BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

ফের বিশাখাপত্তনমের রাসায়নিক কারখানায় গ্যাস লিক, ২ দিনের জন্য সরিয়ে দেওয়া হল স্থানীয়দের

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 8, 2020 11:11 am|    Updated: May 8, 2020 11:11 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আতঙ্কের রেশ এখনও কাটেনি বিশাখাপত্তনমে। বৃহস্পতিবার ভোরের পর শুক্রবারও গ্যাস লিক হল ওই কেমিক্যাল প্যান্ট থেকে। ফলে এখনই যে ওই কারখানার আশপাশের এলাকা সম্পূর্ণ সুরক্ষিত নয়, তা নিয়ে একপ্রকার নিশ্চিত প্রশাসন। সেই কারণেই এলাকার বাসিন্দারা যেন আগামী দু’দিনের মধ্যে বাড়ি না ফেরেন, তার অনুরোধ করা হয়েছে। জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তর জানিয়েছে, সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে এলাকার মানুষদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। বাসিন্দাদের নিরাপত্তা নিয়ে সবরকম প্রচেষ্টা চালাচ্ছে তারা।

গ্যাস দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে উদ্ধারের জন্য পুণে থেকে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলার একটি বিশেষ টিম এসেছে। বিশাখাপত্তনম পুলিশ কমিশনার আর কে মিনা সংবাদসংস্থাকে বলেছেন, কেমিক্যাল প্ল্যান্টের ২ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের মধ্যে যাঁরা রয়েছেন তাঁরা যেন কোনওভাবেই ঘরে বাইরে না বের হন। এনিয়ে অযথা আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। কিন্তু সতর্কতামূলক ব্যবস্থা যেন নেন সকলেই। দমকলের অফিসার সুরেন্দ্র আনন্দ জানিয়েছেন, কারখানা থেকে এখনও গ্যাস লিক করছে। গ্যাসের বাষ্প বেরিয়ে আসার কারণে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে দেখা দিচ্ছে শারীরিক সমস্যা। ঘটনাস্থল থেকে পাঁচ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের মধ্যে যাঁরা রয়েছে, তাঁদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চলের বাইরে তাঁদের আত্মীয় বা বন্ধুদের বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা চলছে বলেও জানান তিনি।

[ আরও পড়ুন: দেশে মৃত্যুর নতুন রেকর্ড, উদ্বেগ বাড়িয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার বলি শতাধিক ]

তিনি আরও বলেন, দমকলের ১০টি ইঞ্জিন রয়েছে এলাকায়। এছাড়া দু’টি ফোম টেন্ডারও রয়েছে। জরুরি পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে প্রস্তুত রাখা হয়েছে অ্যাম্বুল্যান্স। যাতে কোনও বাসিন্দার কোনও রকম সমস্যা দেখা দিলে দ্রুত হাসপাতাল পৌঁছনো যায়। গুজরাট থেকে বিশাখাপত্তনমে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি বিশেষ কার্গো বিমান PTBC (para-tertiary butyl catechol) নিয়ে এসেছে। গ্যাস লিক যাতে বন্ধ করা যায়, সেই চেষ্টা করা হচ্ছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বিশাখাপত্তনমের নায়ডু থোটা এলাকার আরআরভি পুরমে অবস্থিত এলজি পলিমার্স সংস্থার রাসায়নিক কারখানায় বৃহস্পতিবার গভীর রাত ২.৩০ নাগাদ হয় এই দুর্ঘটনা। আচমকা বিষাক্ত গ্যাস লিক করে কারখানা থেকে। ২ হাজার মেট্রিক টনের একটি ট্যাঙ্ক থেকে গ্যাস লিক করে। প্রায় ২০০০ মানুষ এই গ্যাস লিকের ফলে অসুস্থ হয়ে পড়েন। গ্যাস দুর্ঘটনার পরপরই এলাকা খালি করে দেয় পুলিশ। তিন হাজার মানুষকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। উৎসস্থল থেকে আড়াই কিমি এলাকা জুড়ে এই গ্যাস ছড়িয়ে পড়ে বলে জানা গিয়েছে।

[ আরও পড়ুন: ‘বন্দে ভারত মিশন’-এর প্রথম ধাপ নির্বিঘ্নেই, দুবাই-আবু ধাবি থেকে দেশে ফিরলেন ভারতীয়রা ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement