২৬ বৈশাখ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

সিন্ধু জলবণ্টন চুক্তি নিয়ে উচ্চপর্যায়ের টাস্ক ফোর্স গঠন কেন্দ্রের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 17, 2016 8:10 pm|    Updated: December 17, 2016 8:10 pm

Govt forms high-level task force on Indus Water Treaty

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাকিস্তানের সঙ্গে সিন্ধু জলবণ্টন চুক্তি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মুখ্যসচিব নৃপেন্দ্র মিশ্রের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় সরকার একটি উচ্চ পর্যায়ের টাস্ক ফোর্স গঠন করল৷ এই টাস্ক ফোর্স ওই চুক্তি সংক্রান্ত সমস্ত কৌশলগত দিক খতিয়ে দেখবে৷

ওই টাস্ক ফোর্সে রয়েছেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল, বিদেশসচিব এস জয়শঙ্কর, অর্থ, পরিবেশ, শক্তি ও জলসম্পদ মন্ত্রকের সচিবরা৷ এর পাশাপাশি, সিন্ধুর জল পায় যে রাজ্যগুলি সেই রাজ্যের মুখ্যসচিবরাও রয়েছেন এই দলে৷ সিন্ধু জলবণ্টন চুক্তি সংক্রান্ত যাবতীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা থাকবে এই টাস্ক ফোর্সের হাতে৷ উরি হামলার পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সিন্ধু জলবণ্টন চুক্তিতে রদবদল আনার পক্ষে সওয়াল করেন৷

১৯৬০ সালে পাক রাষ্ট্রপতি আয়ুব খানের সঙ্গে সিন্ধু জলবণ্টন চুক্তি সাক্ষর করেন জওহরলাল নেহেরু৷ আন্তর্জাতিক নদী আইনের অধীনে এই চুক্তি করে ভারত-পাকিস্তান৷ চুক্তিতে স্থির হয়, প্রতিবেশী দেশ হিসাবে পাকিস্তানকে সিন্ধু, ঝিলম ও চেনাবের জল ব্যবহার করতে দেবে ভারত৷ অন্যদিকে, পূর্বাংশের নদী বিপাশা, রবি ও শতদ্রুর জল নিজে ব্যবহার করবে৷

সিন্ধু, ঝিলম ও চেনাব এই তিন নদীর উৎসস্থলই ভারত৷ পাকিস্তানের ৮০ শতাংশ জনজীবন এই নদীর জলের উপর নির্ভরশীল ৷ পাকিস্তানের ৪০টি জেলায় কৃষিকাজের জন্য জলের প্রধান উৎস এই সিন্ধু, ঝিলম ও চেনাব৷ এই নদীগুলি থেকে ২৫ হাজার কিউসেক পর্যন্ত জল পায় নওয়াজ শরিফের দেশ৷ ভারত এতদিন সিন্ধুর মাত্র ২০% জল ব্যবহার করত৷ পাকিস্তানকে চাপে ফেলতে এই তিন নদীর জলই বেশি করে ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত৷

যদিও পাকিস্তানের তরফে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়, সিন্ধু জলবণ্টন চুক্তিতে কোনও পরিবর্তন মানবে না পাকিস্তান৷ পাক মিডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনই হুঁশিয়ারি দেন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের উপদেষ্টা তারিক ফতেমি৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে