BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সমস্যা সেই গালওয়ান উপত্যকা নিয়েই, ফের আলোচনায় ভারত-চিন সেনা কর্তারা

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: June 15, 2020 4:05 pm|    Updated: June 15, 2020 4:05 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লাদাখ সীমান্তে সংঘাত এড়াতে ফের বৈঠকে ভারত ও চিনের সেনা কর্তারা। সোমবার গালওয়ান (Galwan) ও হট স্প্রিং (Hot Spring) এলাকা নিয়ে বিবাদ মেটাতে ব্রিগেডিয়ার ও ব্যাটালিয়ন কমান্ডার স্তরে আলোচনা হয় দু’পক্ষের মধ্যে।

[আরও পড়ুন: ভারত-নেপাল সীমান্তে রহস্যজনকভাবে লোপাট বর্ডার পিলার, চাঞ্চল্যকর তথ্য দিল SSB]

সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, লাদাখে (Ladakh) সংঘর্ষের একাধিক কেন্দ্রবিন্দু থেকে ফৌজ সরিয়েছে চিন। পালটা ভারতও কিছু সংখ্যক সেনা প্রত্যাহার করে শান্তির বার্তা দিয়েছে। তবে গালওয়ান ও হট স্প্রিং এলাকায় সেনা মোতায়েন নিয়ে এখনও দু’দেশের মধ্যে বিবাদ মেটেনি। যদিও জুনের ৬ তারিখ দু’দেশের মধ্যে হওয়ায় মেজর জেনারেল স্তরের বৈঠকের পর নতুন করে আর কোনও সংঘাতে জড়ায়নি দুই বাহিনীর জওয়ানরা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে এদিন মুখোমুখি বৈঠকে বসেন দুই ফৌজের সামরিক কর্তারা। এছাড়া নিয়মিত হট লাইনে আলোচনা চলছে বলেও খবর।

পূর্ব লাদাখে সীমা বিবাদ নিয়ে সরাসরি সংঘাতের রাস্তায় না হেঁটে কূটনৈতিক তথা সামরিক স্তরে আলোচনার মাধ্যমে বিবাদ মিটিয়ে নেওয়ার পক্ষে আগেই মত দিয়েছে নয়াদিল্লি (New Delhi) ও বেজিং (Bejing)। কিন্তু আলোচনার কথা বললেও প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছেই ভারি মাত্রায় ফৌজ ও সাঁজোয়া গাড়ি, কামান মোতায়েন রেখেছে লাল ফৌজ। আপাতদৃষ্টিতে সেগুলি আত্মরক্ষার জন্য মনে হলেও, যে কোনও মুহূর্তে হামলা চালাতে সক্ষম ওই বাহিনী। ফলে কোনও ঝুঁকি নিতে চাইছে না ভারতীয় সেনা। তাই কূটনৈতিক ও সামরিক স্তরে আলোচনা চললেও ফৌজকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র। এমনকী, হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, সিকিম ও অরুণাচল প্রদেশে চিন সীমান্তে সৈন্য সংখ্যা বাড়িয়ে তুলেছে নয়াদিল্লি। কারণ ভারতের সঙ্গে ৪ হাজার কিলোমিটার লম্বা প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর ফৌজ মোতায়েন করেছে বেজিং। 

[আরও পড়ুন: ‘নেপাল ও ভারতের সম্পর্ক অবিচ্ছেদ্য, আলোচনাতেই ভুল বোঝাবুঝির অবসান হবে’, বলছেন রাজনাথ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement