BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

বিশ্বের সর্বত্র সেনা মোতায়েনে মার্কিন সাহায্য পাবে ভারত

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 17, 2016 12:09 pm|    Updated: June 17, 2016 12:09 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতের সঙ্গে সামরিক সহযোগিতা বাড়াতে সবুজ সংকেত দিল মার্কিন সেনেট৷ চলতি সপ্তাহের প্রথম দিকেই ৮৫-১৩ ভোটে মার্কিন সেনেট পাস করে ন্যাশনাল ডিফেন্স অথরাইজেশন অ্যাক্ট- ২০১৭ আইনটি৷ এই আইনেরই অঙ্গ হিসাবে সেনেট অনুমোদন দেয় ভারতের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সামরিক আদান-প্রদানকে৷ মার্কিন সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ভারত-ঘনিষ্ঠ মার্কিন সেনেটরদের ভারতপন্থী লবি ইন্ডিয়া ককাসের সদস্যরা অতি সক্রিয় হয়ে বিলটি পাস করেছেন৷ ভারতপন্থী মার্কিন সেনটেরদের মধ্যে আছেন রিপাবলিকান, এমনকী ডেমোক্র্যাটরাও৷ এঁরা হলেন, জন সুলিভান, জন কর্নি, মার্ক ওয়ার্নার, মার্ক কির্ক৷ এই সামরিক আঁতাঁত ও চুক্তি অনুসারে দুই দেশ যৌথভাবে সব সামরিক সিদ্ধান্ত নেবে৷ নিজেদের মতো করে সামরিক নীতি, কৌশলগত নকশা, বিশ্বের যে কোনও প্রান্তে সেনা ও সমরাস্ত্র মোতায়েন, গোয়েন্দা তথ্য আদানপ্রদান ও বিশ্লেষণ, নীতি, প্রযুক্তি ও সেনা দিয়ে একে অপরকে সাহায্য, রসদ, পরিবহণ ও জ্বালানি দিয়ে একে অপরকে সাহায্য ইত্যাদি৷

বিল পাস করে মার্কিন সেনেট প্রতিরক্ষা সচিবকে নির্দেশ দিয়েছে, ভারত ও আমেরিকার মধ্যে ঘন ঘন যৌথ সেনা মহড়া, নৌ-মহড়া, সন্ত্রাস দমন অভিযানের অনুশীলন ও সামরিক বৈঠক করতে হবে৷ আমেরিকা মনে করে এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় সামরিক ও বাণিজ্যিক আধিপত্য বজায় রাখতে গেলে নিয়মিত সামরিক মহড়া ছাড়া উপায় নেই৷ সেনেটের পর হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভও ভারতের সঙ্গে সামরিক আতাঁত সংক্রান্ত বিলটি পত্রপাঠ অনুমোদন করে দেয়৷ এখন এটি প্রেসিডেণ্ট ওবামার কাছে পাঠানো হয়েছে চূড়ান্ত স্বাক্ষরের জন্য অনুমোদিত হতে৷ সেনেট আর্মড সার্ভিসেস কমিটির চেয়ারম্যান জন ম্যাককেন ভারতকে আমেরিকার স্থায়ী গুরুত্বপূর্ণ সামরিক সঙ্গী হিসাবে বর্ণনা করেছেন৷ মার্কিন সেনেটরদের মতে, এই সামরিক আতাঁতের ফলে ভারত ও আমেরিকা দুই দেশই ভীষণভাবে উপকৃত হবে৷ তবে ভারতকে ‘স্পেশাল স্ট্যাটাস’ বা বিশেষ মর্যাদা দেওয়ার কথা আমেরিকা এখনই ভাবছে না বলে যে খবর প্রকাশিত হয়েছে তা উড়িয়ে দিয়েছে ভারত৷

বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ জানিয়েছেন, সংবাদমাধ্যমে গোটাটাই শব্দের খেলা চলছে৷ জানা গিয়েছে, আমেরিকা ভারতকে ‘আন্তর্জাতিক কৌশলগত ও প্রতিরক্ষা সঙ্গী’ করতে রাজি নয়৷ তার বদলে আমেরিকা ভারতকে তার ‘প্রধান সামরিক সঙ্গী’ করতে চাইছে৷ কিন্তু এখনই এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করাটা বা সিদ্ধান্তে আসাটা অপরিণত কাজ হবে৷ ভারত সেটা করবে না৷ কারণ ভবিষ্যতের কর্মসূচি গোটাটাই এখন আলাপ আলোচনার পর্যায়ে রয়েছে৷ তাছাড়া আমেরিকা এনএসজি-তে ভারতকে অন্তর্ভুক্ত করতে দায়বদ্ধ বলে জানিয়েছে৷ এই অবস্থায় ভারত কৌশলগতভাবে বন্ধু আমেরিকার কাছ থেকে যা সাহায্য পাচ্ছে তাতে খুবই খুশি৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement