৪ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

‘বাংলাকে পূর্ব পাকিস্তান হতে দেব না’, লোকসভার রেকর্ড থেকে বাদ লকেটের মন্তব্য

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: February 9, 2021 11:59 am|    Updated: February 9, 2021 11:59 am

Lok Sabha has expunged certain remarks from BJP MP Locket Chatterjee’s Motion of Thanks speech | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাষ্ট্রপতির ভাষণের জবাবি ভাষণ দিতে গিয়ে সংসদে খানিকটা অপ্রাসঙ্গিকভাবেই বাংলার শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসকে তুলোধোনা করেছিলেন বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় (Locket Chatterjee)। রাজ্যের তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে এনেছিলেন একের পর এক বিস্ফোরক অভিযোগ। কিন্তু লোকসভায় দাঁড়িয়ে বিজেপি (BJP) সাংসদের সেই বক্তব্যের বেশ কিছুটা অংশকে অসংসদীয় বলে মনে করছেন স্পিকার। সেকারণেই ওই বক্তব্যের বেশ কিছুটা অংশ লোকসভার রেকর্ড থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

কী বলেছিলেন লকেট? সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের জবাবি বক্তৃতায় রাজ্যের তৃণমূল (TMC) সরকারের বিরুদ্ধে স্পষ্টত সংখ্যালঘু তোষণের অভিযোগ করেছিলেন হুগলির সাংসদ। তাঁর অভিযোগ ছিল, এরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বাংলাকে ‘পূর্ব পাকিস্তানে’ পরিণত করার দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। ‘জয় শ্রীরাম’ ইস্যুতে মমতার রেগে যাওয়া নিয়েও সুর চড়ান লকেট। তাঁর কথায়,”জয় শ্রীরাম বলাটা কি গালাগালি দেওয়া? মমতা সরকার ভগবান রাম এবং সীতামাতার অপমান করেছে। ওঁরা তোষণের রাজনীতি করছে। মাত্র ৩০ শতাংশ ভোটের জন্য রাজনীতি করছে। আমরা বাংলাকে পূর্ব পাকিস্তান হতে দেব না।”

[আরও পড়ুন: ফের আগ্রাসনের প্রস্তুতি চিনের! নিয়ন্ত্রণরেখার কাছেই মজুত বিপুল রকেট, মিসাইল]

এখানেই শেষ নয়, কৃষক বিক্ষোভ ইস্যুতে সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে (Mamata Banerjee) টার্গেট করে বিজেপি সাংসদ বলেন,”মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কৃষকদের সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। গত দশ বছর বাংলার কৃষকরা দুর্দশার মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন। কিন্তু মমতা এতদিন নীরব ছিলেন। আর এখন রাজনীতির জন্য সিঙ্ঘু সীমান্তে নিজের দলের সাংসদদের পাঠাচ্ছেন।” লকেটের অভিযোগ, তৃণমূল রেশনের চাল চুরি করেছে, আমফানের ত্রিপল চুরি করেছে এমনকী করোনার টিকাও চুরি করেছে। লোকসভায় দাঁড়িয়েও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘তোলাবাজ ভাইপো’ বলে কটাক্ষ করেন বিজেপি নেত্রী। কিন্তু তাঁর এই ভাষণের বেশ খানিকটা অংশকেই অসাংবিধানিক বলে মনে করছেন স্পিকার। এবং তা লোকসভার রেকর্ড থেকে বাদ গিয়েছে। এটাই অবশ্য প্রথম নয়, এর আগেও এ রাজ্যের একাধিক বিজেপি সাংসদের বক্তব্য বাদ দেওয়া হয়েছে সংসদের রেকর্ড থেকে। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে