২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ১৯ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

উত্তরপ্রদেশে ফের অনাচার! খুন যোগী আদিত্যনাথের তৈরি করা হিন্দু সংগঠনের নেতা

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: September 18, 2020 7:07 pm|    Updated: September 18, 2020 7:07 pm

An Images

সঞ্জয় সিং

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যোগী আদিত্যনাথ ক্ষমতায় বসার পর থেকেই উত্তরপ্রদেশের একের পর এক খুন হচ্ছেন হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের নেতারা। এবার খোদ নিজের হাসপাতাল কাছ থেকে উদ্ধার হল আদিত্যনাথের হাতে তৈরি হিন্দু যুব বাহিনীর এক নেতার রক্তাক্ত মৃতদেহ। বরেলি (Bareilly)’র বাসিন্দা ৩৭ বছরের ওই যুবকের নাম সঞ্জয় সিং। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে প্রবল উত্তেজনা ছড়িয়েছে উত্তরপ্রদেশের হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলির মধ্যে। মৃতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করলেও এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার অনেক আগে ২০০২ সালে হিন্দু যুব বাহিনী (Hindu Yuva Vahini) নামে একটি সংগঠন তৈরি করেছিলেন গোরক্ষপুরের সাংসদ যোগী আদিত্যনাথ। বরেলির বাসিন্দা সঞ্জয় সিং ওই সংগঠনের একজন সক্রিয় নেতা হিসেবেই পরিচিত ছিলেন। বর্তমানে বরেলি জেলার সহ-সভাপতির দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন। বৃহস্পতিবার সন্ধেয় শাহি পুলিশ স্টেশনের অধীনস্ত ডুনকা এলাকায় থাকা নিজের একটি হাসপাতালের কাছ থেকে সঞ্জয়ের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। বর্তমানে ওই হাসপাতালের পাঁচ জন কর্মীকে আটক করে জেরা করার পাশাপাশি ঘটনাস্থলে থাকা সিসিটিভি ক্যামেরাগুলিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: মোদি সরকারের প্রতি আর বিশ্বাস নেই কৃষকদের, কৃষি বিল বিতর্কের মাঝে টুইটে খোঁচা রাহুলের ]

এপ্রসঙ্গে বরেলির সিনিয়র পুলিশ সুপার (SSP) রোহিত সিং সাজওয়ান বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধেয় শাহি পুলিশ স্টেশনের ডুনকা এলাকায় অবস্থিত নিজের হাসপাতালের কাছ থেকে সঞ্জয় সিংয়ের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। তাঁর শরীরে একাধিক ক্ষত ছিল। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠানোর পাশাপাশি অজ্ঞাত পরিচয়ের ব্যক্তিদের নামে খুনের মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু হয়েছে।

মৃতের এক আত্মীয় দীনেশ সিং জানান, হিন্দু যুব বাহিনীর কাজে সক্রিয়ভাবে অংশ নিতেন সঞ্জয়। এর জন্য এলাকায় তাঁর প্রচুর শত্রু তৈরি হয়েছিল। তারাই এই ঘটনার পিছনে রয়েছে।

[আরও পড়ুন: নেহরুকে ‘অপমান’ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুরের, পালটা কটাক্ষ অধীরের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement