BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

‘নিয়মিত যোগচর্চায় ধর্ষণ রোখা সম্ভব’, নির্ভয়া কাণ্ডে ৪ দোষীর ফাঁসির দিনে দাওয়াই রামদেবের

Published by: Sayani Sen |    Posted: March 20, 2020 1:06 pm|    Updated: March 20, 2020 1:06 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রকৃত শিক্ষা নাকি কঠোর শাস্তির মাধ্যমে ধর্ষণের মতো অপরাধ রোখা সম্ভব? এ প্রশ্নের যথাযথ উত্তর পাওয়া কঠিন। কারও কারও দাবি, প্রকৃত শিক্ষাই একজন মানুষের ধর্ষণের প্রবণতা দূর হতে পারে। কেউ কেউ আবার বলছেন, যোগ্য শাস্তিই ধর্ষণের প্রবণতায় রাশ টানতে পারে। যদিও বিতর্কের মাঝে ধর্ষণ রোখার উপায় বাতলালেন যোগগুরু রামদেব। নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন তিনি।

যোগগুরু রামদেব বলেন, “ভারতীয় আইনব্যবস্থা নির্ভয়ার চার ধর্ষককে ফাঁসি দিয়ে নজির গড়েছে। যারা এই ধরনের অপরাধ করার ভাবনাচিন্তা করছে তাদের কাছে শাস্তি উদাহরণ হয়ে থাকবে। এমন ঘৃণ্য কাজ রুখতে সরকারের উচিত যোগব্যায়াম এবং নৈতিক শিক্ষা পাঠ বাধ্যতামূলক করা। অভিভাবকদেরও উচিত তাঁদের সন্তানদের সঠিক শিক্ষা দেওয়া।” ২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর প্যারামেডিক্যাল ছাত্রীকে নৃশংসভাবে ধর্ষণ এবং খুনের ঘটনায় চার ধর্ষককে ফাঁসি দেওয়ার সিদ্ধান্ত স্বাগত জানিয়েছেন যোগগুরু।

[আরও পড়ুন: জল্পনাই সত্যি, আস্থা ভোটের আগেই মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা কমল নাথের]

নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসির পর টুইট করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ন্যায়বিচার হয়েছে বলেই টুইটে উল্লেখ করেন তিনি। নারীশক্তিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য সমাজের নিরাপত্তা আরও বাড়াতে হবে বলেও টুইটে উল্লেখ করেন মোদি।

নির্ভয়া কাণ্ডে ফাঁসির সিদ্ধান্তে খুশি দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তিনি বলেন, “সুবিতার পেতে ৭ বছর সময় লেগে গেল। একটাই স্বস্তির খবর শাস্তির পর এ ধরনের অত্যাচারের আগে অপরাধীরা দু’বার ভাববে। আমরা দেখেছি কীভাবে নানা আইনি কৌশলের মাধ্যমে ফাঁসি রদের চেষ্টা করেছে দোষীরা। আইনের ফাঁক গলে বেরোবার চেষ্টা করেছে তারা। আইনে কিছু বদল আনা প্রয়োজন।”

[আরও পড়ুন: করোনায় আক্রান্ত হয়ে জয়পুরে মৃত্যু ইটালির পর্যটকের, ভারতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫]

দেরিতে হলেও, সুবিচার পেয়ে উচ্ছ্বসিত বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীর। টুইট করে সেকথা জানান তিনি। ধর্ষকদের ফাঁসির সময় কাকভোরে এদিন তিহার জেলের সামনে ভিড় জমান বহু মানুষ। দেশের মেয়ে সুবিচার পাওয়ায় অস্বস্তি প্রায় সকলেই।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement