২৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নাটকের ইতি। শিব সেনা-এনসিপি জোট সরকার নিশ্চিত হওয়ার পথে। সৌজন্যে কংগ্রেসের সমর্থন। সূত্রের খবর, মহারাষ্ট্রে শিব সেনা-এনসিপি জোট সরকার গঠন করবে, তাতে বাইরে থেকে সমর্থন করবে কংগ্রেস।

সোমবার সমর্থন চেয়ে সোনিয়া গান্ধীকে ফোন করেছিলেন উদ্ধব ঠাকরে। এর আগে বিকেলে মহারাষ্ট্রের কংগ্রেসের নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন সোনিয়া। তাঁদের মতামত জানার পরেই এনসিপি প্রধান শরদ পওয়ারকে ফোন করে কংগ্রেসের বাইরে থেকে সমর্থনের কথা জানান কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি। অপরদিকে কংগ্রেসের সবুজ সংকেত পেয়েই রাজভবনে পৌঁছে যান শিব সেনার প্রতিনিধিরা। শিব সেনার পরিষদীয় দলনেতার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল রাজ্যপালের কাছে গিয়ে সরকার গঠনের দাবি জানিয়ে আসে। প্রসঙ্গত সোমবার সকালে কংগ্রেসের কার্যকরী কমিটির বৈঠকের সময়েই এই নাটকের ইতির সম্ভাবনার ইঙ্গিত মিলেছিল। সন্ধ্যায় স্পষ্ট হয় সমস্ত ছবিটা।

[আরও পড়ুন :একবছর সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা, মোদিকে নিয়ে পোস্ট করে এই শর্তেই মিলল জামিন]

কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা থেকে শিব সেনার একমাত্র সদস্য ইস্তফা দেওয়ার পরেই মহারাষ্ট্রে এনসিপি-র সঙ্গে শিব সেনার জোটের সম্ভাবনা জোরদার হয়েছিল। তারপর থেকেই দ্রুত বদলাতে শুরু করে পরিস্থিতি। শিব সেনা-এনসিপি সরকার গঠনে নীতিগতভাবে একমতে পৌঁছায়। কিন্তু কংগ্রেস ছাড়া সরকার গঠন সম্ভব নয়। কারণ, দু’দলের মিলিত আসন ম্যাজিক ফিগারের চেয়ে কম। তাই এনসিপি প্রধান শরদ পওয়ার কংগ্রেসের কোর্টেই বল ঠেলে দিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, ২৮৮ আসনের বিধানসভায় এবার ২০০ আসন পার করে দেওয়ার যে লক্ষ্যমাত্রা এনডিএ ঘোষণা করেছিল, তার থেকে অনেক দূরে থেমে যেতে হয়েছে গেরুয়া শিবিরকে। ১৪৫টি আসন পেলে নিরঙ্কুশ গরিষ্ঠতা মেলে মহারাষ্ট্রে। ২০১৪ সালে বিজেপি ২৬০টি আসনে একা লড়াই করে ১২২টি আসন পেয়েছিল। এবার তারা কোনওক্রমে ১০০ ছাড়িয়েছে। আর ভোটের আগে থেকেই একক বৃহত্তম দল হওয়ার এবং আদিত্য ঠাকরেকে মুখ্যমন্ত্রী করার হুঙ্কার ছাড়তে থাকা শিব সেনা গতবার পাওয়া ৬৩টি আসনও ধরে রাখতে পারেনি। এবার আরও সাতটি আসন কমেছে তাদের।

[আরও পড়ুন : ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে উত্তাল জেএনএউ, দিল্লির রাস্তায় পড়ুয়াদের সঙ্গে হাতাহাতি পুলিশের ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং