৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

স্বাধীনতার সাত দশক পর বিদ্যুৎ পৌঁছল কাশ্মীরের এই প্রত্যন্ত এলাকায়

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: August 27, 2020 2:02 pm|    Updated: August 27, 2020 2:02 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: স্বাধীনতার ৭৪ বছর পর অবশেষে বিদ্যুৎ পৌঁছল জম্মু-কাশ্মীরের কুপওয়ারা জেলার মাছিল সেক্টরে। সীমান্তবর্তী অঞ্চলে পরিকাঠামো মজবুত করার কেন্দ্রের নির্দেশের পর অবশেষে স্থায়ী বিদ্যুতের লাইন স্থাপন হয়েছে ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে (LoC) অবস্থিত এই এলাকাটিতে।

[আরও পড়ুন: লাদাখে সংঘর্ষের আবহেই চিনা ফৌজের সঙ্গে যৌথ মহড়ায় ভারতীয় সেনা]

স্বাধীনতার ৭৪ বছর পূর্ণ হলেও কেন্দ্রশাসিত জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের বহু প্রত্যন্ত অঞ্চলে এখনও বিদ্যুৎ সংযোগ নেই। অভাব রয়েছে সড়ক, হাসপাতাল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মতো ন্যূনতম পরিকাঠামোর। সেই ঘাটতি পূরণ করতে এবার বদ্ধপরিকর কেন্দ্র সরকার। দিন কয়েক আগেই স্বাধীনতা দিবসে বিদ্যুত্‍ পৌঁছেছিল কুপওয়ারার কেরান সেক্টরে। এবার স্থায়ী সংযোগ পেল মাছিলও। এতদিন পর্যন্ত কেরনের মতোই মাছিল সেক্টরের ২০টি গ্রামে ডিজেল জেনারেটর বসিয়ে বিদ্যুত্‍ সংযোগের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্তু তাতে সমস্ত চাহিদা পূরণ সম্ভব ছিল না। কিন্তু এবার এবার সেখানে ইলেকট্রিসিটি গ্রিড বসানো হয়েছে। ফলে ২৪ ঘণ্টার বিদ্যুত্‍ পরিষেবার আওতায় চলে এসেছে গ্রামগুলি।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জম্মু-কাশ্মীরের বিদ্যুত্‍ বিভাগের সচিব রোহিত কানসাল বলেন, “স্বাধীনতা দিবসে কেরন সেক্টরে বিদ্যুৎ সংযোগ পৌঁছেছে। এবার মাছিলও পরিষেবা পেল। আমরা আশা করছি আগামী দিনে সমস্ত জায়গায় স্থায়ীভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ পৌঁছে দিতে পারব আমরা।”

দেশের দেশের উত্তর সীমান্তে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর অবস্থিত শেষ সেক্টর হল মাছিল। পরিবেশগত কারণে পাহাড়ি অঞ্চলটিতে বিদ্যুতের খুঁটি বসাতে নানা সমস্যার সৃষ্টি হয়। কিন্তু তা সত্বেও ইতিমধ্যেই মাছিলের ৯টি গ্রামে ইলেকট্রিসিটি গ্রিডের মাধ্যমে বিদ্যুত্‍ পৌঁছে দেওয়ার কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই বাকি গ্রামগুলিতেও বিদ্যুত্‍ পৌঁছে যাবে বলে জানিয়েছেন কুপওয়ারার জেলাশাসক অনশুল গর্গ। এর ফলে এই মাছিল সেক্টরে বসবাসকারী ২৫ হাজার মানুষ উপকৃত হবেন।

[আরও পড়ুন: দক্ষিণ চিন সাগরে মার্কিন নজরদারি বিমান, হুঁশিয়ারি দিয়ে মিসাইল ছুঁড়ল লালফৌজ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement