BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফুসফুসে সংক্রমণ, প্রণব মুখোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থার অবনতি, জানাল হাসপাতাল

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: August 19, 2020 1:43 pm|    Updated: August 19, 2020 4:13 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:প্রণব মুখোপাধ্যায় ভাল আছেন।’ আজ সকালেই টুইট করে জানিয়েছিলেন তাঁর ছেলে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়। কিন্তু তার ঘণ্টা তিনেকের মধ্যেই দুঃসংবাদ শোনাল আর্মি রিসার্চ অ্যান্ড রেফারেল হাসপাতাল (Army Research & Referral Hospital)। হাসপাতালের তরফে জানানো হল, প্রণববাবু সংকটমুক্ত নন। হঠাৎ তাঁর অবস্থার অবনতি হয়েছে। নতুন করে সংক্রমিত হয়েছে তাঁর ফুসফুস।

আজ সকালে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির ছেলে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় (Abhijit Mukherjee) টুইট করে বলেন, “আপনাদের সকলের প্রার্থনা এবং চিকিৎসকদের চেষ্টায় আমার বাবা এখন স্থিতিশীল। তাঁর সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ প্যারামিটার নিয়ন্ত্রণের মধ্যেই আছে। এবং তাঁর শারীরিক অবস্থার উন্নতির লক্ষণ দেখা যাচ্ছে। সকলের কাছে আমার অনুরোধ, আপনারা ওঁর সুস্থতার জন্য প্রার্থনা করুন।” অভিজিতের এই টুইটে খানিকটা স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়ের (Pranab Mukherjee) অনুগামীরা। কিন্তু কিছুক্ষণের মধ্যেই ফের এল উদ্বেগের খবর। হাসপাতালের তরফে মেডিক্যাল বুলেটিনে বলা হয়েছে,”প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। এবার তাঁর ফুসফুসেও ছড়িয়েছে সংক্রমণ। তিনি এখনও ভেন্টিলেটর সাপোর্টে। এবং বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দলের পর্যবেক্ষণে আছেন”

[আরও পড়ুন: ভোটের আগে মোদির বিরোধিতায় সরব, মেয়াদ শেষের আগেই ইস্তফা সেই নির্বাচন কমিশনারের]

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহের গোড়ার দিকে দিল্লির বাসভবনে বাথরুমে পড়ে গিয়ে মাথায় চোট পান প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি। তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়। প্রণববাবুর মাথায় অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন পড়ে। অস্ত্রোপচারের আগে প্রোটকল অনুযায়ী তাঁর করোনা টেস্ট হয়। তাতে রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তবে তাঁর শরীরে করোনার কোনও উপসর্গ ছিল না। চিকিৎসকরা প্রথমে জানান, করোনার কারণে প্রণববাবুর ফুসফুসে কোনও সমস‌্যা ধরা পড়েনি। তবে অস্ত্রোপচারের পর তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। গভীর কোমায় আচ্ছন্ন হয়ে যান তিনি। তাঁর মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণও হয়। তাঁকে ভেন্টিলেশন সাপোর্টে রাখার সিদ্ধান্ত নেয় আর্মি রিসার্চ অ্যান্ড রেফারেল হাসপাতাল। অপারেশনের পর এক সপ্তাহ কেটে গেলেও তিনি ভেন্টিলেশনেই আছেন। এবার তাঁর ফুসফুসেও ধরা পড়ল সংক্রমণ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement