BREAKING NEWS

২৩ আষাঢ়  ১৪২৭  বুধবার ৮ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

পিপিই কিট কেলেঙ্কারির জের, হিমাচল প্রদেশে পদত্যাগ বিজেপি রাজ্য সভাপতির

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: May 27, 2020 10:45 pm|    Updated: May 27, 2020 10:50 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পিপিই কিট কেলেঙ্কারির জেরে ইস্তফা দিলেন হিমাচল প্রদেশের রাজ্য বিজেপির সভাপতি রাজীব বিন্দল (Rajeev Bindal)। একটি অডিও ক্লিপ ভাইরাল হওয়ায় কেলেঙ্কারির আঁচ পৌঁছয় দিল্লি পর্যন্ত। কেলেঙ্কারির জেরে ইতিমধ্যেই রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের এক শীর্ষ আধিকারিককে গ্রেফতার করা হয়। এরপরই পুলিশ রাজ্য বিজেপি নেতাদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে শুরু করে।

করোনার দাপটে ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা দেশ জুড়ে। এমন সময় পাহাড়ি রাজ্য হিমাচল প্রদেশের রাজ্য-রাজনীতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পিপিই কিট (PPE Kit) কেলেঙ্কারির খবরে। এই খবরের গনগনে আঁচ পৌছেছে পিএমও (PMO) পর্যন্ত। ঘটনার জেরে প্রথমে ভিজিল্যান্স তদন্ত শুরু করা হয়। পিএমও-র তরফ থেকে এক অফিসারকে নিয়োগ করে দায়িত্ব দেওয়া হয় তদন্তের। অন্যদিকে রাজ্য সরকারও হাত গুটিয়ে বসে থাকে। রাজ্যের তরফ থেকেও ভিজিল্যান্স তদন্ত শুরু করা হয়। ভাইরাল হয় ৪৩ একটি সেকেন্ডের অডিও ক্লিপ। যেখানে রাজ্য বিজেপির সভাপতি  রাজীব বিন্দলকে ৫ লক্ষ টাকার ঘুষ নেওয়ার কথা বলতে শোনা যায়। এরপরই উত্তেজনা ছড়ায় রাজ্য জুড়ে। গ্রেপ্তার করা হয় স্বাস্থ্য দফতরের শীর্ষ আধিকারিক অজয় কুমার গুপ্তাকে। তদন্তে নেমে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করতে শুরু করেন রাজ্যের বিজেপি নেতাদের। ঘটনার জেরে এদিন হিমাচল প্রদেশের বিজেপি সভাপতি বিন্দাল পদত্যাগপত্র পাঠান সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার কাছে। নৈতিক মূল্যবোধের কথা মাথায় রেখেই বিন্দল এই পদত্যাগ করতে চান বলে জানান। সভাপতি বিন্দাল বলেন, “অনেকেই দলের উপরে প্রশ্ন তুলেছেন। তাই নৈতিক মূল্যবোধের কথা মাথায় রেখেই পদত্যাগ করতে চাই।” তবে তাঁর পদত্যাগপত্র গ্রহণ করা হবে কিনা সেই বিষয়ে প্রথমে সংশয় দেখা দেয় রাজনৈতিক মহলে।

[আরও পড়ুন:‘অমিত শাহকে বলেছিলাম আমরা পারছি না মনে হলে, আপনারা সামলান’, বললেন ক্ষুব্ধ মমতা]

পিপিই কেলেঙ্কারি নিয়ে বিজেপির দিকে আঙুল তোলেন রাজ্যের কংগ্রেস নেতৃত্ব। তাঁদের দাবি যে, রাজ্যের শাসকদের কেউ এই বিষয়ে জড়িত না থাকলে এত বড় কেলেঙ্কারি সম্ভব হত না। তবে বিজেপিকে কেলেঙ্কারির মূলে খাঁড়া করানোয় নিজের সপক্ষে পালটা যুক্তি সাজান রাজ্য বিজেপির সভাপতি ড. রাজীব বিন্দল। একটি চিঠি লিখে তিনি জানান যে, করোনা আবহে রাজনীতি করা ভিত্তিহীন। কংগ্রেস নেতৃত্ব এই কেলেঙ্কারিতে বিজেপির নাম জড়িয়ে দলকে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা করছে। তবে বিন্দলের পদত্যাগ করা নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি রাজ্যের কংগ্রেস বিধায়ক মুকেশ অগ্নিহোত্রী। বুধবার বিকেলে হিমাচলের রাজ্য সভাপতির পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেন সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা।

[আরও পড়ুন:প্লাজমা দান করে নজির হাবড়ার মনামীর, ইতিহাসের পাতায় ঢুকে পড়ল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement