BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিচ্ছেন সোনিয়া গান্ধী! তুঙ্গে জল্পনা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: August 23, 2020 5:52 pm|    Updated: August 23, 2020 7:17 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যে কোনও সময় কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিতে পারেন সোনিয়া গান্ধী (Sonia Gandhi)। দিল্লির অন্দরে কান পাতলে এখন সেই জল্পনাই শোনা যাচ্ছে। কংগ্রেস সূত্রের খবর, সোনিয়া ইতিমধ্যেই কংগ্রেসের শীর্ষনেতাদের জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি আর এই দায়িত্বে থাকতে চান না। এবার নতুন সভাপতি বেছে নিক দল। এর ফলে ফের মহাফ্যাসাদে  পড়তে চলেছে দেশের সবচেয়ে পুরনো রাজনৈতিক দল।

সপ্তাহ তিনেক আগে কংগ্রেসের ‘নেতৃত্ব সংকট’ নিয়ে দলের অন্তত ২৩ জন শীর্ষ নেতা সোনিয়া গান্ধীকে চিঠি লিখেছিলেন। প্রতিবাদী নেতারা বলছেন, “দলের নেতৃত্ব নিয়ে যে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে, তাতে আমরা খুশি নই। দলের প্রতি যুবসমাজের আস্থা কমছে। আমাদের মিলিতভাবে সব কিছু খতিয়ে দেখতে হবে।” ওই ‘প্রতিবাদী’ নেতারা দলের নেতৃত্বের এই সংকট যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দূর করার দাবি জানিয়েছেন। আসলে ঘুরিয়ে কংগ্রেসের বর্তমান নেতৃত্ব এবং কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির (CWC) কার্যকারিতা নিয়েই প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন ওই নেতারা। ওই চিঠিটিতে যারা সই করেছেন তাঁরা রীতিমতো হেভিওয়েট। কেউ প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী, কেউ প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, কেউ কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির সদস্য আবার কেউ বা রাজ্যস্তরের বড় নেতা। যা ভালভাবে নেননি সোনিয়া। ওই চিঠির জবাবে তিনি নাকি জানিয়েই দিয়েছেন, তাঁর দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার আর কোনও ইচ্ছে নেই। এবার দলের নতুন সভাপতি বেছে নেওয়া উচিত। সোমবার ওই পত্রবোমা এবং দলের নেতৃত্ব সংকট নিয়ে ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডেকেছে কংগ্রেস (Congress)। সূত্রের খবর, ওই বৈঠকেই ফের ইস্তফা দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেবেন কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রী। ইতিমধ্যেই দলের বর্ষীয়ান নেতা গুলাম নবি আজাদের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে তাঁর। যদিও কংগ্রেস প্রকাশ্যে এই পুরো পর্বটিই অস্বীকার করেছে।

[আরও পড়ুন: গান্ধী পরিবারে আস্থা নেই! নেতৃত্ব সংকট নিয়ে সোনিয়াকে চিঠি ২৩ জন কংগ্রেস নেতার]

এদিকে, সোনিয়া ইস্তফা দিলেও দল তা মেনে নেবে না বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। শোনা যাচ্ছে ওই নেতাদের চিঠির পালটা দেওয়ার জন্যও গান্ধী পরিবারের ঘনিষ্ঠ নেতারা পরিকল্পনা সেধে ফেলেছেন। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি প্রদেশ কংগ্রেস কমিটি ওই চিঠির প্রেরকদের বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাশ করানোর কথা ভাবছে। কংগ্রেসের অন্দরে মোটামুটি একটা হাওয়া তৈরি করা হয়েছে যে, ওই নেতারা ব্যক্তিগত স্বার্থের জন্য নেতৃত্বের প্রতি এভাবে অনাস্থা দেখাচ্ছে। কিন্তু এবারের এই চিঠির বিষয়টি যে কংগ্রেস গুরুত্ব দিয়ে দেখছে, সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement