BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘অর্থনীতির হাল ফেরাতে জরুরি আর্থিক প্যাকেজের ঘোষণা’, রাহুলকে পরামর্শ নোবেলজয়ী অভিজিতের

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: May 5, 2020 9:56 am|    Updated: May 5, 2020 9:59 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লকডাউনের পরবর্তী পরিস্থিতি কি? কীভাবে লকডাউনের পর দেশের অর্থনীতিতে সহাবস্থানে ফিরিয়ে আনা সম্ভব? এই প্রশ্ন ঘুরছে সকলের মুখে। তাই সেই বিষয় নিয়ে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর সঙ্গে আলোচনায় বসেন নোবেল জয়ী (Nobel Laureate ) অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhijit Banerjee)। আজ সকাল ৯ টায় অর্থনীতি সংক্রান্ত সেই আলোচনার ভিডিও পোস্ট করা হয়।

দেশজোড়া লকডাউনে মার খাচ্ছে অর্থনীতি। ধসের মুখে দেশের সার্বিক উন্নয়নের গ্রাফ। ফলে দিনের পর দিন চিন্তার ভাঁজ আরও চওড়া হচ্ছে অর্থনীতিবিদদের কাপলে। এমতাবস্থায় দেশকে পথ দেখাতে আলোচনায় বসেন নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় ও কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। লকডাউনের জেরে দারিদ্র মোকাবিলার বড় চ্যালেঞ্জ বলে জানান নোবেল জয়ী। তাঁর মতে, “ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের জন্য প্যাকেজের ব্যবস্থা হোক। পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য পরিকল্পনা করতে হবে। শ্রমিকদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট করা জরুরি। অনেকেই হাতে টাকা পাচ্ছেন না। তাই তাদের অ্যাকাউন্টের মাধ্যেমে টাকা পাঠাতে হবে। বর্তমান পরিস্থিতিতে খাদ্যই সকলের জন্য বড় ইস্যু। তাই প্রত্যেক ৩ মাসের জন্য সাময়িক রেশন কার্ড। দেশে সবার কাছে রেশন কার্ড নেই। এই পরিস্থিতিতে সবাই যাতে রেশন পান সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।”
তবে যে সিদ্ধান্তই নেওয়া হোক না কেন, তাতে তাড়াহুড়ো করা না পসন্দ নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদের। তাই তাঁর আসল প্রশ্ন হল এতকিছু করেও কি অর্থনীতি কি ঘুরে দাঁড়াবে? সেক্ষেত্রে কেন্দ্রকে বেশ কিছু বিষয়ে দায়িত্ব নেওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন তিনি। যেমন, পরিযায়ী শ্রমিকদের ভিন রাজ্য থেকে ফেরানোর দায়িত্ব কেন্দ্রের বলে জানান তিনি। যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামো ঠিক করার দায়ভারও কেন্দ্রেও উপরেই বর্তেছেন তিনি।

[আরও পড়ুন:‘নিজেদের টাকাতেই কিনতে হয়েছে টিকিট’, দাবি গুজরাট ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকদের]

লকডাউনের প্রথম পর্ব থেকেই দেশের অর্থনীতির বেহাল দশা নিয়ে বার বার সোচ্চার হয়েছিলেন সোনিয়া পুত্র রাহুল গান্ধী। বেশ কয়েকবার ভিডিও কনফারেন্স করে অর্থনীতি ঘাটতি কমাতে কেন্দ্রকে বেশ কিছু পরামর্শ দেন। কিছুদিন আগেও তিনি রিজার্ভ ব্যাংকের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজনের সঙ্গেও এই বিষয়ে কথা বলেন। তবে এখন দেখান তাঁদের এই আলোচনায় কেন্দ্র কতটা আলোকপাত করে।

[আরও পড়ুন:রেশনের সঙ্গে দিন নগদ ৩ হাজার টাকা, মুখ্যমন্ত্রীকে খোলা চিঠি দিলীপের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement