Advertisement
Advertisement

ভারতে পেঁয়াজের দাম বাড়লে লাভ পাকিস্তানের!

তদন্তে অবাক শুল্ক দপ্তর।

How 'artificial' onion crisis created by Indian traders helped Pakistan
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:September 15, 2017 3:25 pm
  • Updated:September 28, 2019 4:54 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পেঁয়াজের দামের ছ্যাঁকা থেকে এখনও মুক্তি নেই। দাম  তিরিশ টাকার ওপরে। কয়েক বছর অন্তর পেঁয়াজের দাম ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যায়। এর কারণ খুঁজতে কেন্দ্রের শুল্ক দপ্তরের কর্মীরা অন্যরকম ব্যাখ্যা পেয়েছেন। তারা বলছেন পেঁয়াজের দাম বাড়লে আখেরে লাভবান হবে পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং শ্রীলঙ্কা। কারণ প্রতিবেশী দেশগুলিতে চোরাপথে পেঁয়াজ পাঠাতেই কৃত্রিমভাবে দাম বাড়ানো হয়।

[কড়া রোদে ২ ঘণ্টা ধরে ঘোরানো হল ৩ বছরের ক্ষুদে ‘কৃষ্ণ’কে!]

Advertisement

তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, গত কয়েক বছর ধরে উপমহাদেশে পেঁয়াজের দাম ক্রমাগত বাড়ছে। এর পিছনে রয়েছে মহারাষ্ট্রের একশ্রেণির ব্যবসায়ী। তাদের বিদেশে পেঁয়াজ পাঠানোর কারণেই এদেশে ঘাটতি দেখা দিচ্ছে। চক্রের খোঁজে দেশের বড় বড় ব্যবসায়ীদের গুদামে হানা দেওয়া হয়। নাসিকের বিভিন্ন পেঁয়াজঘর রীতিমোত ছানবিন করেন তদন্তকারীরা। তাঁরা বলছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম ওঠা-নামার ওপর পেঁয়াজের দাম নির্ভর করে। এবছর তেলের দাম বাড়ছে। পেঁয়াজের দামও ঊর্ধ্বমুখী। নাসিকের বড় বাজার লাসালগাঁও থেকে দিল্লিতে পেঁয়াজ যাওয়ার পর অজ্ঞাত কারণেই ৫০ শতাংশ দাম বেড়ে যায়। এবছরের সেপ্টম্বর মাসে ময়দানে নামে কেন্দ্র। তারপরই পর্দাফাঁস হয়। জানা যাচ্ছে, ২০১০ এবং ২০১৫ সালে একই কায়দায় দাম বাড়ানো হয়েছিল। পেঁয়াজের ঘাটতি এমন জায়গায় পৌঁছেছিল যে কেন্দ্র ইজিপ্ট থেকে পেঁয়াজ আমদানির কথা ভেবেছিল। শুল্ক দপ্তরের অফিসাররা জানিয়েছেন চক্রের যারা মাথা তারা ট্রাকের গতিবিধিও নিয়ন্ত্রণ করে। নাসিকের বাজারে ট্রাকের গতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এর ফলে ট্রাক পেঁয়াজ নিয়ে বেরোতে সমস্যায় পড়ে। যার ধাক্কায় পেঁয়াজের দাম আপনাআপনি বেড়ে যায়। পাশাপাশি কৃত্রিমভাবে পেঁয়াজে মজুত করে ফাটকা চলে সমানভাবে। তদন্তকারীদের কথায় পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণ করতেও সক্রিয় কয়েকটি চক্র। যারা ঠিক দেয় উত্তর পূর্বে পেঁয়াজ বিকোবে ২৭ টাকা প্রতি কেজিতে, বাকি ভারতে দাম হবে প্রতি কেজি ২৫ টাকা। এদের হাতযশে পেঁয়াজের দাম ৫০০ টাকা থেকে  কুইন্টাল প্রতি দ্রুত ১৫০০ টাকায় পৌঁছে যায়। নাসিকের বিভিন্ন জায়গা থেকে ইতিমধ্যেই ২০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের থেকে মিলেছে এসব তথ্য।

Advertisement

[বাল্মিকীদের বয়কট নাপিতদের, অস্পৃশ্যতা প্রশ্নে তোলপাড় যোগীর রাজ্য]

তবে ফাটকবাজি নয়, এবছরের প্রকৃতিও কিছুটা পেঁয়াজের দাম বাড়ার পিছনে দায়ী। নাসিকের টানা বৃষ্টিতে ফসলের ক্ষতি হয়। কালোবাজারিরা এই পরিস্থিতির অপেক্ষায় থাকে। ঝোপ বুঝে কোপ মেরে পেঁয়াজের দাম ধরাছোঁয়ার বাইরে তুলে দেয়। দাম স্বাভাবিক হলে জাদু দেখানোর সুযোগ থাকে না।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ