Advertisement
Advertisement

মন্দির নির্মাণের প্রত্যাশা পূরণে রামের নামে প্রদীপ জ্বালানোর অনুরোধ যোগীর

লোকসভা নির্বাচনের আগে তুঙ্গে মন্দির রাজনীতি।

'Light Diyas on the name of Ram', Addityanath
Published by: Tanujit Das
  • Posted:November 4, 2018 6:13 pm
  • Updated:September 12, 2023 6:45 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাম মন্দির ইস্যুতে সরগরম জাতীয় রাজনীতি৷ প্রথম থেকেই কেন্দ্রের উপর চাপ বাড়াচ্ছে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলি৷ এমত পরিস্থিতিতে, উত্তেজনার পারদ আরও চড়িয়েদিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ৷ রাজ্যের মানুষের কাছে আবেদন করলেন, কাঙ্ক্ষিত প্রত্যাশা পূরণের জন্য প্রভু রামের নামে ঘরে ঘরে দীপাবলিতে একটি করে প্রদীপ জ্বালানোর৷

[তিনসুকিয়া গণহত্যা: নিহতদের পরিবারকে নিয়ে রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ হচ্ছে তৃণমূল]

Advertisement

২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনের আগে আবারও জাতীয় রাজনীতিতে মাথাচাড়া দিয়েছে রাম মন্দির ইস্যু৷ ইতিমধ্যে মন্দির মামলায় উপর জানুয়ারি পর্যন্ত স্থগিতাদেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট৷ আরএসএস-সহ অন্যান্য হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলি কিন্তু এত দেরি করার পক্ষপাতী নয়৷ তাঁদের দাবি, অর্ডিন্যান্স এনে সংসদে রাম মন্দির বিল পাশ করুক কেন্দ্র৷ এমত পরিস্থিতিতে দীপাবলির আগেই রাম মন্দির ইস্যুতে ভাল কোনও খবরের ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছিল উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর তরফ থেকে৷ এবার সেই প্রত্যাশা আরও বাড়িয়ে দিলেন তিনি৷ রবিবার একটি অনুষ্ঠানে যোগী জানালেন, “আপনারা মনে মনে যেটা চাইছেন সেটা পূরণের জন্য, দীপাবলির দিন প্রভু রামের নামে ঘরে ঘরে একটা করে প্রদীপ জ্বালান। তাহলেই আরও তাড়াতাড়ি আপনাদের প্রত্যাশা পূরণ হবে।” যোগীর অনুরোধকে সমর্থন জানিয়ে ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে নয়া হ্যাশট্যাগ, “#JalaoEkDiyaRamMandirKeNaamKa”।

Advertisement

[বিদেশি সাহায্যেই তৈরি ‘স্ট্যাচু অফ ইউনিটি’! দাবি ব্রিটিশ মিডিয়ার]

রাম মন্দির মামলায় সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের পর কেন্দ্রের উপর ক্রমাগত চাপ বাড়াচ্ছে আরএসএস-সহ হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলি। মন্দির ইস্যুতে বড়সড় আন্দোলনেরও হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছে আরএসএস। সরকারকে চূড়ান্ত সতর্কবার্তা দিয়ে হিংসাত্মক আন্দোলনের ইঙ্গিত দিয়েছে সংঘ। সংঘের মুখপাত্র ভাইয়াজি যোশী সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, প্রয়োজনে ১৯৯২-এর মতো আন্দোলনে যাবে আরএসএস। ফলে রাজনৈতিক আবারও দেশে তৈরি হবে হিংসার পরিবেশ। ছড়িয়ে পড়বে সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প। ১৯৯২-এ বিশ্ব হিন্দু পরিষদ, বজরং দল-সহ হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলির আন্দোলনের জেরেই অযোধ্যার বিতর্কিত স্থানে বাবরি মসজিদের পতন হয়, যার যেরে গোটা দেশে চূড়ান্ত বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়, সাম্প্রদায়িক অশান্তি ছড়িয়ে পড়ে। ঠিক তেমনই পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার চূড়ান্ত হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে আরএসএস-এর তরফ থেকে।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ