৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যোগীরাজ্যে ফের বাড়ছে দুষ্কৃতী দৌরাত্ম্য। ক্ষমতায় আসার পরই কুখ্যাত দুষ্কৃতীদের এনকাউন্টারে জোর দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ শুনিয়েছিলেন দুষ্কৃতীদের থেকে পুলিশকর্মীর সংখ্যা কম তত্ত্ব। বলেছিলেন, সে কারণেই নাকি সরাসরি এনকাউন্টার করে অপরাধীদের সংখ্যা কমিয়ে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সেই প্রচেষ্টা যে সফল হয়নি, তা ফের প্রমাণ হল।দিনদুপুরে বাড়িতে ঢুকে গুলি চালিয়ে খুন করা হল এক সাংবাদিক ও তাঁর ভাইকে। রবিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের সাহারানপুরে। মৃত সাংবাদিক আশিস জানওয়ানি ও তাঁর ভাই আশুতোষ জানওয়ানি।

[আরও পড়ুন: ছাদ চুঁইয়ে জল থইথই শতাব্দী এক্সপ্রেসের কামরা, রেনকোট পরে রেলযাত্রা খুদের]

এই ঘটনার পরেই উত্তেজিত হয়ে পড়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন ওই এলাকার বাসিন্দারা। পুলিশের গাফিলতির জন্যই এই ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ তাঁদের। এদিকে এই ঘটনার পর তদন্তের নির্দেশ না দিয়ে মৃতদের পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। পাশাপাশি ঘটনাস্থলে পৌঁছে তদন্ত শুরু করেছেন উত্তরপ্রদেশের ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল উপেন্দ্র আগরওয়াল।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তরপ্রদেশের বহুল পরিচিত একটি হিন্দি খবরের কাগজে কাজ করতেন আশিস জানওয়ানি। দীর্ঘদিন ধরেই স্থানীয় মদ মাফিয়াদের সঙ্গে গন্ডগোল চলছিল। তাদের বিরুদ্ধে খবর প্রকাশ করার জন্য আশিসকে হুমকি দিচ্ছিল। বিষয়টি পুলিশকে বারবার জানালেও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। পাশাপাশি এক প্রতিবেশী মহিপালের সঙ্গেও বাড়ির পাশে গোবর রাখা নিয়ে গন্ডগোল চলছিল। বেশ কয়েকবার বিষয়টি নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে ঝামেলাও হয়। এই দুটি ঘটনার জেরেই নাকি বাড়িতে ঢুকে আশিস ও তাঁর ভাইকে গুলি করে দুষ্কৃতীরা। ঘটনাস্থানেই মৃ্ত্যু হয় আশুতোষের। আর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর মারা যান আশিস। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ বেশ কয়েকজনকে আটক করে জেরা করছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: শুধুমাত্র অধিকৃত কাশ্মীর নিয়েই পাকিস্তানের সঙ্গে কথা হবে, হুঁশিয়ারি রাজনাথের]

মৃতের পরিবারের অভিযোগ, গোবর রাখা নিয়ে গন্ডগোলের জেরেই এই ঘটনা ঘটেছে। তাঁদের প্রতিবেশী মহিপাল বাড়িতে ঢুকে গুলি করে খুন করেছে আশিস এবং আশুতোষকে। আশিস পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি ছিলেন। তাঁর মৃত্যুর পর পরিবার কী করে চলবে তা নিয়েই চিন্তা হচ্ছে।

এপ্রসঙ্গে উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব বলেন, ‘‘যে উত্তরপ্রদেশকে ‘উত্তম প্রদেশ’ বলা উচিত, তাকে আজ ‘হত্যা প্রদেশ’ বলা হচ্ছে। কারণ এখানে ধারাবাহিকভাবে হত্যা বা খুনের ঘটনা ঘটে চলেছে।’’

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং