BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভূস্বর্গে সঠিকভাবে কাজ করছে না CRPF! বিস্ফোরক কাশ্মীর পুলিশের IG

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: May 9, 2020 8:54 am|    Updated: May 9, 2020 9:26 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লাগাতার সন্ত্রাসদমন অভিযানের মধ্যেই কাশ্মীরে নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে অন্তর্ঘাতের ইঙ্গিত। কাশ্মীরে জঙ্গিদমন অভিযানে ভারতীয় সেনা, CRPF, CISF, ITBP, SSB, BSF এবং কাশ্মীর পুলিশ যৌথভাবে কাজ করে। তবে অধিকাংশ অভিযানেই একসঙ্গে দেখা যায় CRPF, সেনা এবং কাশ্মীর পুলিশের কর্মীদের। এই তিন বাহিনীর যৌথ উদ্যোগে বহু অপারেশনে সাফল্যও এসেছে। কিন্তু এবার এই তিন বিভাগের কর্মীদের মধ্যে মিলল সংঘাতের ইঙ্গিত। কাশ্মীরে জঙ্গিদমন এবং আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখার কাজে সিআরপিএফের ভূমিকা নিয়েই প্রশ্ন তুলে দিলেন কাশ্মীর পুলিশের শীর্ষ আধিকারিক।

kashmir
ফাইল ফটো

গত ২৯ এপ্রিল কাশ্মীরের নিরাপত্তা বাহিনীর যৌথ বৈঠকে সিআরপিএফের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ করেন কাশ্মীর পুলিশের (Jammu and Kashmir Police) ইন্সপেক্টর জেনারেল বিজয় কুমার। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি ওই বৈঠকে বিজয় কুমার সরাসরি বলেন, “সিআরপিএফ (Central Reserve Police Force) নিজেদের কাজ সঠিকভাবে করছে না। সমস্ত গোপন তথ্য সংগ্রহ করছে কাশ্মীর পুলিশ এবং অপারেশনগুলি করছে ভারতীয় সেনা। সিআরপিএফের শুধু নাম হচ্ছে। আর এটা সকলেই জানে।” কাশ্মীর পুলিশের আইজির এই মন্তব্যে রীতিমতো ক্ষুব্ধ হন বৈঠকে উপস্থিত সিআরপিএফ আধিকারিকরা। তবে ‘নিজেদের মান বাঁচাতে’ তৎক্ষণাৎ কিছু বলেননি তাঁরা। পরে ওই পুলিশ আধিকারিককে ডেকে তাঁর মন্তব্যের প্রতিবাদ করা হয়। IG পদমর্যাদার আধিকারিকের ওই মন্তব্যে ক্ষুব্দ সিআরপিএফের জওয়ানরা নিজেদের শীর্ষ আধিকারিকদের কাছে একটি চিঠি লিখে নালিশ করেছেন। বিষয়টি সিআরপিএফের শীর্ষ আধিকারিকরা অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে দেখছে বলে ওই সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে।

[আরও পড়ুন: সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘনের ফল, ভারতীয় জওয়ানদের গুলিতে খতম তিন পাকিস্তানি সেনা]

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার রাতেই অবন্তীপোরায় কাশ্মীর পুলিশ, ৫৫ নম্বর রাষ্ট্রীয় রাইফেলস ও সিআরপিফের যৌথ অভিযানে হিজবুলের শীর্ষ কম্যান্ডার রিয়াজ নাইকো নিকেশ হয়েছে। নিরাপত্তারক্ষীদের এই সাফল্যের পর বদলা নিতে মুখিয়ে জঙ্গিরা। এই অবস্থায় সিআরপিএফ এবং পুলিশের এই অভ্যন্তরীণ টানাপড়েন মোটেই ভাল লক্ষণ নয়। বিশেষ করে গত সাতদিন ধরে যেভাবে টানা সংর্ঘষবিরতি লঙ্ঘন করে সীমান্তের ওপার থেকে গুলি ছুঁড়ছে পাকিস্তান। এই পরিস্থিতিতে নিরাপত্তাবাহিনীর ঐক্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement