BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

কাশ্মীর নিয়ে মধ্যস্থতার ইচ্ছাপ্রকাশ রাষ্ট্রসংঘের, পত্রপাঠ প্রস্তাব ফেরাল ভারত

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: February 17, 2020 12:38 pm|    Updated: February 17, 2020 12:38 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কাশ্মীর নিয়ে রাষ্ট্রসংঘের মধ্যস্থতার প্রস্তাব ফের খারিজ করে দিল ভারত। রবিবার রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেজের এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে ভারত সাফ জানায়, কাশ্মীর নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্থতার কথা না ভেবে বরং পাক অধিকৃত অঞ্চলগুলি কীভাবে উদ্ধার করে ভারতের হাতে তুলে দেওয়া যায়, সেই বিষয়ে ভাবা প্রয়োজন।

এই প্রথম নয়, ৩৭০ ধারা বিলোপের পর থেকেই কাশ্মীর নিয়ে বারবার রাষ্ট্রসংঘের দ্বারস্থ হয়েছে পাকিস্তান। বহুবার মধ্যস্থতা করার প্রস্তাব দেওয়া হয় রাষ্ট্রসংঘের তরফ থেকে। তখনও বিদেশমন্ত্রক এই প্রস্তাবকে খারিজ করে দিয়েছিল। জানানো হয়েছি, ‘কাশ্মীর ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়।  এ নিয়ে তৃতীয় পক্ষের কোনও রকম মধ্যস্থতার প্রয়োজন নেই।’ তা সত্ত্বেও কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে প্রয়োজনে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দেন রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব। 

বর্তমানে ৪ দিনের পাকিস্তান সফরে রয়েছেন মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেজ। সেখান থেকেই তাঁর এই প্রস্তাব। পাক সফর চলাকালীন ইসলামাবাদে পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশির সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। বৈঠক শেষে এক বিবৃতিতে জম্মু-কাশ্মীর পরিস্থিতি এবং নিয়ন্ত্রণ রেখায় সাম্প্রতিক অশান্তি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করতে দেখা যায় রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিবকে।

[আরও পড়ুন: ট্রাম্পের সফরে সন্ত্রাসের ছায়া, ভারতকে রক্তাক্ত করার হুমকি জইশের]

তবে আন্তোনিও গুতারেজের এই প্রস্তাব সরাসরি খারিজ করে দিয়ে বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার জানান, ‘কাশ্মীর নিয়ে ভারত নিজের অবস্থান থেকে সরে আসেনি। প্রয়োজনে তারা দ্বিপাক্ষিক আলোচনা করবে।তাই বর্তমানে হোক বা ভবিষ্যতে কাশ্মীর নিয়ে কোনওরকম তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপের সুযোগ দেওয়া হবে না।’ 

[আরও পড়ুন:ফের দিল্লির রাস্তায় শুট আউট, পুলিশের গুলিতে খতম দুই দুষ্কৃতী  ]

ভারত-পাকিস্তান সম্পর্কে সবসময়ই চাপানউতোর থাকলেও গত বছর থেকে এই সম্পর্ক তলানিতে ঠেকে পুলওয়ামায় সেনা কনভয়ে জঙ্গিদের নিন্দনীয় হামলার পর। রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতারেজ বলেন, ‘ভারত ও পাকিস্তান দুই দেশেরই উচিত নিজেদের সামরিক উত্তেজনা হ্রাস করে কাশ্মীর ইস্যুতে সর্বাধিক সংযম প্রদর্শন করা।’ তাঁর আরও বক্তব্য,’ রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবের সঙ্গে মিল রেখে সমাধানের লক্ষ্যে এখন শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষার একমাত্র উপায় কূটনৈতিক আলোচনা এবং পারস্পরিক কথোপকথন।’  

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement