৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

গত ৬ মাসে চিন সীমান্ত দিয়ে একজনও অনুপ্রবেশ করেনি, সংসদে সাফ জানাল কেন্দ্র

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: September 16, 2020 11:47 am|    Updated: September 16, 2020 11:47 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত ৬ মাসের মধ্যে চিন সীমান্ত দিয়ে একজনও ভারতে অনুপ্রবেশ (Chinese infiltration ) করেনি। সংসদে এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই একথা জানিয়েছেন। অর্থাৎ কেন্দ্র স্পষ্ট করে দিল, চিন সীমান্ত দিয়ে লুকিয়ে কেউ ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছে না। তবে তার মানে এই নয় যে, চিনা সেনা ভারতের বিরুদ্ধে আগ্রাসন দেখায়নি বা ভারতের জমি দখলের চেষ্টা করেনি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক বলছে, অনুপ্রবেশ আর আগ্রাসন এক নয়।

সেই ফেব্রুয়ারির শেষ থেকেই পূর্ব লাদাখে ভারত ও চিনের মধ্যে যুদ্ধ পরিস্থিতির (India-China Standoff ) সৃষ্টি হয়েছে। একাধিকবার একপেশেভাবে সীমান্তে স্থিতাবস্থা বদলানোর চেষ্টা করেছে চিন। অনেকাংশে সফলও হয়েছে। স্বাভাবিকভাবে প্রশ্ন উঠতেই পারে, এই ৬ মাসে ভারতের মাটিতে চিন সীমান্ত দিয়ে কেউ অনুপ্রবেশ করেছে কিনা। সংসদে চিনা অনুপ্রবেশ সংক্রান্ত প্রশ্নটি করেছিলেন বিজেপিরই সাংসদ অনিল আগরওয়াল। তাঁর প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়েছে,”গত ৬ মাসে চিন সীমান্তে একজনও অনুপ্রবেশ করেনি।” যদিও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক স্পষ্ট করে দিয়েছে, অনুপ্রবেশ আর আগ্রাসনের মধ্যে গুলিয়ে ফেললে চলবে না। অর্থাৎ গত ৬ মাসে চিন সীমান্তে অনুপ্রবেশ হয়নি, সেটা স্পষ্ট বললেও, চিনারা যে ভারতের জমি দখল করেনি, সেটা স্পষ্ট করে বলছে না কেন্দ্র। আর সেখানেই প্রশ্ন বিরোধীদের। উল্লেখ্য, বিরোধী শিবির ইতিমধ্যেই সংসদে লাদাখ নিয়ে আলোচনা চেয়েছে। কিন্তু কেন্দ্র তাতে রাজি হয়নি।

[আরও পড়ুন: পর্বতের মূষিক প্রসব! বলিউডের মাদক যোগের স্পষ্ট প্রমাণ মেলেনি, সংসদে জানাল কেন্দ্র]

এদিকে ২৯-৩০ আগস্টের পরও চিন প্যাংগং হ্রদের কাছে অশান্তি বাঁধানোর চেষ্টা করেছে। সূত্রের খবর, এমাসের শুরুর দিকেই প্যাংগং হ্রদের (Pangong Lake) উত্তর পাড়ে ভারতীয় সেনার থেকে দূরত্ব কমানোর চেষ্টা করেছিল চিন। চিনা সেনাকে কাছে আসতে দেখে বাধা দেয় ভারত। সেদিন দু’তরফ থেকেই শূন্যে ১০০-২০০ রাউন্ড গুলি চলেছে দাবি সূত্রের। ভারত-চিন সীমান্তে গুলি চলার এই ঘটনা একেবারে বিরল। যদিও সরকারিভাবে এ নিয়ে এখনও কিছু জানায়নি দু’দেশের সেনা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement