১৬ চৈত্র  ১৪২৬  সোমবার ৩০ মার্চ ২০২০ 

Advertisement

‘বিরোধীদের ক্ষমা করে দিয়েছি’, শপথের মঞ্চে আক্রমণের জবাব দিলেন কেজরিওয়াল

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: February 16, 2020 1:01 pm|    Updated: February 16, 2020 1:01 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মঞ্চ প্রস্তুতই ছিল। রবিবার নির্ধারিত সময়েই তৃতীয়বার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। সেইসঙ্গে শপথবাক্য পাঠ করলেন কেজরিওয়াল ৩.০ মন্ত্রিসভার আরও ছয় সদস্য। আম আদমি পার্টির সুপ্রিমো কেজরিওয়াল পরামর্শে, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ দিল্লির মন্ত্রিসভার ছয় সদস্যকে নিয়োগ করেন। এরা হলেন, মণীশ শিসোদিয়া, সত্যেন্দ্র জৈন, গোপাল রাই, কৈলাস গেহলট, ইমরান হোসেন এবং রাজেন্দ্র পাল গৌতম। আগের মন্ত্রিসভাকেই অপরিবর্তিত রেখেছেন কেজরিওয়াল।

রবিবার শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান ঘিরে রামলীলা ময়দানে জনতার ঢল ছিল চোখে পড়ার মতো। ‘নায়ক’ ছবির অনিল কাপুরের সঙ্গে তুলনা করে কেজরিওয়ালকে ‘নায়ক ২’ আখ্যা দিয়ে পোস্টারে ছয়লাপ ছিল রামলীলা ময়দান। এদিন শপথের মঞ্চে সমাজের ‘আম আদমি’দেরই প্রাধান্য দিয়েছেন কেজরিওয়াল। তাই সাফাইকর্মী, অটো-বাস-মেট্রো চালক, বিভিন্ন স্কুলের অশিক্ষক কর্মীরা কেজরিওয়ালের শপথগ্রহণের মঞ্চে হাজির ছিলেন। তবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আমন্ত্রণ জানানো হলেও তাঁর নামাঙ্কিত চেয়ারটি ফাঁকাই ছিল। তিনি কাশীতে একটি অনুষ্ঠানে ব্যস্ত ছিলেন তাই আসতে পারেননি।

এদিন শপথগ্রহণের পর দিল্লিবাসীর উদ্দেশে আম আদমি পার্টির জয়কে উৎসর্গ করেন কেজরিওয়াল। মঞ্চে দাঁড়িয়ে দিল্লিবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আপনারা ভারতবর্ষে এক নতুন ধারার রাজনীতির জন্ম দিয়েছেন। যেখানে কাজের নিরিখে রাজনীতি হবে, ধর্মীয় ভেদাভেদ-হিংসার রাজনীতি নয়।’ দিল্লির ২ কোটি মানুষকে নিজের পরিবারের সদস্য বলে জানিয়েছেন, ‘আমি সবার মুখ্যমন্ত্রী। আম আদমি পার্টির মতো আমি বিজেপি-কংগ্রেসের কর্মীদেরও মুখ্যমন্ত্রী। আমি কোনও দল বা রং দেখি না। আমি সবার জন্য, সবাইকে নিয়ে কাজ করতে চাই।’

[আরও পড়ুন: ‘কেজরিওয়াল নায়ক ২’, রামলীলা ময়দান ছেয়ে গিয়েছে অনুরাগীদের পোস্টারে]

নির্বাচনী প্রচারে বিজেপি-সহ বিরোধীরা কেজরিওয়ালকে সারাক্ষণ কুকথা বলে আক্রমণ করেছে। সেই কটাক্ষের পালটাও এদিন দিয়েছেন কেজরি। বলেছেন, ‘বিরোধীরা যা যা আক্রমণ করেছে আমি তাঁদের ক্ষমা করে দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম। উনি ব্যস্ততার কারণে আসতে পারেননি। ভবিষ্যতে আমি কেন্দ্রের আশীর্বাদ নিয়েই চলতে চাই।’

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement