BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

গুজরাটে ফের ক্ষমতায় আসবে বিজেপিই, সরগরম সাট্টার বাজার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 9, 2017 7:14 am|    Updated: September 20, 2019 3:00 pm

An Images

নন্দিতা রায়, আমেদাবাদ: গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম পর্যায়ের ভোট গ্রহণ পর্ব চলছে৷ বিগত কয়েকদিনে রাজ্যে ভোটের পারদ চড়চড় করে চড়ছে৷ মাসখানেক আগে পর্যন্ত যেখানে বিজেপি একচ্ছত্রভাবে গুজরাটে ক্ষমতায় আসতে চলেছে বলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছিলেন এখন তারাই বিজেপি ও কংগ্রেস একে ওর ঘাড়ে নিশ্বাস ফেলছে বলে মত প্রকাশ করছেন৷ সংবাদমাধ্যমের বিভিন্ন সমীক্ষাতেও সেই চিত্রই ধরা পড়ছে৷

রাজনৈতিকমহল হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিলেও গুজরাট নির্বাচন নিয়ে ‘বুকি’দের বাজি সেই বিজেপির উপরে৷ সাট্টা বাজারের হিসেবে গুজরাটে ফের ক্ষমতায় আসতে চলেছে বিজেপিই৷ সূত্রের মতে, আজকের দিনে গুজরাট নির্বাচন নিয়ে মোট প্রায় পাঁচশো থেকে ছশো কোটি টাকার উপর বাজি রয়েছে৷ সেখানে বিজেপির আবার ক্ষমতায় আসার দিকেই পাল্লা ভারি৷ তবে, গতবারের চেয়ে এবারে কম আসন পাবে বলেই সাট্টা বাজারের সমীক্ষা৷ গতবার বিজেপির আসন সংখ্যা একশো ঊনিশ থাকলেও এবারে তা কমে একশো তিন থেকে পাঁচের মধ্যে হবে বলেই সাট্টা বাজারে বাজি চলছে৷

[আধার কর্তৃপক্ষ ও টেলিকম সংস্থার মতবিরোধে ফের পিছল সংযুক্তির তারিখ]

রাজনৈতিক সমীক্ষার মতই সাট্টা বাজারের সমীক্ষারও বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে৷ তিন বছর আগের লোকসভা নির্বাচন হোক বা গত বছরের দেশের সবথেকে বড় রাজ্য উত্তরপ্রদেশের বিধানসভা নির্বাচন৷ কারা ক্ষমতায় আসতে চলেছে তা নিয়ে সাট্টা বাজারের সমীক্ষা হুবহু মিলে গিয়েছে৷ তবে, আসন সংখ্যার ক্ষেত্রে হেরফের হয়নি এমনটা নয়৷ ভোটের দিন এখন পর্যন্ত সাট্টা বাজারে বিজেপি একশো দশটি পর্যন্ত আসন পাওয়ার ক্ষেত্রে এক টাকার উপর এক টাকা পঞ্চাশ পয়সা, একশো পঁচিশটি পর্যন্ত আসন পাওয়ার উপরে সাড়ে তিন টাকা ও দেড়শো আসনের উপর সাত টাকা কর দর চলছে৷ যা আগামীদিনে ওঠানামা করতে পারে বলেই জানা গিয়েছে৷

সাট্টা বাজারের বুকিরা কথাবার্তা বলার ব্যাপারে খুবই সতর্ক থাকেন৷ তবে, বাজারে যারা টাকা লাগান তাদের সূত্রেই এই সমস্ত সামনে উঠে এসেছে৷ সাট্টা বাজারের সমীক্ষায় কংগ্রেস গতবারের তুলনায় বেশি আসন পেতে চলেছে বলা হয়েছে৷ কংগ্রেসকে সাট্টা সমীক্ষায় দেওয়া হয়েছে একাত্তর থেকে পঁচাত্তরটি আসন৷ যা গতবারের একষট্টির থেকে দশটি বেশি৷ এক্ষেত্রে দর রয়েছে এক টাকার উপরে এক টাকা দশ পয়সা৷ কংগ্রেস একশো আসন পাওয়ার ক্ষেত্রে এক টাকার উপর তিন টাকা দর রয়েছে৷ সাট্টা বাজারে পয়সা খাটান নাম প্রকাশ অনিচ্ছুক এমন এক ব্যক্তির কথায়, “ দু-দিন আগে থেকে আজকের দিন পর্যন্ত মোটামুটিভাবে এই দর রয়েছে৷ আজ ভোট শেষের পরে কত ভোট পড়ল সেই সমস্ত হিসেব নিকেশের পরে দর ওঠানামা করবে৷” সাট্টা বাজারের অস্তিত্ব নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন রাজনৈতিক নেতারা৷ তা শুনে হেসে ঐ ব্যক্তির জবাব, “আপনাদের যেমন সমীক্ষা হয়, এখানেও তাই৷ পুরোপুরি বৈজ্ঞানিক ও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে৷ আর সাট্টা বাজার বলে কিছু আছে কিনা তা যারা বলেন তারা আসলে সব জেনে বুঝেও চোখ বন্ধ করে না জানার ভান করেন৷”

[পরস্ত্রীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে একা পুরুষই দোষী কেন, প্রশ্ন সুপ্রিম কোর্টের]

সাট্টা বাজারের হিসেবে বিজেপি ক্ষমতায় আসার ইঙ্গিত থাকলেও তাদের লক্ষ্যমাত্রা ‘মিশন একশো পঞ্চাশ কোনোভাবেই সফল হবে বলেই ইঙ্গিত রয়েছে৷ সর্বোচ্চ দর এক্ষেত্রেই রয়েছে৷ এক টাকায় সাত টাকা৷ গুজরাট নির্বাচনের আরেকটি বিষয় নিয়েও সাট্টা বাজারে শোরগোল রয়েছে৷ রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানিই আবার মুখ্যমন্ত্রী হবেন নাকি উপ-মুখ্যমন্ত্রী নীতিন প্যাটেল সেই জাগাতে আসবেন তানিয়েও বাজি চলছে৷ সেখানে পাল্লা ভারি প্যাটেলের৷ কংগ্রেসের কোনও নেতাকে নিয়ে অবশ্য সাট্টা বাজারে তেমন দরদাম দেওয়া হয়নি৷

[গুজরাটে প্রথম দফার ভোটগ্রহণ চলছে, অগ্নিপরীক্ষা মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানির]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement