমের ছাত্রী ছিলেন। ২০ বছরের এক দলিত যুবকের সঙ্গে তাঁর প্রণয়ের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। মেয়েটির পরিবার সেই সম্পর্কে মেনে নেয়নি। সম্পর্ক ভেঙে দেওযার জন্য মেয়েটিকে বুঝিয়েও কোনও লাভ হয়নি। শেষমেশ নিজের হাতেই মেয়েকে খুন করল বাবা।

[আরও পড়ুন : বিস্কুট, আঙুর, কেক, ক্যাপসিকাম! খাবারের মেনু নয়, এসব বিহারের বিভিন্ন দলের প্রতীক]

খুনের বিষয়টা ধামাচাপা দিতে ছক কষেছিল পরিবার। ৯ অক্টোবর পুলিশে কাছে তরুণী নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার অভিযোগ করে পরিবার। পুলিশকে জানায়, তাঁর প্রেমিকই তরুণীকে খুন করেছে। ১০ অক্টোবর একটি নিকাশি নর্দমায় মেয়েটির দেহ উদ্ধার হয়। পুলিশ জানায়, বোল্ডার দিয়ে মাথা থেঁতলে খুন করা হয়েছে। প্রমাণ লোপাটের জন্য দেহটি ওখানে ফেলে রাখা হয়েছিল। এরপর মেয়েটির প্রেমিককে গ্রেপ্তার করে জেরা শুরু করে পুলিশ। কিন্তু বয়ানে সন্দেহজনক কিছু মেলেনি। অবশেষে তরুণীর বাবাকে জেরা শুরু করে পুলিশ। জেরায় খুনের কথা কবুল করে সে। জানায় মেয়েটির খুড়তুতো দুই ভাইও তাঁকে এই কাজে সাহায্য করেছে। 

পুলিশ সূত্রে খবর, বেটাথিল্লি গ্রামের শেষপ্রান্তে ছোট জঙ্গল রয়েছে। সেখানেই মেয়েটিকে নিয়ে গিয়ে বোল্ডার দিয়ে মাথা থেঁতলে দেয় বাবা ও দুই ভাই। পরে গোটা দেহটিই পিষে দেয় তারা। পরে একটি নদর্মার মধ্যে দেহটি ফেলে মাটি চাপা দিয়ে দিয়েছিল। পরে এক গ্রামবাসীর নজরে পড়ে দেহটি। তিনিই পুলিশকে খবর দেন। 

[আরও পড়ুন : বিস্কুট, আঙুর, কেক, ক্যাপসিকাম! খাবারের মেনু নয়, এসব বিহারের বিভিন্ন দলের প্রতীক]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement