৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মেলেনি খাবার, ১৩৫ কিলোমিটার রাস্তা হেঁটে লকডাউনে বাড়ি ফিরলেন দিনমজুর

Published by: Sayani Sen |    Posted: March 26, 2020 4:51 pm|    Updated: April 6, 2020 10:15 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রুখতে লকডাউন আরও ২১ দিন বাড়ানো হয়েছে। গণপরিবহণ বন্ধ থাকায় এক জায়গা থেকে অন্যত্র যাওয়া কার্যত অসম্ভব। কিন্তু বিপদের দিনে পরিজনদের পাশে না থাকতে কি মন চায়? তাই তো বাধ্য হয়ে ১৩৫ কিলোমিটার রাস্তা হেঁটে নিজের বাড়িতে পৌঁছলেন এক দিনমজুর। আপাতত ১৪ দিন গৃহবন্দি হয়ে থাকতে হবে তাঁকে।

নরেন্দ্র শেলকে নামে ওই ব্যক্তি দিনমজুরের কাজ করেন। তিনি পুনেতে থাকতেন। দিনকয়েক করোনা আতঙ্কে চিন্তিত ছিলেন তিনি। চোখের পাতা এক করতে পারেননি। কর্মস্থলে প্রায়শই অমনোযোগী হয়ে থাকতেও দেখা গিয়েছে তাঁকে। একদিন হঠাৎ বাড়ি ফেরার আশায় পুনে থেকে নাগপুর আসার জন্য ট্রেনে চড়ে বসেন তিনি।

ইতিমধ্যে আচমকাই লকডাউনের কথা ঘোষণা করে কেন্দ্র সরকার। বন্ধ হয় যায় গণপরিবহণ। আটকে যায় ট্রেন। এই পরিস্থিতিতে কীভাবে বাড়ি ফিরবেন তা নিয়ে চিন্তায় পড়ে যান নরেন্দ্র। বহু মানুষকে ফোন করে সাহায্য চান তিনি। কিন্তু মেলেনি সাহায্য। তাই বাধ্য হয়ে তিনি সিদ্ধান্ত নেন হেঁটেই বাড়ি ফিরবেন। যেমন ভাবা, তেমনই কাজ। এক মুহূর্ত সময় নষ্ট না করে বাড়ির উদ্দেশে হাঁটতে শুরু করলেন নরেন্দ্র। একটানা দুদিন ধরে হাঁটতে থাকেন তিনি। হাঁফিয়ে গিয়েছেন। ভেবেছেন একটু খাবার পেলে ভাল হয়। কিন্তু পথে মেলেনি এতটুকু খাবার। এই পরিস্থতিতে শুধুমাত্র জল পান করেই খিদে তেষ্টা মেটান ওই দিনমজুর।

[আরও পড়ুন:​ করোনায় ঘরবন্দি জীবন, বই পড়ে-রান্না করে সময় কাটছে বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্বের]

গত বুধবার রাতে রাস্তায় টহল দেওয়া পুলিশকর্মীরা নারেন্দ্রকে দেখতে পান। লকডাউনের মাঝে কেন রাস্তায় হাঁটছেন তিনি প্রশ্ন করেন তাঁরা। উত্তরে গোটা ঘটনা খুলে বলেন ওই দিনমজুর। তখনই পুলিশ তাঁকে প্রায় অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা হয় তাঁর। তবে পরীক্ষায় করোনার প্রমাণ মেলেনি। কিন্তু নিরাপত্তার স্বার্থে আপাতত ১৪ দিন গৃহবন্দি থাকার নির্দেশ দেন চিকিৎসকরা। এরপর খাবার খাইয়ে ওই দিনমজুরকে পুলিশের গাড়িতে করে  বাড়ি পৌঁছে দেয় পুলিশ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement