BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

শারীরিক অবস্থার উন্নতি, শীঘ্রই হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেতে চলেছেন অমিত শাহ

Published by: Sulaya Singha |    Posted: August 29, 2020 5:32 pm|    Updated: August 29, 2020 5:32 pm

An Images

ফাইল ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনাকে কুপোকাত করে সুস্থ হওয়ার পরই ফের হাসপাতালে ভরতি হয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। দশদিনেরও বেশি চিকিৎসাধীন থাকার পর আপাতত তিনি অনেকটাই সুস্থ। শীঘ্রই তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া হবে বলে খবর।

চলতি মাসের প্রায় পুরোটাই হাসপাতালে কাটাতে হচ্ছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে। গত ২ আগস্ট টুইট করে অমিত শাহ জানিয়েছিলেন, মারণ করোনা ভাইরাসে (Coronavirus) আক্রান্ত তিনি। চিকিৎসকের পরামর্শে হাসপাতালে ভরতি হয়েছিলেন। তারপর গত ১৪ আগস্ট করোনামুক্ত হওয়ার কথা নিজেই টুইট করে জানান। টুইটারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লেখেন, ‘আজ আমার করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। আমি ঈশ্বরকে অনেক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি এই সময় আমার এবং আমার পরিবারের পাশে থেকে যাঁরা নিয়মিত সাহস জুগিয়েছেন, আমার স্বাস্থ্যের খবরাখবর নিয়েছেন, তাঁদেরও অসংখ্য ধন্যবাদ। আপাতত চিকিৎসকদের পরামর্শে কয়েকদিন হোম আইসোলেশনে থাকব।’’ সেই খবরে গেরুয়া শিবিরে স্বস্তি ফিরলেও তা দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। কারণ তার দিন চারেক পরই ফের অসুস্থ হয়ে পড়েন বিজেপির থিঙ্ক ট্যাঙ্ক।

[আরও পড়ুন: এবার কংগ্রেসের নিশানায় হোয়াটসঅ্যাপ! বিজেপির সঙ্গে আঁতাঁতের অভিযোগে সরব রাহুল]

তাঁকে ভরতি করা হয় দিল্লির এইমসে (AIIMS)। হাসপাতালের তরফে জানানো হয়েছিল, সংক্রমণ থেকে মুক্তি পেলেও এর পরবর্তীতে তাঁর শরীরে কিছু সমস্যা দেখা দিয়েছিল। যেমন, ক্লান্তি, পেশীতে যন্ত্রণা ইত্যাদি। চিকিৎসকদের মতে, কোভিড থেকে সেরে ওঠার পর এমন প্রবণতা অনেকেরই দেখা গিয়েছে। একইরকম সমস্যায় পড়েন অমিত শাহও। তবে আপাতত তিনি অনেকটাই সুস্থ। এইমসের মিডিয়া ও প্রোটোকল বিভাগের চেয়ারপার্সন ডা. আরতি ভিজ শনিবার জানান, কোভিড পরবর্তী চিকিৎসার জন্য এই হাসপাতালে ভরতি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। শীঘ্রই তাঁকে বাড়ি ফেরার অনুমতি দেওয়া হবে। হাসপাতালে বসেও তিনি নিজের প্রশাসনিক কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

[আরও পড়ুন: করোনা পরিস্থিতিতে বকেয়া GST দিতে রাজি, রাজ্যগুলিকে চিঠি দিয়ে জানাল কেন্দ্র]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement