১১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  সোমবার ২৫ মে ২০২০ 

Advertisement

লকডাউনের পর যাত্রা হলেই করা যাবে টিকিট সংরক্ষণ? জেনে নিন কী বলছে রেল

Published by: Sayani Sen |    Posted: April 2, 2020 6:03 pm|    Updated: April 2, 2020 6:13 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লকডাউন পরবর্তী সময়ে রেলের টিকিট বুকিং সংক্রান্ত কোনও নির্দেশিকা জারি করা হয়নি। তাই নতুন করে ফের বিজ্ঞপ্তি জারির প্রয়োজনীয়তাও নেই। কিছু কিছু সংবাদমাধ্যমে এ সংক্রান্ত ভুল খবর প্রকাশিত কিংবা প্রচারিত হয়েছিল। বৃহস্পতিবার টুইট করে দূরপাল্লার ট্রেনের টিকিং সংরক্ষণ নিয়ে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করল ভারতীয় রেলমন্ত্রক। 

কিছু কিছু সংবাদমাধ্যমে একটি প্রতিবেদন ছড়িয়ে পড়ে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, লকডাউন পরবর্তী সময়ের দূরপাল্লার ট্রেনের সংরক্ষণ শুরু হচ্ছে। তার বিরোধিতা করেই বৃহস্পতিবার একটি টুইট করে রেলমন্ত্রক।  ওই টুইটে রেলমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়, “বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত বা প্রচারিত হয় লকডাউন পরবর্তী সময়ে ট্রেনের টিকিট সংরক্ষণ চালুর বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে রেল। যদিও এর কোনও সত্যতা নেই। কারণ, দূরপাল্লার ট্রেনের টিকিট সংরক্ষণ করা যায় যাত্রার ১২০ দিন আগেই। তাই সেক্ষেত্রে লকডাউন পরবর্তী সময়ে ট্রেনের টিকিটের সংরক্ষণ কখনই বন্ধ করা হয়নি। লকডাউন পরবর্তী সময়ে সংরক্ষণ সবসময়ই চালু রয়েছে। তবে লকডাউন চলাকালীন ১৪ এপ্রিলের মধ্যে যাত্রার দিন হলে সেক্ষেত্রে কোনও ট্রেনের টিকিট বুকিং করা যাবে না। কারণ, লকডাউনের জেরে দেশজুড়ে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত লোকাল, প্যাসেঞ্জার, এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে।”

করোনা সংক্রমণ রুখতে আচমকাই লকডাউনের কথা ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার। বন্ধ করে দেওয়া হয় সমস্ত রকমের গণপরিবহণ। স্তব্ধ ভারতীয় রেল পরিষেবা। বন্ধ রয়েছে দেশের প্রত্যেকটি শাখার লোকাল, প্যাসেঞ্জার এবং এক্সপ্রেস ট্রেন। শুধুমাত্র নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর জোগান ঠিক রাখতে চলছে মালগাড়ি।তাই ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত যে সমস্ত যাত্রীরা দূরপাল্লার ট্রেনের টিকিং বুকিং করেছিলেন, তাঁদের বাতিল করে দিতে হয়েছে। টিকিট বাতিল হওয়ার ফলে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকাও ফেরত পাবেন গ্রাহকরা।  

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement