১১ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

ঐতিহাসিক মুহূর্ত, ভোটাভুটি শেষে লোকসভায় পাশ তিন তালাক বিল

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 28, 2017 1:52 pm|    Updated: December 28, 2017 2:02 pm

Loksabha Passes Triple Talaq bill after Intense Debate

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একদিকে কুলভূষণ যাদব নিয়ে উত্তপ্ত সংসদ। তার মধ্যেই সংসদে পেশ হল তিন তালাক বিল। কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ বিল পেশ করা মাত্র নানা প্রতিক্রিয়ায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে সংসদ। শেষমেশ ভোটাভুটির পর বৃহস্পতিবারই লোকসভায় পাশ হল তিন তালাক বিল।

শিশুকন্যাদের ধর্ষণ ৬০ বছরের বৃদ্ধের, মুখ বন্ধ রাখার মূল্য পাঁচ টাকা ]

তিন তালাক বিল আগেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার ছাড়পত্র পেয়েছিল। আজ সংসদে এই বিল পেশ করা হয়েছিল। এদিকে এ নিয়ে আগেই বৈঠকে বসেছিল অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড। তারা এই বিলের বিরোধিতা করেছে। বিল তৈরির সময় কোনও মৌলবির সঙ্গে আলোচনা করা হয়নি। তাই তাদের দাবি, এই বিল আসলে শরিয়তি আইনে হস্তক্ষেপ। এদিন সংসদেও সেই বিরোধিতা জারি থাকল। প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস অবশ্য এই বিলকে সমর্থন জানিয়েছে। তবে বিলে কিছু পরিবর্তন আনার পরামর্শ ছিল কংগ্রেসের। অর্থাৎ শর্তসাপেক্ষে সমর্থন জানিয়েছিল কংগ্রেস। এদিন কংগ্রেস নেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে জানান, “আমরা প্রত্যেকেই এই বিল সমর্থন করি। তবে কিছু পরিবর্তন আনা যেতেই পারে।” কংগ্রেসের প্রস্তাব ছিল, বিল স্ট্যান্ডিং কমিটির সামনে আনা । তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা দাবি জানিয়েছিল কংগ্রেস। অন্যদিকে রবিশঙ্কর প্রসাদ সওয়াল করেন, যেখানে ইসলাম প্রধান দেশগুলিই তিন তালাককে বৈধ মনে করে না, সেখানে আমাদের দেশে কেন তা নিয়ে বিবেচনা করতে হবে।

এদিন সংসদে ভীষণমাত্রায় সরব ছিলেন বিজেপি নেত্রী মীনাক্ষী লেখি। তিনি জানান, আর কেউ নন, মেয়েরাই এদেশের প্রকৃত সংখ্যালঘু। এই বিল তাই লিঙ্গসাম্যের প্রতি বিশেষ পদক্ষেপ। যে সমস্ত মৌলবিরা তিন তালাকের মতো বিষয়কে সমর্থন করছে, তাদের চিহ্নিত করে শাস্তি দেওয়ার ব্যবস্থা করা হোক।

দোকানে আমিষ খাবার প্রদর্শনে নিষেধাজ্ঞা, বিতর্কে এই পুরনিগম ]

অন্যদিকে অল ইন্ডিয়া মুসলিম উইমেনস পার্সোনাল ল বোর্ডের তরফে এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানানো হয়েছিল। তারা জানিয়েছিল, এ আসলে এক ঐতিহাসিক দিন।

এদিন বিস্তর হট্টগোল হয় এই বিল নিয়ে। লোকসভায় এই নিয়ে ভোটাভুটির ডাক দেন এআইএমএম সাসংদ আসাদউদ্দিন ওয়েসি।তাঁর কথামতোই ভোট নেওয়া শুরু হয়। প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেন ২৪৮ জন সাংসদ। বিপক্ষে ছিলেন মোটে একজন। ফলে এই বিল পাশ হতে কোনও সমস্যা থাকল না। এবার রাজ্যসভায় পাশ হলেই তা আইনে পরিণত হবে। লিঙ্গসাম্যের পক্ষে এ এক ঐতিহাসিক পদক্ষেপ বলেই মনে করছেন গরিষ্ঠসংখ্যক দেশবাসী।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে