BREAKING NEWS

১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

এনআরসির আগে রাজ্য সরকারগুলির পরামর্শ নেওয়া হবে, ঘোষণা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: December 29, 2019 3:49 pm|    Updated: December 29, 2019 3:49 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশজুড়ে এনআরসি (National Register of Citizens) ইস্যুতে ফের খানিকটা পিছু হটল বিজেপি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi) এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah) ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছেন, এনআরসি নিয়ে এখনও কোনও আলোচনা হয়নি। এদিন, কেন্দ্রীয় আইন মন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ (Ravi Shankar Prasad) উলটো কথা শোনালেন। তিনি বললেন, এ প্রসঙ্গে সরকার একটা অবস্থান ঠিক করেছে। তবে, কোনওকিছুই লুকিয়ে-চুরিয়ে হবে না। যা হওয়ার আইন মেনে হবে এবং রাজ্য সরকারগুলির পরামর্শ নেওয়া হবে।

NRC


রবিবার এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রবিশংকর প্রসাদ বলেন, “একটা অবস্থান নেওয়া হয়েছে। তবে, আইনি প্রক্রিয়া আছে। প্রথমে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। বিজ্ঞপ্তি জারি করতে হবে। কারও আপত্তি থাকলে সেটা জানতে হবে। প্রত্যেকের আবেদন খতিয়ে দেখা হবে। রাজ্যগুলির সঙ্গেও আলোচনা করা হবে এ বিষয়ে। কোনওকিছুই লুকিয়ে চুরিয়ে হবে না। যদি তেমন কিছু করা হয়, তাহলে তা রাজ্যগুলির সঙ্গে আলোচনার পরই হবে।” উল্লেখ্য, সিএএ নিয়ে বিক্ষোভের জেরে বেশ কয়েকটি রাজ্য এনআরসি নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে। এরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুরু থেকেই এনআরসির বিরোধী ছিলেন। কংগ্রেস জোট শাসিত সাত রাজ্যই এনআরসিতে আপত্তি জানাবে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। একইভাবে এনআরসিতে আপত্তি জানিয়েছেন বিজেপির জোটসঙ্গী নীতীশ কুমার, ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক এবং অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জগনমোহন রেড্ডি। এই তীব্র আপত্তির জেরেই হয়তো রাজ্যগুলির সঙ্গে আলোচনার পথে হাঁটতে চাইছে কেন্দ্র। সেক্ষেত্রে অবশ্য, বাংলা-সহ একাধিক রাজ্য তীব্র আপত্তি জানাতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

CAA

[আরও পড়ুন: ‘বিশৃঙ্খলা ও স্বজনপোষণ যুবসমাজের অপছন্দের জিনিস’, বর্ষশেষের ‘মন কি বাতে’ মন্তব্য মোদির]


এদিন এনপিআর ও এনআরসির যোগসূত্র নিয়েও নতুন করে ধন্দ তৈরি করে দিয়েছেন রবিশংকর প্রসাদ। এনপিআরের তথ্য এনআরসিতে ব্যবহার করা হবে কিনা, তা নিয়ে অবস্থান স্পষ্ট করেননি কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী। এনপিআরের তথ্য এনআরসিতে ব্যবহার করা হবে কিনা, তা নিয়ে যে এখনও দোটানা আছে, তা এদিন আইন মন্ত্রীর কথায় সাফ বোঝা গেল। রবিশংকর বললেন, “এনআরসি তৈরির ক্ষেত্রে এনপিআরের তথ্য ব্যবহার করা হতেও পারে, আবার নাও পারে।” যা রীতিমতো বিভ্রান্তিকর। যদিও, এনপিআর নিয়ে এতো জলঘোলার মানে খুঁজে পাচ্ছেন না তিনি। তাঁর প্রশ্ন, প্যান কার্ড, পাসপোর্ট, আধার কার্ড তৈরির জন্যও তো এত তথ্য দিতে হয়। তাহলে, এনপিআর নিয়ে এত হইচই কেন হচ্ছে?

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement