৩১ আষাঢ়  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একবিংশ শতাব্দীতে এসে খাতায়-কলমে উন্নত হয়েছে পুলিশ প্রশাসন। কিন্তু এদেশের কিছু ঘটনা ঠিক তার উলটোটাই প্রমাণ করে এখনও। আইন নিজের হাতে তুলে নেওয়াই যেন ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। চিকিৎসার গাফিলতির অভিযোগ তুলে রোগীর পরিবার চিকিৎসক পেটাতে দ্বিধাবোধ করে না। আবার ভিনধর্মে বিয়ে করলে প্রাপ্তবয়স্ক দম্পতিদের গায়ে হাত তুলতেও দুবার ভাবে না এলাকার মোড়লরা। ফের এমনই এক ঘটনা উঠে এল শিরোনামে। যেখানে পাওনা অর্থ না দেওয়ার অভিযোগে প্রকাশ্যে মহিলাকে বেঁধে মারধর করা হল। ঘটনার ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল।

ঘটনা কর্ণাটকের। জানা গিয়েছে, বছর তিরিশের মহিলার নাম রাজামণি। চামারাজানগরের কোলেগাল এলাকার বাসিন্দা একটি ছোট হোটেল চালান। অভিযোগ, সেই সঙ্গে বেঙ্গালুরুতে চিটফান্ডের ব্যবসাও করেন। সেই সূত্রেই বেশ কয়েকজনের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা তুলেছিলেন তিনি। কিন্তু শেষমেশ আর তা ফেরত দিতে পারেননি। আর তারই শাস্তি পেতে হল মহিলাকে। নেটদুনিয়ায় যে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে, কোড়িগেহাল্লি এলাকার রাস্তার পাশের একটি পোলে বেঁধে রাখা হয়েছে রাজামণিকে। অনেকে বলছে, “চপ্পল আর ঝাঁটা দিয়ে ওকে মারো।” মহিলাকে মারধর করতে করতে বলা হচ্ছে, সকলের টাকা যেন তিনি ফিরিয়ে দেন। পথচারীরা এমন দৃশ্য দেখেও পাশ কাটিয়ে চলে যাচ্ছেন।

[আরও পড়ুন: এনআরএস কাণ্ডের জের ভিনরাজ্যে, চিকিৎসকদের বিক্ষোভে একাধিক হাসপাতালে স্তব্ধ পরিষেবা]

এমন ঘটনার খবর কর্ণাটক পুলিশের কানে গিয়েও পৌঁছায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছে মহিলাকে হেনস্তার অভিযোগে সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এমন ঘটনার নিন্দা করেছে নেটিজেনদের একাংশ। তাদের মতে, মহিলা অপরাধ করলে তার শাস্তি পুলিশ প্রশাসন দেবে। প্রকাশ্যে এভাবে কাউকে মারধর করা কোনওভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।

[আরও পড়ুন: বিহারে এনসেফেলাইটিসে ৪৩ জনের মৃত্যু, নির্বিকার প্রশাসন]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং