BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘লকডাউন ভেঙে রাস্তায় কেন’, জানতে চাইতেই পুলিশকর্মীদের গণপিটুনি

Published by: Paramita Paul |    Posted: April 13, 2020 2:40 pm|    Updated: April 13, 2020 2:41 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অসম, পাঞ্জাবের পর এবার হরিয়ানাও আক্রান্ত পুলিশকর্মীরা। লকডাউন ভাঙায় স্থানীয় যুবকরা পুলিশকর্মীদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন। এরপরই লাঠি নিয়ে পুলিশ কর্মীদের উপর চড়াও হন তাঁরা। গণপিটুনিতে গুরুতর জখম হয়েছেন দুই পুলিশ কর্মী। হরিয়ানার নুহ এলাকার রবিবার সন্ধের ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, রবিবার সন্ধেয় হেড কনস্টেবল অনিল ও স্পেশাল পুলিশ টহল দিতে বেরিয়েছিলেন। সেইসময় নুহ এলাকায় রাস্তায় কয়েকজন আড্ডা মারছিলেন। পুলিশ আসতে দেখে সেখান থেকে চম্পট দেয় জমায়েতকারীরা। কিন্তু তাদের মধ্যে একজন বাড়ির সামনে দাঁড়িয়েছিলেন।পুলিশ কর্মীরা তাঁকে বাড়িতে ঢুকতে বলতেই বচসা বেঁধে যায়। ‘কেন রাস্তায় থাকা যাবে না’, ‘কে বারণ করছে’ এধরণের নানাবিধ প্রশ্ন করতে থাকেন তিনি। হেড কনস্টেবল অনিল জানান, “পরিস্থিতি খারাপ হতে দেখে দেখে অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স চেয়ে পাঠাই। কিন্তু অতিরিক্ত ফোর্স আসার আগেই এলাকাবাসী আমাদের উপর চড়াও হয়। বেধড়ক মারধর করে।”

[আরও পড়ুন : সক্রিয় হচ্ছে একাধিক মন্ত্রক, লকডাউনের মধ্যেই কাজে যোগ দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা]

জানা গিয়েছে, অতিরিক্ত পুলিশবাহিনী আসার পর অভিযুক্তদের খোঁজ শুরু হয়। এক অভিযুক্ত রাকেশকে ধরতে গেলে বাকি পুলিশ বাহিনীর উপরও চড়াও হন তাঁরা। পুলিশের লাঠি দিয়েই তাঁদের মারা হয় বলে অভিযোগ। SPO ও পুলিশ হেড কনস্টেবল জখম হয়েছেন। ঘটনাপ্রসঙ্গে নুহ পুলিশের জনসংযোগ আধিকারিক কৃষ্ণ কুমার বলেন, “ঘটনায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। পাঁচজনকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে।” জানা গিয়েছে, মোট ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, করোনা সংক্রমণ রুখতে দেশজুড়ে ২১ দিনের লকডাউন চলছে। জরুরি পরিষেবা ছাড়া ঘরের বাইর বের হতে নিষেধ করা হয়েছে। কিন্তু সরকারি নির্দেশিকার কান দিতে রাজি নন দেশবাসীর একাংশ। তাঁরা এখনও রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন। আর পুলিশ লকডাউন তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে গেলেই পালটা আক্রান্ত হচ্ছেন। রবিবার পাঞ্জাবে এক পুলিশকর্মীর হাত কেটে নেওয়া হয়। 

[আরও পড়ুন : নজিরবিহীন উদ্যোগ, উপসর্গহীন আক্রান্তদের সেবায় নিযুক্ত হলেন করোনা জয়ীরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement