১৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শুক্রবার ৩ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

হিন্দির উপর কালির পোচ, তামিলনাডুর বিভিন্ন জায়গায় লেখা মুছে প্রতিবাদে ডিএমকে

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: June 9, 2019 6:09 pm|    Updated: June 10, 2019 9:26 am

Hindi, written in signboards are erased with black ink in Tamil Nadu

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হিন্দি ভাষাকে আবশ্যিক করা নিয়ে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় সবচেয়ে সরব তামিলনাডু৷ ডিএমকে একেবারেই এই সিদ্ধান্ত মেনে নেবে না বলে সাফ জানিয়েছেন৷ সেই বিরোধিতা এতটাই তীব্র যে রাজ্যজুড়ে হিন্দি ভাষায় লেখা যে কোনও বোর্ড থেকে হিন্দি মুছে ফেলা হচ্ছে৷ এমনকী বাদ গেল না তিরুচিরাপল্লি বিমানবন্দরও৷ সেখানে প্রবেশের মুখে হোর্ডিংয়ে হিন্দিতে লেখা নামটিকে কালো কালি দিয়ে মুছে দেওয়া হল৷

[আরও পড়ুন: আলিগড়ের পর উজ্জয়িনী, দুধের শিশুকে ধর্ষণের পর খুন করে নদীতে ভাসাল কাকা]

তিরুচিরাপল্লি বিমানবন্দরের একাধিক জায়গায় এমন কালো কালির দাগ দেখা গিয়েছে৷ শুধু তাই-ই নয়, সে রাজ্যের বিএসএনএল অফিস, পোস্ট অফিসের মতো গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রীয় সরকারি জায়গা থেকেও হিন্দি লেখা কালো কালিতে ঢেকে দেওয়া হয়েছে৷ এনিয়ে ডিএমকে প্রধান স্ট্যালিন স্পষ্টই জানিয়েছেন, ‘যেখানে কেন্দ্র হিন্দি ভাষা সর্বত্র চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে, সেখানে আমাদের রাজ্যের প্রত্যেকের উচিত নিজেদের মতো করে বিরোধিতা করা৷ আর তার প্রতিবাদ হিসেবে এখানকার সব কেন্দ্রীয় সরকারি অফিসে আমরা তামিল ভাষাকে আবশ্যক করতে চাইছি৷’ স্ট্যালিন আরও জানিয়েছেন, হিন্দিকে প্রতিহত করতে যে কোনও রকম আন্দোলন করতে প্রস্তুত তাঁরা৷

দ্বিতীয়বার কেন্দ্রের ক্ষমতায় আসার পর মোদি সরকার জাতীয় শিক্ষানীতির খসড়ায় ঘোষণা করেছিল, মূলত অহিন্দিভাষী রাজ্যগুলিতে হিন্দিকে তৃতীয় ভাষা হিসেবে আবশ্যিক করতে হবে৷ এর বিরুদ্ধে সবচেয়ে আগে ঝাঁপিয়ে পড়ে দক্ষিণ ভারতের রাজ্যগুলি, বিশেষত তামিলনাডু৷ এভাবে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার ভাষা সন্ত্রাস চালিয়ে ভারতের বৈচিত্র্যময় ঐতিহ্য ভাঙতে চাইছে বলে অভিযোগে সরব হয়েছিল ডিএমকে-সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলি৷ হিন্দি বিরোধিতায় সুর মিলিয়েছিল পশ্চিমবঙ্গও৷ দাবি উঠছিল, হিন্দি নয়, বিভিন্ন রাজ্যের আঞ্চলিক ভাষাকে বাড়তি গুরুত্ব দিতে হবে৷ এসবের চাপে পড়ে শিক্ষানীতির খসড়া থেকে হিন্দি আবশ্যিক করার বিষয়টি প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়৷

[আরও পড়ুন: যোগীকে নিয়ে ‘অপমানজনক’ ভিডিও সম্প্রচার, গ্রেপ্তার টিভি চ্যানেলের সম্পাদক]

কিন্তু তা সত্ত্বেও আন্দোলন থামছে না৷ এমনিতেই দক্ষিণ ভারত নিজেদের ঐতিহ্য নিয়ে বরাবরই অত্যন্ত সচেতন৷ বিশেষত ভাষা এবং সংস্কৃতর উপর আঘাতকারী কোনও শক্তিকেই তাঁরা প্রতিহত করতে সক্ষম হয়েছে এযাবৎকাল৷ হিন্দি ভাষা নিয়েও সেই একই পথে এগিয়ে চলছে তাঁরা৷ তারই নিদর্শন দেখা যাচ্ছে তিরুচিরাপল্লি বিমানবন্দর, পোস্ট অফিসের মতো জায়গা থেকে হিন্দি লেখা মুছে দেওয়া৷   

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে