Advertisement
Advertisement

গান্ধীজয়ন্তীতে বন্দিদের জন্য কল্পতরু কেন্দ্র

তিনটি পর্যায়ে সম্পূর্ণ হবে পরিকল্পনা৷

Govt ro release petty criminals from October 2
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:July 19, 2018 11:11 am
  • Updated:July 19, 2018 12:51 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চলতি বছর জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর ১৫০তম জন্ম জয়ন্তীকে দেশজুড়ে সারম্বরে পালনের সিদ্ধান্ত আগেই নিয়েছে কেন্দ্র৷ সেই মর্মে এই বছরের ২ অক্টোবর দিনটিকে বিশেষ কয়েকজনের জন্য আরও বেশি আনন্দদায়ক করে তুলতে তৎপর নয়াদিল্লি৷ বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, মারাত্মক দোষে শাস্তিপ্রাপ্ত নন এমন বহু বন্দিকে মুক্তি দিতে চাইছে কেন্দ্র৷ এক্ষেত্রে নির্ধারিত কয়েকটি বিষয়ে বিচার-বিশ্লেষণ করে তবেই এই সিদ্ধান্তকে বলবৎ করা হবে বলে জানা গিয়েছে৷

[ভাইয়ের মৃত্যুর বদলা নিতে মিড ডে মিলে বিষ মেশাল সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী]

Advertisement

সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বন্দিদের মুক্তির ক্ষেত্রে প্রাধান্য দেওয়া হবে সাজাপ্রাপ্ত বন্দিদের শাস্তির সময়কালকে৷ প্রথমেই বিচার করে দেখা হবে যে, বন্দি তার শাস্তির মেয়াদকালের অর্ধেক সময় জেলে কাটিয়েছে কিনা৷ এরপরও বিশ্লেষণ করে দেখা হবে বন্দির বয়স, মহিলাদের জন্য নির্ধারিত ৫৫ ও পুরুষদের নির্ধারিত ৬০ এর বেশি কিনা৷ এছাড়া, রূপান্তরকামী ও প্রতিবন্ধীদের জন্যও থাকছে বিশেষ সুযোগ৷ সূত্রের খবর, চলতি বছরের গান্ধী জয়ন্তীতে প্রথম পর্যায়ে একবার বন্দি মুক্তির পর আবার আগামী বছরের এপ্রিলে দ্বিতীয় পর্যায়ে বন্দিমুক্তির পরিকল্পনা রয়েছে কেন্দ্রের৷ কারণ, ১০ এপ্রিল হল চম্পারণ সত্যাগ্রহ দিবস৷ একই ভাবে আগামী বছরের ২ অক্টোবর অর্থাৎ গান্ধী জয়ন্তীর ১৫০তম বছরে মুক্তি দেওয়া হবে শেষ পর্যায়ের বন্দিদের৷

Advertisement

[এবার থেকে সংসদে ২২টি ভাষায় কথা বলতে পারবেন সাংসদরা]

কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত প্রকাশ্যে আসার পরেই আইনমন্ত্রী রবি শংকর প্রসাদ স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন কারা এই সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবেন৷ তিনি জানান, যে সমস্ত বন্দিরা ফাঁসি বা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজাপ্রাপ্ত বা Pota, UAPA, Tada, FICN, POCSO, Fema, NDPS, Prevention of Corruption ধারায় সাজাপ্রাপ্ত তাদেরকে এই সুযোগ দেওয়া হবে না৷

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ