BREAKING NEWS

১৫ মাঘ  ১৪২৯  সোমবার ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

কর্ণাটকে নতুন নাটক, ১৪ জন বিদ্রোহী বিধায়ককে বরখাস্ত করলেন স্পিকার

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: July 28, 2019 1:23 pm|    Updated: July 28, 2019 1:26 pm

Karnataka assembly speaker expels 17 rebel MLAs

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ইয়েদুরাপ্পা সরকারের আস্থা ভোটের আগেই নতুন নাটক কর্ণাটকে। কংগ্রেসের ১১ এবং জেডিএসের ৩ জন মিলিয়ে মোট ১৪ জন বিদ্রোহী বিধায়ককে বরখাস্ত করলেন স্পিকার কে আর রমেশ কুমার। এর ফলে আস্থা ভোটের ঠিক আগের দিন কিছুটা হলেও স্বস্তি পেলেন মুখ্যমন্ত্রী বি এস ইয়েদুরাপ্পা। এই ১৪ জন মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত মোট ১৭ জন বিধায়ককে বরখাস্ত করা হল। এর ফলে কর্ণাটকের মোট বিধায়কসংখ্যা কমে দাঁড়াল ২০৮। এবং ম্যাজিক ফিগার কমে দাঁড়াল ১০৫-এ। বিজেপির কাছে এই মুহূর্তে ১০৫ জন বিধায়কই রয়েছেন। সেই সঙ্গে রয়েছে দুই নির্দল বিধায়কের সমর্থন।

[আরও পড়ুন: কানওয়ার পুণ্যার্থীর পা টিপে দিচ্ছেন পুলিশ সুপার! ভাইরাল ভিডিও ঘিরে বিতর্ক]

এই ১৪ জন বিধায়ক বিধানসভা থেকে ইস্তফা দেওয়ার পরই সংকটে পড়ে কংগ্রেস-জেডিএস জোট সরকার। কিন্তু, সেসময় তাদের ইস্তফাপত্র গ্রহণ করেননি স্পিকার। আস্থা ভোটের সময় এদের বিধানসভায় উপস্থিত থাকার জন্য হুইপ জারি করে কংগ্রেস এবং জেডিএস। কিন্তু, কেউই উপস্থিত হননি। ফলে, কুমারস্বামীর সরকারের পতন ঘটে। নিশ্চিতভাবেই এরা বিজেপির দিকে ঝুঁকে ছিলেন। সোমবারের আস্থা ভোটে অনেকেই বিজেপিকে ভোট দিতেন। কিন্তু, তাঁর আগেই স্পিকার রমেশ কুমার জানিয়ে দিলেন, এদের সকলকে বরখাস্ত করা হয়েছে। বিধায়করা সশরীরে স্পিকারের সামনে হাজির হওয়ার জন্য যে সময়সীমা চেয়েছেন তা তাঁদের দেওয়া সম্ভব নয়। তাৎপর্যপূর্ণভাবে এই বিধায়করা চলতি বিধানসভার মেয়াদ শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা আর নির্বাচনেও লড়তে পারবেন না। যদিও, স্পিকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আদালতে যাওয়ার রাস্তা খোলা রয়েছে বিধায়কদের।

[আরও পড়ুন: কর্ণাটকে বিজেপি সরকারকে সমর্থন করবে জেডিএস? জল্পনা উসকে দিলেন বিধায়ক]

এদিকে, এই সিদ্ধান্তের ফলে আপাতত স্বস্তি পেল সদ্যগঠিত ইয়েদুরাপ্পা সরকার। কারণ, মোট ১৭ জন বিধায়ক বরখাস্ত হওয়ায় ২২৫ আসনের কর্ণাটক বিধানসভার মোট আসন সংখ্যা নেমে এল ২০৮-এ। ম্যাজিক ফিগার নেমে এল ১০৫-এ। বিজেপির কাছে এই মুহূর্তে নির্দল মিলিয়ে মোট ১০৭ বিধায়কের সমর্থন রয়েছে। তবে, সমস্যা এখানেই মিটছে না। ইস্তফা দেওয়া বিধায়কদের কেন্দ্রগুলিতে ৬ মাসের মধ্যে নির্বাচন করতে হবে। এবং সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখতে হলে এই ১৭টি আসনের মধ্যে অন্তত ৮টি জিততেই হবে বিজেপিকে। স্পিকারের নেওয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী যাদের বরখাস্ত করা হল তাঁরা কেউ নির্বাচনে লড়তেও পারবেন না। ফলে, বিরোধীদের জেতা এই ১৭ আসনে লড়াইটা বিজেপির পক্ষে বেশ কঠিন।

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে