×

৮ ফাল্গুন  ১৪২৫  বৃহস্পতিবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নিউজলেটার

৮ ফাল্গুন  ১৪২৫  বৃহস্পতিবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাফালে ইস্যুতে বড় ধাক্কা কংগ্রেসের৷ ইংরেজি দৈনিক ‘দ্য হিন্দু’তে প্রকাশিত যে প্রতিবেদনকে হাতিয়ার করে প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ শানিয়েছিলেন রাহুল গান্ধী৷ সেই প্রতিবেদনকে মিথ্যা ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে উড়িয়ে দিলেন রাফালে যুদ্ধবিমান সংক্রান্ত নেগোসিয়েশন টিমের প্রধান এয়ার মার্শাল এসবিপি সিনহা৷ বায়ুসেনার এই শীর্ষ আধিকারিক স্পষ্ট অভিযোগ করলেন, রাফালে সংক্রান্ত বিষয়ে সম্পূর্ণ তথ্য প্রকাশ করা হয়নি৷ ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে ইংরেজি দৈনিক ‘দ্য হিন্দু’তে৷ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে ওই চিঠির উত্তরে তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিকরের পালটা জবাবের অংশকে৷ কেবলমাত্র একপক্ষের বক্তব্য প্রকাশ্যে আনা হয়েছে৷

[শিলংয়ে রাজীব কুমারকে জেরা Live Updates: পুলিশ কমিশনারকে জেরা শুরু CBI আধিকারিকদের ]

এয়ার মার্শাল এসবিপি সিনহা আরও বলেন, ‘‘ওই চিঠি পাঠিয়েছিলেন ডেপুটি সেক্রেটরি এসকে শর্মা৷ যার সঙ্গে নেগোসিয়েশন টিমের কোনও সম্পর্ক নেই৷ তিনি টিমের সদস্যও ছিলেন না৷’’ ঘটনার সূত্রপাত হয় শুক্রবার৷ রাফালে যুদ্ধবিমান সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদনে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করে সংবাদপত্র ‘দ্য হিন্দু’৷ ওই প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়েছে ২০১৫-র ২৪ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরকে লেখা প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের একটি গোপন চিঠি৷ যেখানে বলা হয়েছে, প্রতিরক্ষা মন্ত্রক এবং নেগোসিয়েশন টিমকে অন্ধকারে রেখে রাফালে যুদ্ধবিমানের দামের বিষয়ে ফ্রান্সের সঙ্গে সমান্তরাল দরাদরি চালিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷ এই ধরনের পদক্ষেপ থেকে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের সরে আসা উচিত৷ কারণ, এতে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে অগ্রাহ্য করা হয়৷

[অসমে প্রধানমন্ত্রীকে ‘কালো পতাকা’, ইটানগরেও বিক্ষোভের সম্ভাবনা]

সংবাদপত্রে প্রকাশিত এই প্রতিবেদনকে হাতিয়ার করেই শুক্রবার মোদির বিরুদ্ধে যুদ্ধে অবতীর্ণ হন রাহুল গান্ধী৷ প্রশ্ন তোলেন, ‘কেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রককে অন্ধকারে রেখে ফ্রান্সের সঙ্গে সরাসরি দর কষাকষি করেছেন প্রধানমন্ত্রী?’ তিনি অভিযোগ করেন, ‘‘বায়ুসেনার ৩০ হাজার কোটি টাকা লুট করেছেন প্রধানমন্ত্রী৷ সেই টাকা তিনি তুলে দিয়েছেন অনিল আম্বানির হাতে৷ রাফালের বিষয়ে মিথ্যা কথা বলেছেন বর্তমান প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণও৷ এখন বিষয়টি দিনের আলোর মতো পরিষ্কার৷’’ এরপরই সরকারের বিরুদ্ধে লোকসভায় হট্টগোল শুরু করেন বিরোধীরা৷ যুদ্ধে অবতীর্ণ হন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ৷ তিনি পালটা অভিযোগ করেন, ‘‘চিঠির ভুল ব্যাখ্যা করছে কংগ্রেস৷ এই চিঠির উত্তরে তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিকর জানিয়েছিলেন যে, সব কিছু ঠিকঠাক চলছে৷ কোনও অসুবিধা নেই৷ সেই বক্তব্য উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে প্রকাশ করা হয়নি সংবাদপত্রের প্রতিবেদনে৷’’ একই ভাবে শুক্রবার সরকারের পাশে দাঁড়ান তৎকালীন প্রতিরক্ষা সচিব ডি মোহন কুমারও৷ ওই চিঠির সঙ্গে পিএমও-র হস্তক্ষেপ বা দরের কোনও সম্পর্ক নেই বলে দাবি করেন তিনি৷ যাতে অনেকটাই ব্যাকফুটে পড়ে কংগ্রেস৷ ভোঁতা হয়ে যায় অভিযোগ৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং