BREAKING NEWS

২৮ আষাঢ়  ১৪২৭  বুধবার ১৫ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

‘আমার জন্য বিশেষ ছাড় আছে’, কোয়ারেন্টাইনে না গিয়ে আজব যুক্তি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: May 26, 2020 11:50 am|    Updated: May 26, 2020 11:50 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মন্ত্রী বলে কি সব নিয়মের উর্দ্ধে? সাধারণ মানুষ ও মন্ত্রীদের জন্য আলাদা নিয়ম দেশে? বিবিধের মাঝে মিলনমহানে একি মন্তব্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর! দিল্লি থেকে বেঙ্গালুরু ফিরে কোয়ারেন্টাইনে যাওয়ার পরিবর্তে নিজের সপক্ষে সাফাই দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সদানন্দ গৌড়া।

শিব ঠাকুরের আপন দেশে আইনকানুন সর্বনেশে। সেই চিত্রই বেঙ্গালুরুতে (Bengaluru)। সোমবার দিল্লি থেকে বিমানে বেঙ্গালুরুতে যান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সদানন্দ গৌড়া। কেন্দ্রের নিয়মাবলীকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে তিনি গেলেন না কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে। বিমানবন্দরে নেমে সদানন্দ গৌড়া সরাসরি নিজের গাড়িতে ওঠেন। সোমবারই এই নিয়ে বিতর্ক দানা বাঁধলেও সেই বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দিতে নারাজ তিনি। মন্ত্রী পদে আসীন সদানন্দ গৌড়, তাই নাকি ছাড় পেয়েছেন। বিতর্ককে ধামা চাপা দিতে এমনই মন্তব্য করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। সদানন্দ গৌড়ার দাবি, “সরকারের নির্দেশিকায় কিছু কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রী হিসাবে আমাকে রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকার ছাড় দেয়। সুতরাং বিষয়টি নিয়ে হইচই করার কিছু নেই। তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের ফার্মাসিউটিক্যাল ডিপার্টমেন্টের দায়িত্বে আছেন। সর্বত্র যাতে ওষুধ ঠিকমতো পৌঁছায়, তা দেখা তাঁর কর্তব্য। তিনি যদি ঠিকমতো ওষুধ সরবরাহ করতে না পারেন, তাহলে করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে দ্বিগুন হবে। চিকিৎসক, ওষুধ সরবরাহকারীরা কোয়ারান্টাইনে চলে গেলে, রোগের চিকিৎসা হবে কী করে।” কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে ঘিরে এই বিতর্ককে ঠান্ডা করতে মন্ত্রীর সপক্ষেই যুক্তি খাঁড়া করে কর্নাটক সরকার। জানায় যে, কোয়ারেন্টাইনে যাওয়ার ক্ষেত্রেও কেন্দ্রে বেশ কিছু ছাড় দিয়েছে। যে ব্যক্তিরা গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরের শীর্ষে রয়েছেন তাঁদের জন্য ছাড় রয়েছে।

[আরও পড়ুন:WHO’র নিষেধাজ্ঞাকে থোড়াই কেয়ার! হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের ব্যবহার জারি রাখছে ব্রাজিল]

দেশের অভ্যন্তরে বিমান চলাচল শুরু হওয়ার পরে যাত্রীদের সম্পর্কে নির্দেশিকা জারি করেছে কর্নাটক সরকার। তাতে বলা হয়েছে, মহারাষ্ট্র, দিল্লি, গুজরাত ও তামিলনাড়ুর মতো যে রাজ্যগুলিতে করোনার সংক্রমণ বেশি হয়েছে, সেখান থেকে বিমানে কোনও যাত্রী এলে তাঁকে বাধ্যতামূলকভাবে সাতদিন সরকারি কোয়ারান্টাইন সেন্টারে থাকতে হবে। পরে আরও সাতদিন থাকতে হবে হোম কোয়ারান্টাইনে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অবশ্য পরে জানান যে, তিনি মোবাইলে আরোগ্য সেতু অ্যাপও ডাউনলোড করেছেন। তবে কোয়ারেন্টাইনে না গিয়ে মন্ত্রী পদে আসীন থাকার জন্য সদানন্দ গৌড় সর্বসমক্ষে যতই সোচ্চার হোন না কেন। সোমবার থেকেই কোয়ারেন্টাইনে যাওয়া নিয়ে যে বিতর্ক তাঁকে ঘিরে শুরু হয়েছে, তাঁর অকাট্য যুক্তি সেই আগুনেই ঘৃতাহুতি দিয়েছে। এখন দেখার জল কতদূর গড়ায়।

[আরও পড়ুন:করোনা আবহেই দ্বিতীয় মোদি সরকারের প্রথম বর্ষপূর্তি, সেলিব্রেশনে ‘এলাহি’ আয়োজন বিজেপির]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement