২০ ফাল্গুন  ১৪২৭  শুক্রবার ৫ মার্চ ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ফের বৈঠকে ভারত-চিন, এবার দেপসাং-গোগরায় সংঘাত মেটাতে আলোচনা!

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: February 19, 2021 3:17 pm|    Updated: February 19, 2021 3:40 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সীমান্ত সমস্যা নিয়ে ফের বৈঠকে বসতে চলেছে ভারত (India)-চিন (China। শনিবার চুশুল সেক্টরে নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে মলডোতে আলোচনা হবে দুই দেশের সেনা আধিকারিকদের মধ্যে। সকাল দশটা থেকে শুরু হবে দশম দফার বৈঠকটি। উপস্থিত থাকবেন দু’দেশের সেনার শীর্ষ আধিকারিকরা। প্যাংগং হ্রদের (Pangong Tso) উত্তর এবং দক্ষিণ অংশ থেকে সেনা সরানোর পর সীমান্তের অন্য যে জায়গাগুলো নিয়ে ভারত-চিনের বিবাদ রয়েছে, বৈঠকে সেগুলো নিয়ে আলোচনা করা হবে বলে খবর। এর মধ্যে রয়েছে দেপসাং সমতল (Depsang) এবং গোগরা-হট স্প্রিং (Hotsprings-Gogra) এলাকা।

এর আগে প্যাংগং হ্রদ নিয়ে দীর্ঘদিন বিবাদ চলে ভারত-চিনের। দু’দেশের মধ্যে ৯ দফা আলোচনার পর সম্প্রতি সেনা প্রত্যাহার শুরু করে দু’দেশ। ভারতীয় সেনা সূত্রে খবর, গত বুধবার সকাল ন‘টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ন’টার মধ্যে পিপলস লিবারেশন আর্মি তাদের বিপুল সংখ্যক সেনা, শয়ে শয়ে ট্যাঙ্ক ও সাঁজোয়া গাড়ি, হাউৎজার সরিয়ে নিয়েছে। প্যাংগং হ্রদ লাগোয়া আট নম্বর ফিঙ্গার পয়েন্টের কাছে সরানো হয়েছে চিনের সব ট্যাঙ্ক, হাউৎজার কামান। তবে পরিস্থিতির উপর প্রতি মুহূর্তে কড়া নজর রাখছে ভারতীয় সেনার উপরমহল। সেই মতো পদক্ষেপ ও কৌশল বদলাচ্ছেন তাঁরাও। আর প্যাংগংয়ের পরই এবার অন্যান্য বিবদমান এলাকা নিয়ে আলোচনায় বসতে চলেছে দু’দেশ।

[আরও পড়ুন: আবারও খুনের হুমকি মালালাকে! ইমরান ও পাক সেনাকে কাঠগড়ায় তুললেন ক্ষুব্ধ নোবেলজয়ী]

চিনের সঙ্গে প্রায় সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার সীমান্ত (LAC) ভাগ করে নিয়েছে ভারত। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার বেশ কিছু জায়গায় ভারতের জমি দখল করে রেখেছে চিনা বাহিনী। কিন্তু সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র প্যাংগং হ্রদ সংলগ্ন এলকাতেই সীমিত রয়েছে। লাদাখের দেপসাং সমতল, গোগরা-হটস্প্রিং নিয়ে কোনও আলোচনাই হয়নি। এবার সেই নিয়েই আলোচনায় বসবেন চিন-ভারতের সেনা আধিকারিকরা।

তাৎপর্যপূর্ণভাবে, চিনের সঙ্গে দর কষাকষিতে ভারতের তুরুপের তাস ছিল প্যাংগং। কারণ, ২০২০ সালের আগস্ট মাসে ওই হ্রদের দক্ষিণে কৈলাস রেঞ্জে গুরুত্বপূর্ণ পাহাড় চূড়া দখল করে নেয় ভারতীয় ফৌজ। ফলে চুশুল সেক্টরে রীতিমতো বেকায়দায় পড়ে যায় লালফৌজ। এই অবস্থান কাজে লাগিয়ে দেপসাংয়ে নিজের অবস্থান মজবুত করতে পারত নয়াদিল্লি। কিন্তু তেমনটা করা হয়নি। ফলে প্যাংগং থেকে ভারতীয় ফৌজকে সরিয়ে দিতে পারলেও নিজেদের অবস্থান থেকে কিছুতেই সরবে না চিনা বাহিনী। এমনটাই মত বিশেষজ্ঞদের।

[আরও পড়ুন: কূটনৈতিক মঞ্চে ধাক্কা খেল পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্টে বাতিল ইমরানের বক্তৃতা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement