১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শিব সেনা-বিজেপি সম্পর্ক খানিকটা যেন শাশুড়ি-বৌমার মতো৷ নরমে-গরমে দুই শরিক দলের তরজা প্রায়ই উঠে আসে সংবাদের শিরোনামে৷ তবে এবারের লোকসভা নির্বাচনের পর ফের কাছাকাছি দুই শিবির৷ ‘মজবুত সম্পর্কের’ বার্তা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রশংসা করে ফের রাম মন্দির ইস্যু নিয়ে সরব হলেন শিব সেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে৷

[আরও পড়ুন: হাতি মেরে খাচ্ছে বাঘ, করবেটের কাণ্ডে চিন্তিত বনবিদরা]

রবিবার অযোধ্যার বুকে দাঁড়িয়ে ‘হিন্দু হৃদয় সম্রাট’ বলা সাহেবের ছেলে উদ্ধব বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর সাহস আছে। সেকারণে অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরি করতে নরেন্দ্র মোদির অর্ডিন্যান্স আনা উচিত। তা হলে কেউ তার বিরোধিতা করতে পারবে না।” এই বিতর্কিত ইস্যুতে পারদ আরও চড়িয়ে তিনি বলেন, “যেভাবে বাবরি মসজিদ ভেঙেছিলেন শিব সৈনিকরা, একইভাবে প্রধানমন্ত্রী পদক্ষেপ করলে রাম মন্দির নির্মাণে সবার আগে এগিয়ে আসবেন তাঁরাই৷” খানিকটা যেন বলা সাহেবের স্মৃতি উসকেই, বাবরি ধবংসে শিব সেনার হাত রয়েছে বলে প্রকাশ্যে স্বীকার করে নিলেন উদ্ধব৷ নির্বাচনে জয়ী হলে রাম জন্মভূমিতে আসবেন বলে লোকসভা ভোটের আগে বলেছিলেন উদ্ধব। সেইমতো এদিন ছেলে আদিত্য-সহ ১৭ জন নতুন সাংসদকে নিয়ে অযোধ্যা আসেন তিনি। সেখানে অস্থায়ী রাম মন্দিরে প্রার্থনা করেন শিবসেনা সুপ্রিমো। এরপরেই তিনি বলেন, “বহুদিন ধরে রাম মন্দির নির্মাণের বিষয়টি আদালতে ঝুলে রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাহস রয়েছে। সরকার যদি এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়, তাহলে কেউ আটকাতে পারে না। শুধু শিবসেনা নয়, বিশ্বের তামাম হিন্দু সরকারের পাশে থাকবে।”

 রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মতে, চলতি বছরের শেষে বিধানসভা নির্বাচন হতে চলেছে মহারাষ্ট্রে। তার আগে রাম লালা দর্শন করে মন্দির নির্মাণ নিয়ে জোটসঙ্গী বিজেপির উপর চাপ বাড়াতে চাইছে শিবসেনা। যেহেতু দু’দলেরই ভোটব্যাংক একই, ফলে লোকসভায় বিজেপির সঙ্গে লড়লেও বিধানসভায় ‘মারাঠি অস্মিতা’-র ডাক দিয়ে নিজেদের গড় আরও মজুবত করতে চেষ্টা চালাবে দলটি৷

[আরও পড়ুন: এনআরএস কাণ্ডের প্রতিবাদে আজ দেশজুড়ে ধর্মঘটের ডাক আইএমএ-র]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং